Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

সাভারে নারী শ্রমিককে ধর্ষণ, দুই শিশুকে ধর্ষণচেষ্টা : গ্রেফতার ২

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২০, ৬:০৪ পিএম

ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় গত ২৪ ঘন্টার ব্যবধানে পৃথক ঘটনায় তৈরি পোশাক কারখানার এক নারী শ্রমিক ধর্ষণ ও দুই শিশুকে ধর্ষণচেষ্টা করা হয়েছে। এর মধ্যে দুটি ঘটনায় অভিযুক্ত দুই জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
পুলিশ ভুক্তভোগীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে প্রেরণ করেছেন।
সোমবার আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ কুরগাঁও এলাকায় ৭ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণচেষ্টা ও ঘোষবাগ এলাকায় ২০ বছর বয়সী এক নারী শ্রমিককে ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
আশুলিয়ার কুরগাঁও এলাকায় ৭ বছরের শিশু ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে প্রতিবেশী আলহাজ (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে। নারী পোশাক শ্রমিক ধর্ষনের ঘটনায় তার বিয়াই ইকবাল হোসেনকে (৩৪) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ইকবাল ঘোষবাগ এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে পোশাক কারখানায় শ্রমিকের কাজ করেন।
আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আসওয়াদুর রহমান জানান, শনিবার বিকেলে আশুলিয়ার কুরগাঁও এলাকায় বাড়ির পাশের একটি মাঠে বন্ধুদের সাথে খেলছিলো শিশুটি। এসময় প্রতিবেশী আলহাজ নামের এক ব্যক্তি কৌশলে শিশুটিকে মাঠের এক পাশে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়।
পরে শিশুটি চিৎকার দিয়ে ঘটনাস্থল থেকে দৌড়ে পালিয়ে এসে তার পরিবারকে বিষয়টি জানায়। পরে শিশুর পরিবার রবিবার রাতে আশুলিয়ায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে রাতেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে।
আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফজর আলী জানান, ওই নারী পোশাক শ্রমিক আশুলিয়ার ঘোষবাগ এলাকায় ভাড়া বাসায় থেকে একটি তৈরি পোশাক কারখানায় সুইং অপারেটর পদে কাজ করেন। শনিবার দুপুরে ভুক্তভোগী ওই নারী ভাড়া বাসার তৃতীয় তলায় তার খালাতো বোনের ফ্লাটে যান। এসময় কক্ষে তার খালাতো বোনের দেবড় ইকবাল ছাড়া কেউ ছিলো না। পরে ওই নারীকে একা পেয়ে তার হাত-পা বেঁধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে ইকবাল। এঘটনায় ভুক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে রাতেই ইকবালকে ঘোষবাগ এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়।
অপরদিকে, ঢামেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আব্দুল খান জানান, সোমবার সকালে আশুলিয়ার জিরাবো এলাকা থেকে পাঁচ বছর বয়সী এক শিশুকে হাসাপাতালে নিয়ে আসে তার পরিবার। পরে শিশুটিকে ঢামেক হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়।
শিশুটির পরিবারের অভিযোগ, শনিবার বিকেলে জিরাবো এলাকায় বাসার পাশে একটি মাঠে খেলছিলো শিশুটি। পরে সন্ধ্যায় বাসায় ফিরে শিশুটি অসুস্থ্য বোধ করলে স্থানীয় ক্লিনিকে নিয়ে গেলে ধর্ষণের চেষ্টার বিষয়টি জানতে পারেন তারা। এরপর সোমবার সকালে তাকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে আসে।
এ প্রসঙ্গে আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ বলেন, জিরাবো এলাকায় শিশু ধর্ষনের বিষয়ে এখন আমাদের কাছে কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ধর্ষণ

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন