Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জুলাই ২০২০, ৩০ আষাঢ় ১৪২৭, ২২ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

ঢামেক থেকে ভিপি নুরের ছাড়পত্র

গ্রেফতারের উদ্দেশ্যে তড়িঘড়ি : নুরের অভিযোগ

বিশ^বিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

গ্রেফতারের উদ্দেশ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল থেকে তড়িঘড়ি করে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ডাকসু ভিপি নূরুল হক নূর। তার অভিযোগ, সুস্থ হওয়ার আগেই হাসপাতাল থেকে তাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে নুরকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ছাড়পত্র দেয়। হাসপাতাল ত্যাগ করার সময় সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলে আশঙ্কার কথা জানান তিনি। বর্তমানে তিনি একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করে নূর বলেন, হাসপাতালের ট্রিটমেন্ট নিয়ে আমি সন্দিহান। কারণ, আমি পুরোপুরি সুস্থ না। হাসপাতালে ভর্তির প্রথম তিন দিনের চেয়ে শরীরের অবস্থা এখন আরও খারাপ। এখনো নানা জটিলতা আছে। তিনি বলেন, আমি হাঁটতে পারি না, সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারি না। কাশি দিলে পাঁজরে ব্যথা পাই। মাথা ঘোরে, চোখে ঝাপসা দেখি। আমার চিকিৎসার ব্যাপারে সন্দেহ আছে। আমাকে মেরে ফেলার জন্য আটবার হামলা করা হয়েছে। এগুলো করা হচ্ছে সরকারের ইশারায়। এর আগে গত ২২ ডিসেম্বর ডাকসু ভবনে হামলার শিকার হয়ে ঢামেকে ভর্তি হন। এতদিন সেখানেই তিনি চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

ঢামেকে ভর্তি ছিলেন ভিপি নুর।
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তার বিরুদ্ধে হওয়া মামলার বিষয়ে নুর বলেন, আমার ডাকসুর মেয়াদ আর তিন মাস বাকি আছে। ইতোমধ্যে আমার নামে আইসিটি আইনে মামলা দেয়া হয়েছে। আমাকে যাতে গ্রেফতার করা হয়, আমি যাতে জামিন না পাই, সেজন্য তড়িঘড়ি করে আমাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

২২ তারিখের হামলা প্রসঙ্গে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ঘটনার দিন লাইট বন্ধ করে আমাদের মারধর করে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনজিত ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম। সরকারের দুঃশাসন ও ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী কার্যক্রম কথা বলায় আমাকে হত্যা করতে চেয়েছে। ছাত্রলীগের এমন হামলার পরও যদি বিচার না হয়, তাহলে অন্য দল ক্ষমতায় এলে একই ঘটনা ঘটবে।

আইওয়াশের জন্য মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের তিন নেতাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। নুর বলেন, নিজেদের জন্য কিংবা পরিবারের জন্য তাঁর সংগঠনের নেতা-কর্মীরা কোনো আন্দোলন করেন না। তাঁদের আন্দোলন দমনপীড়নের বিরুদ্ধে।

এদিকে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের নেতাকর্মীদের পূর্ণ চিকিৎসা না দিয়েই ঢামেক কর্তৃপক্ষ ছাড়পত্র দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন সংগঠনটির আহŸায়ক হাসান আল মামুন। তিনি বলেন, ভিপি নুর তো সুস্থ না। তারপরও তাকে হাসপাতাল থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। এছাড়া, নাজমুলের মাথা থেকে পুজ বের হচ্ছে, ওর হাত ভাঙ্গা, মাথা ও হাতে সেলাই। তারপরও ডাক্তার তাকে ছাড়পত্র দিয়েছে। মামুন বলেন, ঢাকা মেডিকেলে আমাদের ৫জন নেতাকর্মী ভর্তি রয়েছেন। সেখানে চিকিৎসাধীন এপিএম সুহেলের অবস্থা একটু ক্রিটিক্যাল। ওর মেরুদন্ড ভেঙ্গে গেছে, মাথায় ইনফেকশন একটু বেশি। এছাড়া, নুরসহ আমাদের সংগঠনের চারজন নেতাকর্মী বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

তবে চিকিৎসা নিয়ে ডাকসু ভিপি নুরের সন্দেহ প্রকাশের বিষয়টি ‘দুঃখজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন ঢামেক পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন। তিনি বলেন, হাসপাতালে হাজার হাজার মানুষকে চিকিৎসা দেয়া হয়। তাঁর ক্ষেত্রে ভিন্নতার সুযোগ নেই। তিনি বলেন, ঢাবির ঘটনায় আহত ছাত্রদের ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। চিকিৎসকেরা যত দিন মনে করেছেন, তত দিন চিকিৎসা দিয়েছেন। সুস্থ হওয়ার পরেই ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে।

মেডিকেল বোর্ডের প্রধান নিউরোসার্জারি বিভাগের প্রফেসর ডা. রাজিউল হক ভিপি নুরের অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, নুরকে ছুটি দেয়া হয়েছে। গতকাল তার কাছে ছাড়পত্র বুঝিয়ে দেয়া হয়। কোনো সমস্যা হলে ফলোআপে আসতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২২ ডিসেম্বর দুপুরে ভিপি নুরের ওপর হামলা চালায় ঢাবি শাখা ছাত্রলীগ ও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের নেতা-কর্মীরা। এ সময় নুরের সঙ্গে থাকা বিভিন্ন বিশ^বিদ্যালয় ও কলেজের অন্তত ৩০ জন শিক্ষার্থী আহত হন।##



 

Show all comments
  • আবদুল কাইয়ুম শেখ ১ জানুয়ারি, ২০২০, ১১:৩৬ এএম says : 0
    আল্লাহ তাআলা নুরকে সর্বপ্রকার চক্রান্ত ও ষড়যন্ত্র হতে হেফাযত করুন। বাংলাদেশের একজন প্রকৃত দেশদরদি ও জনদরদি হিসাবে তাকে কবুল করুন। আমিন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডাকসু

১৪ মার্চ, ২০২০
২৯ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন