Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

চট্টগ্রাম-৮ আসনে উপনির্বাচন কাল

আলোচনায় কালুরঘাট সেতু

আইয়ুব আলী : | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

চট্টগ্রাম-৮ (চান্দগাঁও-বোয়ালখালী) আসনের উপ-নির্বাচন আগামীকাল সোমবার। ইতোমধ্যে নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন ও জেলা প্রশাসন। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বাত্মক নিরাপত্তামূলক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন অফিস থেকে জানানো হয়েছে।
আজ রোববারের মধ্যে প্রতিটি কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌঁছে যাবে। প্রতিটি কেন্দ্রে সেনাবাহিনীর দুইজন করে সদস্য কারিগরী সহযোগিতার জন্য থাকবে বলে জানিয়েছেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা। গতকাল মধ্যরাত থেকে প্রার্থীদের সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা বন্ধ হয়ে গেছে। এ আসনের উপ-নির্বাচনে ৬ প্রার্থীর মধ্যে মূলত প্রতিদ্বনদ্বতা হবে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোছলেম উদ্দিন আহমদ ও বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী আবু সুফিয়ান। তারা দুজনেই বিরামহীন প্রচারণা চালিয়েছেন।
নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী কালুরঘাট সেতুকে সামনে রেখে ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। তিনি বিভিন্ন নির্বাচনী সমাবেশ ও গণসংযোগকালে ভোটারদের উদ্দেশে বলেন, নির্বাচিত হলে এক বছরের মধ্যে কালুরঘাট সেতু নির্মাণসহ ব্যাপক উন্নয়ন কাজ করবেন।
অন্যদিকে বিএনপির প্রার্থী আবু সুফিয়ান নির্বাচনী সভা সমাবেশে বলেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী ‘কালুরঘাট সেতু’র মূলা ঝুলিয়ে নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়ার কৌশল অবলম্বন করেছেন।
তিনি বলেন, ধানের শীষের জয়ের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলন ত্বরান্বিত হবে।
উপ-নির্বাচনে অন্যান্য প্রার্থীরা হলেন- ইসলামিক ফ্রন্টের প্রার্থী সৈয়দ মোহাম্মদ ফরিদ আহমদ, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্টের (বিএনএফ) চেয়ারম্যান এস এম আবুল কালাম আজাদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ এমদদাদুল হক ও ন্যাপের বাপন দাশ গুপ্ত। ইসলামিক ফ্রন্টের চেয়ার মার্কা প্রতীকের প্রার্থী সৈয়দ ফরিদ আহমদও এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ করেছেন। তিনি কালুরঘাট সেতু নির্মাণ, কর্ণফুলী নদীর নাব্যতা রক্ষা, বেড়িবাঁধ নির্মাণসহ ২১ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। চট্টগ্রাম-৮ আসনটি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ৩, ৪, ৫, ৬ ও ৭ নং ওয়ার্ড এবং বোয়ালখালী উপজেলার কধুরখীল, পশ্চিম গোমদনণ্ডী, পূর্ব গোমদণ্ডী, শাকপুরা, সারোয়াতলী, পোপাদিয়া, চরণদ্বীপ, আমুচিয়া ও আহল্লা করলডেঙ্গা ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার ৪ লাখ ৭৫ হাজার ৯৯৮ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৪১ হাজার ৯২২ ও মহিলা ভোটার ২ লাখ ৩৪ হাজার ৭৪ জন। বোয়ালখালী উপজেলার ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ৬৪ হাজার।
নির্বাচনে ৫৮টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। এরমধ্যে ১৮টি অধিক গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করা হচ্ছে। গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে ১৯ জন ও সাধারণ কেন্দ্রগুলোতে থাকবে ১৮ জন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। এ ছাড়া নির্বাচনে পুলিশ, এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্যের সমন্বয়ে ১৪টি মোবাইল ফোর্স, ৬টি স্ট্রাইকিং ফোর্স, র‌্যাবের ৬টি টহল দল এবং ৫ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে।
গতকাল ১৭০টি কেন্দ্রেই মক ভোটিং কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। ভোটাররা কীভাবে ইভিএমে ভোট দেবেন, সেটা শেখার জন্যই মক ভোটিং। জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে অথবা সশরীরে গিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে ভোটাররা ভোট দেন। ভোট গ্রহণকারী কর্মকর্তারা মক ভোটিং কার্যক্রম তদারক করেন। এদিকে উপ-নির্বাচনে শতভাগ ইভিএম’এ ভোটগ্রহণের জন্য আড়াই হাজার ভোটগ্রহণ কর্মকর্তা (প্রিসাইডিং, সহকারী প্রিসাইডিং ও পোলিং) নিয়োগ দেয়া হয়েছে।
মোট ১৭০টি কেন্দ্রের ১১শ’ ৯৬টি বুথে ভোটগ্রহণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ