Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ০১ রজব ১৪৪১ হিজরী

‘শেখ হাসিনা সেতু’ রক্ষায় হাইকোর্টে রুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

দেশের প্রথম ‘ওয়াই’ আকৃতির ‘শেখ হাসিনা সেতু’ রক্ষার্থে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। সেতুটি রক্ষায় বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না- জানতে চাওয়া হয়েছে রুলে। গতকাল রোববার বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম এবং বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের ডিভিশন বেঞ্চ স্ব-প্রণোদিত হয়ে এ রুল জারি করেন। রুল জারির পাশাপাশি আদালত সেতুর নিচ থেকে বালু উত্তোলন ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কুমিল্লার হোমনা উপজেলার তিতাস নদীর ত্রিমোহনায় অবস্থিত ওয়াই আকৃতির শেখ হাসিনা সেতু। সেতুটির একপ্রান্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে এবং অপরপ্রান্ত হোমনায় পড়েছে। সেতুটির পিলারে নিচ থেকে অব্যাহতভাবে বালু উত্তোলন করছে স্থানীয় বালু দস্যুরা। এ বিষয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। শিরোনাম করা হয়, ‘ঝুঁকিতে শেখ হাসিনা সেতু’। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, সাইদুল ইসলাম নামে এক ঠিকাদার সেতুর নিচ থেকে বালু উত্তোলন করছেন। এতে সেতুটি ঝুঁকির মধ্যে পড়ছে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর ও কুমিল্লার হোমনা উপজেলার তিতাস নদীর ত্রিমোহনায় নির্মিত দেশের প্রথম ওয়াই আকৃতির ‘শেখ হাসিনা সেতু’র উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রতিবেদনটি আদালতের দৃষ্টিতে এনে প্রতীকার চান সুপ্রিম কোর্ট বারের অ্যাডভোকেট কুমার দেবুল দে। এতে সড়ক ও সেতু সচিব, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী, ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলা প্রশাসক, বাঞ্ছারামপুর থানার নির্বাহী কর্মকর্তা, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার বিবাদী করা হয়। আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শেখ হাসিনা

১৯ জানুয়ারি, ২০২০
২২ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন