Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

সোমালিয়ায় গাড়ি বোমা হামলায় নিহত ৩০

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:১৮ পিএম

আফ্রিকার দেশ সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুতে এক ভয়াবহ গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে ৩০ জনেরও বেশি বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছে। দেশটির পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা এই ঘটনায় শিশুসহ আরও অনেকে আহত হয়েছে। তাদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। শনিবার সকালে ব্যস্ত সময়ে একটি কর সংগ্রহ কেন্দ্র লক্ষ্য করে এই হামলা চালানো হয়। হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনও গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, নিরাপত্তাবাহিনীর একটি তল্লাশিচৌকির পাশেই গাড়ি বোমা বিস্ফোরিত হয়। আফগোয়ে শহর থেকে রাজধানী মোগাদিসুতে আসা যাওয়ার জন্য ওই সড়কটি ব্যবহার করা হয় বলে সবসময় তা ব্যস্ত থাকে। এক কর্মকর্তা বলছেন, এটা ছিল একটা ট্রাক বোমা হামলা।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, বোমা হামলার জন্য ব্যবহৃত ওই ট্রাকটিতে বিস্ফোরক বোঝাই ছিল। ব্যস্ত ওই মোড়টিতে অবস্থিত শুল্ক গ্রহণ বুথ লক্ষ্য করে হামলাটি করা হয়েছে। মূলত যেসব গাড়ি শহরে ঢোকে কিংবা বের হয় তারা ওকানে দাঁড়িয়ে শুল্ক পরিশোধ করে। সে সুযোগ কাজে লাগাতে চেয়েছিল হামলাকারীরা।
প্রত্যক্ষদর্শী এক ব্যক্তি ভয়েস অব আমেরিকাকে বলেন, ঘটনাস্থলের চারপাশ রক্তাক্ত হয়ে গেছে। যত্রতত্র পরে আছে বিচ্ছিন্ন মরদেহ। তিনি বলেন, ‘ঘটনাস্থলে এত বেশি লাশ আমি পড়ে থাকতে দেখেছি যে তা গণনা করা আমার জন্য খুব কঠিন ছিল।’

১৯৯১ সালে সেনা শাসনের অবসান হওয়ার পর থেকে সোমালিয়াতে সহিংসতা ও অস্থিতিশীলতা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। প্রেসিডেন্ট মোহামেদ সিয়াদ বারে ক্ষমতাচ্যুত হলে দেশের যুদ্ধবাজ গোত্রপতিরা হানহানিতে জড়িয়ে পড়লে সোমালিয়া কার্যত একটি যুদ্ধক্ষেত্রে পরিণত হয়। ২০১২ সালে দেশটিতে জাতিসংঘ সমর্থিত সরকার দায়িত্ব নেয়। এরপর থেকে আল শাবাব জঙ্গি গোষ্ঠীকে বাধাগ্রস্ত করা সম্ভব হলেও সোমালিয়ার গ্রামীণ এলাকায় তারা এখনও তৎপর।

প্রত্যক্ষদর্শী আহমেদ মোয়ালিম ওয়ারসেম বলেন, ‘আমি ২২টি মরদেহ গুনেছি। তাদের সবাই বেসামরিক নাগরিক। ৩০ জনেরও বেশি আহত হয়েছে। এটা একটা কালোদিন’।
বিস্ফোরণের পর ঘটনাস্থলে মোগাদিসুর মেয়র ওমর মোহাম্মদ সাংবাদিকদের বলেছেন, বিস্ফোরণে অন্তত ৯০ জন আহত হয়েছে বলে সরকার নিশ্চিত করছে। এদের বেশিরভাগই শিক্ষার্থী।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সোমালিয়া

১৯ জানুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ