Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

পটুয়াখালীতে সিরিজ বোমা হামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত জঙ্গি গ্রেফতার

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০২০, ৬:৫৪ পিএম | আপডেট : ৭:১৬ পিএম, ১৩ জানুয়ারি, ২০২০

পটুয়াখালীতে ২০০৫ সালের ১৭ আগষ্ট সারা দেশে একযোগে সিরিজ বোমা হামলাকারী ৯ যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তদের মধ্যে পলাতক বেলাল মিয়া ওরফে বেল্লাল (৩৬) কে গ্রেফতার করেছে পুলিশের এন্টি টেরিজম ইউনিট ও পটুয়াখালী জেলা পুলিশ।
সোমবার বেলা ১১টায় পটুয়াখালী পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সাংবাদিকের সাথে প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে এ তথ্য জানান পটুয়াখালী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান পিপিএম। এসময় প্রেস ব্রিফিং এ উপস্থিত ছিলেন এন্টি টেররিজম ইউনিটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও সহকারি পুলিশ সুপার, পটুয়াখালী পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল শেখ মোঃ বেলাল হোসেন, পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের আহবায়ক স্বপন ব্যানার্জী সহ এন্টি টেররিজম ইউনিট ও পটুয়াখালী পুলিশের কর্মকর্তাবৃন্দ ও প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।
প্রেস ব্রিফিং এ পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান বলেন, গ্রেফতারকৃত বেল্লাল মিয়া(৩৬) ওরফে বেল্লাল ওরফে রুবেল পিতা নুরুল আলম মোয়াজ্জেম, সাং-চংড়াছড়ি বৈদ্যটিলা, থানা দীঘিনালা, জেলা খাগড়াছড়ি। সে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সারা দেশে জেএমবি কর্তৃক সিরিজ বোমা হামলা মামলার যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রাপ্ত আসামী। তার নামে খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা থানায় একটি যাবজ্জীবন সাজার পরোয়ানা মূলতবী রয়েছে। ঘটনার পর সে আত্মগোপনে চলে যায় এবং ঢাকা, সাভার, নারায়নগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত এলাকায় একাধিক ছদ্মনাম ব্যবহার করে আত্মগোপন করে থাকে। সি বিভিন্ন সময় ভূয়া জন্মনিবন্ধন সনদ তৈরী করে বিভিন্ন জেলার বসবাস করে আসছে। সর্বশেষে ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে রুবেল নাম ব্যবহার করে পটুয়াখালী জেলার মহিপুর থানাধীন কুয়াকাটা এলাকায় রাজমিস্ত্রির কাজ নেয়। জঙ্গীদমনে বাংলাদেশ পুলিশের বিশেষায়িত ইউনিট ‘এন্টি টেরিরিজম ইউনিট’ এর একটি চৌকস দল দীর্ঘদিন যাবৎ তাকে নজরদারী করছিল। এন্টি টেররিজম ইউনিটের উক্ত দলটি বেল্লালকে অনুসরন করে পটুয়াখালী জেলায় এসে কয়েক দিন যাবৎ অবস্থান করছিল। অবশেষে দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রমের পর ১২ জানুয়ারী ২০২০ইং দিবাগত রাত আনুমানিক ২টায় তার অবস্থান সনাক্ত করে পটুয়াখালী জেলা পুলিশের সহায়তায় মহিপুর থানার আলীপুর বাজার হতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। বর্তমানে বেল্লালের সাংগঠনিক কার্যক্রম সম্পর্কে যাচাই বাছাই করার জন্য তাকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত আছে এবং তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা ব্যকস্থা গ্রহণের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।
 
এন্টি টেররিজম ইউনিটের  কর্মকর্তারা জানায়, উক্ত সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় ১৭.০৮.২০০৫ সালে মামলা দায়ের করা হয় এবং ২৩.৪.২০১৮ইং সালে ৯ জনের যাবজ্জীবন সাজা হয়। তাদের মধ্যে ৮জন জেল হাজতে রয়েছে। শুধু বেল্লাল আত্মগোপনে ছিল তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বোমা হামলা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ