Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

দেশ জয় করে বিশ্ব বাজারেও এগিয়ে যাচ্ছে ওয়ালটন

প্রকাশের সময় : ২৮ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কর্পোরেট রিপোর্টার : দেশের ফ্রিজের বাজারে একচ্ছত্র আধিপত্ত দেশীয় ব্রান্ড ওয়ালটন ফ্রিজের। বাজারে ফ্রিজ বিক্রির শীর্ষে ওয়ালটন ফ্রিজ। এলইডি টিভি, মোটরসাইকেল, এসি, মোবাইলেও এর জুড়ি কমই আছে। চলছে হোম এ্যাপলায়েন্সও। ওয়ালটনের পণ্য দেশের প্রতিটি জেলা-থানা-ইউনিয়ন, গ্রামের ঘরে ঘরে পৌঁছে গেছে। বাংলাদেশ জয় করে ওয়ালটন পণ্য পৌঁছে গেছে পৃথিবীর দেশে দেশে। আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ডে তৈরি হওয়া ও সাশ্রয়ী মূল্যের কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও এর ব্যাপক চাহিদা তৈরি হয়েছে। এখন ওয়ালটন পণ্য রপ্তানি হচ্ছে বিশ্বের ১৯টি দেশে। ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ জানায়, শুধুমাত্র গুনগত মান, সাশ্রয়ী দাম ও হাতের নাগালে সার্ভিস সেন্টারের কারণে ওয়ালটন স্বল্প সময়ে বাজারের সেরা ব্রান্ডে পরিণত হয়েছে। এত অল্প সময়ে কোন ব্রান্ড এগোয় না। শুধুমাত্র কমিটমেন্টের কারণে আমরা তা পেরেছি। গ্রাম-গঞ্জে প্রতিটি ঘরে ঘরে ওয়ালটন এখন একটি আস্থার ব্রান্ডের নাম। দেশ জয় করে ওয়ালটন যাচ্ছে বিশ্বের বহু দেশে। ওয়ালটন এদেশের ১৬ কোটি মানুষের গর্বেরও ব্রান্ড। সংশ্লিষ্টরা জানায়, ওয়ালটন ফ্রিজ দেশের সবচেয়ে বেশি বিক্রিত পণ্য। ওয়ালটনের রয়েছে বহু মডেলের ও নানান রংয়ের ফ্রিজ। ওয়ালটন বাজারে এনেছে সর্বাধুনিক ইন্টেলিজেন্ট ইনভার্টার প্রযুক্তির ফ্রিজ। এর বিদ্যুৎ খরচ বহুলাংশে কম। কম্প্রেসার হয়েছে দীর্ঘস্থায়ী। ইনভার্টার প্রযুক্তির ফ্রিজের ক্ষেত্রে কম্প্রেসারে ১০ বছরের গ্যারান্টি দেয়া হচ্ছে। এ ছাড়া ওয়ালটন ফ্রিজে রয়েছে ন্যানো হেলথকেয়ার টেকনোলজি। যা খাবারকে সতেজ ও এর প্রাকৃতিক গুণাগুণ অক্ষুণœ রাখে। ইতোমধ্যে ইনভার্টার প্রযুক্তির বেশ কয়েকটি নো-ফ্রস্ট ফ্রিজ বাজারে ছেড়েছে ওয়ালটন। আইএসও স্ট্যান্ডার্ড ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় দুই সহস্রাধিক টেকনিশিয়ান ও প্রকৌশলী সারা দেশে গ্রাহকদের দ্রæত সময়ে নিখুঁত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিচ্ছেন। ওয়ালটন সম্প্রতি অ্যাক্রেডিটেশন সনদ অর্জন করেছে। পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ গুণগতমান নিশ্চিতকারী প্রতিষ্ঠানই কেবল এই সনদ পায়। ওয়ালটনের রয়েছে ১টন এসি ডবিøউ-৩৫জিডবিøউ। দেড় টন এসি ডবিøউ-৫০জিডবিøউ। ২টন এসি ৭০-জিডবিøউ। অফিস বা বাসার ডেকরের কালার ম্যাচিং অনুযায়ীও ওয়ালটন এসি পাওয়া যাচ্ছে। আর্ন্তজাতিক মানের দেশীয় এই ব্রান্ডের এসি দেয় সঠিক বিটিইউ’র নিশ্চয়তা। আর্ন্তজাতিক অনেকগুলো সার্টিফাইড অথরিটির এই ব্রান্ডের রয়েছে নানান বৈশিষ্ট্য। কম বিদ্যুৎ খরচ। এএএ কেটনোলজি, ১০০ পার্সেন্ট কপার টিউব। ডিহিউমিডিফিকেশন মোড। ডুয়াল মোড হিটিং এন্ড কুলিং(অপশনাল)। মাল্টি-ডিরেকশনাল এয়ারফ্ল সিস্টেম। ওয়ালটন মোবাইল দেশে এখন অনেক জনপ্রিয় ব্রান্ড। দ্রæতই এর বিক্রিতে সাড়া পড়েছে। ওয়ালটন সেলফোন সার্ভিস অন্যান্য যেকোনো সময়ের তুলনায় বর্তমানে গ্রাহক সেবায় ভালো অবস্থানে আছে। ৯৫ শতাংশ কাস্টমারকে একদিনের মধ্যে সার্ভিস নিশ্চিত করা হচ্ছে। এলইডি টিভিতে ভালো অবস্থানে ওয়ালটন। সম্প্রতি বাংলাদেশেই এলইডি প্যানেল ও ব্যাকলাইট তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে ওয়ালটন। এ লক্ষ্যে বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতির সমন্বয়ে স্থাপন করা হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের কারখানা। যেখানে বছরে উৎপাদন করা হবে ২০ লাখ ইউনিট এলইডি প্যানেল। অভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে যার উল্লেখযোগ্য অংশ রপ্তানি হবে। স্থানীয় পর্যায়ে উৎপাদন শুরুর পর থেকেই ওয়ালটন এলইডি টিভির প্রতি গ্রাহকদের চাহিদা ও আস্থা ব্যাপক বেড়েছে। আর চাহিদার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উৎপাদন বৃদ্ধি এবং উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করায় কমছে টিভির উৎপাদন খরচ। যার সুফল গ্রাহক পর্যায়ে পৌঁছে দিতে চলতি বছরে এলইডি টিভির দাম কয়েক দফা কমিয়েছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দেশ জয় করে বিশ্ব বাজারেও এগিয়ে যাচ্ছে ওয়ালটন রপ্তানি হচ্ছে ১৯টি দেশে
আরও পড়ুন