Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

প্রথম কিস্তির টাকা দিলো রবি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

 হাইকোর্টের নির্দেশনা মেনে নিরীক্ষা দাবির প্রথম কিস্তির টাকা পরিশোধ করেছে বেসরকারি মোবাইল ফোন অপারেটর রবি আজিয়াটা। টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থার (বিটিআরসি) ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকা নিরীক্ষা দাবির মধ্যে হাইকোর্টের নির্দেশে ১৩৮ কোটি টাকার প্রথম কিস্তির ২৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা গতকাল মঙ্গলবার বিটিআরসিতে জমা দিয়েছে অপারেটরটি। কমিশনের সিনিয়র সহকারী পরিচালক মোঃ জাকির হোসেন খান জানান, হাইকোর্টের নির্দেশে নিরীক্ষা দাবির ১৩৮ কোটি টাকা পাঁচ কিস্তিতে পরিশোধ করতে হবে রবিকে। এর মধ্যে মঙ্গলবার রবি প্রথম কিস্তির ২৭ কোটি ৬০ লাখ টাকা বিটিআরসিতে জমা দিয়েছে। কিস্তি পরিশোধ করলেও রবি এক বিবৃতিতে বিটিআরসির নিরীক্ষা প্রতিবেদনকে ‘ভিত্তিহীন এবং অযৌক্তিক’ বলেছে। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে জমা দেওয়া অর্থ ফেরত পাওয়ার আশাও করছে প্রতিষ্ঠানটি।

রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম বিবৃতিতে বলেন, মূলত; সেবার ক্ষেত্রে গ্রাহকদের অসুবিধার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েই আদালত নির্দেশিত প্রথম কিস্তির অর্থ জমা দেওয়া হয়েছে। তবে অর্থ জমা দিলেও নিরীক্ষা প্রতিবেদনটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং অযৌক্তিক, সে বিষয়ে আমাদের অবস্থান এখনো দৃঢ় এবং স্পষ্ট। তাই যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে কিস্তির যে অর্থ আমরা জমা দিয়েছি তা যথাসময়ে ফেরত পাবো বলে আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। এছাড়া, আমাদের শেয়ারহোল্ডাররা স্বাধীনভাবে অন্যান্য বিকল্প আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করবেন ন্যায়বিচার পাওয়ার লক্ষ্যে। তবে এটি অনস্বীকার্য, যে প্রক্রিয়ায় পুরো বিষয়টি এখন পর্যন্ত এগিয়েছে তা আমাদের বিনিয়োগকারীদের আস্থায় বড় ধরনের ফাটল তৈরি করেছে বলে বিবৃতিতে বলা হয়। গত ৫ জানুয়ারি বিটিআরসির ৮৬৭ কোটি ২৩ লাখ টাকার নিরীক্ষা দাবির মধ্যে ১৩৮ কোটি টাকা কিস্তিতে পাঁচ মাসের মধ্যে পরিশোধের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রবি

১১ ডিসেম্বর, ২০২০
৮ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ