Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৪ মাঘ ১৪২৬, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

পুরান ঢাকায় ঘুড়ি উৎসব পালিত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

ঘুড়ি উৎসবে মেতেছে রাজধানীর পুরান ঢাকাবাসী। গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকেই বিভিন্ন বয়সী লোকেরা ভবনের ছাদ থেকে রঙ-বেরঙের ঘুড়ি উড়েয়ে উৎসব পালন করছে। প্রায় প্রতিটি ভবনের ছাদেই ছিল সাউন্ড সিস্টেমের ব্যবস্থা। গান আর আড্ডার সঙ্গে উড়েছে নানা রঙের হাজারও ঘুড়ি। ছাদে ছাদে জ্বলছে বাহারি রঙের আলো। তার সঙ্গে মেতেছে বিভিন্ন বয়সী মানুষ। পৌষের শেষ দিন প্রতি বছরই এমন উৎসবে মেতে ওঠে রাজধানীর পুরান ঢাকাবাসী। এই ঘুড়ি উৎসবকে ঐতিহ্যের বন্ধনে আবদ্ধ করে নিয়েছে আমোদপ্রেমী এই মানুষেরা।

এই উৎসবে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত রবার্ট আর্ল মিলার সস্ত্রীক উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রদূতের স্ত্রী লাটাই হাতে ঘুড়ি উড়িয়ে বেশ আনন্দ উপভোগ করেন।
সাকরাইন উৎসব হিসেবে পরিচিত এই জাঁকজমকপূর্ণ আয়োজন প্রসঙ্গে কথা হয় পুরান ঢাকার বাসিন্দা খান মুহাম্মদ মুরসালীনের সঙ্গে। তিনি বলেন, প্রতি বছর পৌষ মাসের শেষ দিন শত বছরের বেশি সময় ধরে ‘পৌষ-সংক্রান্তি’ পালিত হয়ে আসছে। বিশেষত এ উৎসবটি পুরান ঢাকায়ই ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালন করা হয়।

বিগত দুই বছর এ উৎসবে যোগ দিতে দক্ষিণখান এলাকা থেকে পুরান ঢাকায় আসেন বদিউল হক দেওয়ান। তিনি বলেন, অসাধারণ লাগে এই আয়োজন। দিনের বেলায় ঘুড়ি ওড়াতে ভালো লাগে। সন্ধ্যায় আতশবাজির ঝলকানিতে অসম্ভব রকমের ভালো লাগা কাজ করে। প্রথমবার ঘুড়ি উৎসব দেখতে উত্তরা থেকে এসেছেন বহ্নি। তিনি বলেন, সন্ধ্যায় আতশবাজির ঝলকানির সঙ্গে মুখ থেকে আগুন বের করার বিষয়টি সবচেয়ে আকর্ষণীয়। আমি ভিডিও দেখেছিলাম। এবার সশরীরে উপস্থিত হয়েছি সামনাসামনি দেখার জন্য।

পুরান ঢাকায় ৩২ বছর ধরে এই উৎসব দেখছেন খোদেজা খাতুন। মানিকগঞ্জে জন্ম হলেও পুরান ঢাকার পুত্রবধূ হিসেবে এসেছিলেন। সেই থেকে দেখছেন এই ঘুড়ি উৎসব। তিনি বলেন, আগে ঘুড়ি ওড়ানো বেশি হতো, আর সন্ধ্যায় আগুন খেলা। বড় আয়োজন করে বাড়িতে বাড়িতে পিঠা-পুলির উৎসব চলতো। এখনো হয়, তবে পরিবারে পরিবারে। ১০-১২ বছর ধরে আধুনিকায়নের নামে ডিজে যোগ হয়েছে। এর ফলে নিজের সংস্কৃতি ভুলতে বসেছে মানুষ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ