Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ০৮ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কে হচ্ছে খুলনার প্রতিপক্ষ?

রাজশাহী না চট্টগ্রাম

মো. জাহিদুল ইসলাম | প্রকাশের সময় : ১৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

সিলেট থান্ডার-চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের ম্যাচ দিয়ে শুরু হয়েছিল এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) আসর। সেই ম্যাচে সিলেটকে পাঁচ উইকেটে হারিয়েছিল মাহমুদউল্লাহ-ইমরুল কায়েসের দল। প্রথম ম্যাচের ধাক্কা পুরো আসরজুড়ে আর কাটাতে পারেনি মোসাদ্দেক হোসেন বাহিনী। অন্যদিকে প্রথম জয়ের পর নিজেদের ক্রমেই সুসংহত করেছে চট্টগ্রাম। একই ¯্রােতে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ঢাকা প্লাটুনকে ৯ উইকেটে উড়িয়ে দিয়েছিল রাজশাহী রয়্যালস। শোয়েব মালিকের দল তারপর অপ্রতিরোধ্য গতিতেই এগিয়েছে টুর্নামেন্টজুড়ে। আজ ফাইনালে খুলনা টাইগার্সের সঙ্গী হতে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে মুখোমুখি হবে দল দু’টি। চট্টগ্রাম শিবিরে আছে ক্রিস গেইলের মতো বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান। অন্যদিকে রাজশাহী দলে আছেন তারই স্বদেশী আরেক মারকুটে অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল। দুই ক্যারিবীয়র লড়াই দেখতে তাই মুখিয়ে ভক্ত-সমর্থকেরা।

আসরজুড়েই দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছে রাজশাহী। গ্রæপপর্বে ১২ ম্যাচে ৮ জয় ও ৪ হার নিয়ে পয়েন্ট টেবিলের দুইয়ে থেকে তারা শেষ করেছিল প্রথম রাউন্ড। সেরা দুইয়ে থাকার কারণে সরাসরি প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে খুলনার বিপক্ষে জিতে সুযোগ ছিল ফাইনাল খেলার। কিন্তু সেই আশা ¤øান করে দিয়েছেন মোহাম্মদ আমির। খুলনার ছুঁড়ে দেয়া ১৫৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা রাজশাহীর মেরুদন্ডই শুধু ভাঙেননি, গুড়িয়ে দিয়েছেন লেজও। এক ম্যাচে তুলে নিয়েছেন ছয় উইকেট। বিপিএলের ইতিহাসে যা এক ম্যাচে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারের নজির। ম্যাচ শেষে তার বোলিং ফিগারটা ছিল ৪-০-১৭-৬! ভাবা যায়? অথচ সম্ভব করে দেখিয়েছেন আমির। এরপরের সেরা দুই বোলিংও পাকিস্তানি বোলারদের দখলেই। মোহাম্মদ সামি ও ওয়াহাব রিয়াজ। দুজনেই ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। তবে আমির ছাড়িয়ে গেলেন দুই সতীর্থকেই। তবে চট্টগ্রামের বিপক্ষে নির্ভারই থাকতে পারে রাজশাহী। সেই দলেতো আমির নেই! তবে বাংলাদেশ জাতীয় দলের পেসার রুবেল হোসেন ও পুরো টুর্নামেনেট আলো ছড়ানো মেহেদী হাসান রানাকে সামলাতে হবে দলটিকে। সে কাজটিও নেহায়েত সহজ নয়। এই পেসার যুগলেই আধিপত্য বিস্তার করেছে চট্টগ্রাম।

অন্যদিকে আসরের শুরু থেকেই চট্টগ্রাম তার আধিপত্য ধরে রেখেছে। কয়েকবার শীর্ষ অবস্থানেও থেকেছে দলটি। তবে শেষপর্যন্ত নেট রান রেটের বিবেচনায় তিনে থেকেই শেষ করেছে দলটি। চারে থাকা মাশরাফি মুর্তজার দলের বিপক্ষে এলিমিনেটরে ৭ উইকেটের বড় জয় তুলে দাপটের সাথেই উঠে এসেছে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ারে। রুবেল হোসেন, নাসুম আহমেদ ও রায়ান ইমরিতের মাপা বোলিংয়ে কমরানেই আটকে গিয়েছিল ঢাকা। মেহেদী হাসান রান উইকেটশূণ্য থাকলেও করেছেন নিয়ন্ত্রিত বোলিং। পরে চট্টগ্রামের টপ-অর্ডারের ব্যাটেই জয়ের নোঙর তোলে মাহমুদউল্লার দল। তার ব্যাটেই জয়সূচক রান পেয়েছিল চট্টগ্রাম। তবে কাজটা সহজ হবে না রাজশাহীর বিপক্ষে। পাকিস্তানি দীর্ঘআকৃতির বাঁহাতি পেসার মোহাম্মদ ইরফান ও ক্যারিবীয পেসার আন্দ্রে রাসেলের সামনে পরীক্ষা দিতে হবে মাহমুদউল্লাহ-কায়েসদের। তবে আশার কথা হলো, রাজশাহী দলের দুই ওপেনার লিটন দাস ও আফিফ হোসেন আছেন ভালো ফর্মে। তারপর ইমরুল কায়েস, মাহমুদউল্লাহরাতো আছেনই। আর দ্রæত রান তোলার মেশিন হিসেবে আন্দ্রে রাসেলকে চেনে না ক্রিকেটভক্তদের মাঝে এমন ব্যক্তি মেলা ভার। আবু জায়েদ রাহী ও কামরুল ইসলাম রাব্বিও ঘুরিয়ে দিতে পারেন ম্যাচের মোড়।

তাই লড়াইয়ের আগেই আভাস পাওয়া যাচ্ছে উত্তেজনার। এরআগে গ্রæপপর্বেও দু’বার দেখা হয়েছিল দু’দলের। তবে সেই পরিসংখ্যান দেখলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই ধেকার অপেক্ষা আরও দীর্ঘ হয়। মুখোমুখি লড়াইয়ে প্রথম ম্যাচে রাজশাহীকে ৭ উইকেটে হারিয়েছিল চট্টগ্রাম। পরের ম্যাচে সেই চট্টগ্রামকেই দুমড়ে-মুচড়ে ছেড়েছিল রাজশাহী। ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে পরাজিত করেছিল চট্টগ্রামকে। কেউ কাউকে ছাড় দেয়ার নয়। দুই দলও সমানে সমান। তবে প্রকৃতির অমোঘ নিয়ম, কাউকেও বিদায় নিতেই হবে। আর যে দল জিতবে, তারা চলে যাবে ফাইনালে। প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে মুশফিকুর রহিমের খুলনাকে। সে ম্যাচ থেকেই বেরিয়ে আসবে এবারের চ্যাম্পিয়ন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিপিএল

১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন