Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬ আশ্বিন ১৪২৮, ১৩ সফর ১৪৪৩ হিজরী

মুনতাসীর মামুনসহ তিনজনকে লিগ্যাল নোটিশ

প্রকাশের সময় : ২৯ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ১২ কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ ও মানহানির অভিযোগ এনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসের প্রফেসর মুনতাসীর মামুনসহ তিনজনের বরাবর লিগ্যাল নোটিশ পাঠিয়েছেন জাতীয় হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব অ্যাডভোকেট গোবিন্দ্র চন্দ্র প্রামাণিক। অপর দুইজন হলেন দৈনিক জনকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক মোহাম্মদ আতিকউল্লাহ খান মাসুদ ও নির্বাহী সম্পাদক স্বদেশ রায়। নোটিশে মুনতাসীর মামুনকে ‘বুদ্ধিবৃত্তিক জালিয়াতিকারী’ উল্লেখ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে তার পক্ষে সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী আফসানা বেগম এ নোটিশটি পাঠান। আগামী সাত দিনের মধ্যে এই টাকা পরিশোধ করার জন্য বলা হয়েছে। অন্যথায় তার বিরুদ্ধে মামলা করা হবে। জনকণ্ঠে মুনতাসীর মামুনের লেখা এক কলামে গোবিন্দ্র প্রামাণিককে জামায়াতের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে তার পক্ষে ওই আইনজীবী এ নোটিশ পাঠান। এ বিষয়ে জানতে চাইলে নোটিশ প্রেরণকারীর ওই আইনজীবী সাংবাদিকদের বলেন, ২৭ জুনের মধ্যে বিবাদীদের ক্ষমা চাইতে বলা হয়েছিল। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ক্ষমা না চাওয়ায় এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।
২০ জুন দৈনিক জনকণ্ঠে ‘সংখ্যালঘুদের উদ্বেগ ও একরৈখিক চিন্তাভাবনা’ শীর্ষক কলামে গোবিন্দ প্রামাণিককে জামায়াতের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক উল্লেখ করা হয়, যা মিথ্যা, বিভ্রান্তি ও ফরমায়েশি প্রতিবেদন। নোটিশে আরো বলা হয়েছে, মুনতাসীর মামুনকে বুদ্ধিবৃত্তিক জালিয়াতিকারী, জনকণ্ঠের সম্পাদক ও নির্বাহী সম্পাদককে জালিয়াতির সহযোগী উল্লেখ করে বলা হয়, তারা ইচ্ছাকৃতভাবে গোবিন্দ্র চন্দ্র প্রামাণিককে ক্ষতির সম্মুখীন করেছেন। প্রকৃতপক্ষে গোবিন্দ প্রামাণিক জামায়াতের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ছিলেন না। এতে সামাজিক, মানসিক ও সাংগঠনিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় নোটিশ পাওয়ার পর থেকে ৭ দিনের মধ্যে তিন বিবাদীকে ৪ কোটি টাকা হারে মোট ১২ কোটি টাকা গোবিন্দ্র চন্দ্রকে পরিশোধ করতে বলা হয়েছে। অন্যথায় বিবাদীদের বিরুদ্ধে দেওয়ানি ও ফৌজদারি আইনের আশ্রয় গ্রহণ করা হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।
প্রসঙ্গত, গত ২০ জুন দৈনিক জনকণ্ঠ পত্রিকায় ‘সংখ্যালঘুদের উদ্বেগ ও একরৈখিক চিন্তাভাবনা’ শীর্ষক মুনতাসীর মামুনের একটি কলাম প্রকাশিত হয়। কলামের এক অংশে মুনতাসীর মামুন বলেন, এই গোবিন্দ প্রামাণিক কে? তিনি ছিলেন জামায়াতে ইসলামের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মুনতাসীর মামুনসহ তিনজনকে লিগ্যাল নোটিশ
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ