Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ শাবান ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

রাজশাহীতে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় কুপিয়ে হত্যা

রাজশাহী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১১:৪৭ এএম

রাজশাহীর বাঘায় স্কুলছাত্রীকে উত্যক্তের জের ধরে নাজমুল হোসেন (২৫) নামের এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় আহত হয়েছেন তার ভাগ্নে তারিকুল ইসলাম ও ভগ্নীপতি শাহজাহান আলী মাস্টার। গতকাল রাতে উপজেলার সুলতানপুর গ্রামের ভোলার মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। নিহত নাজমুল সুলতানপুর গ্রামের আলহাজ্ব আজিজুর রহমানের ছেলে। আহত শাহজাহান মাস্টার ও তারিকুল ইসলামের বাড়িও উপজেলার সুলতানপুর গ্রামে।

বাঘা থানার ওসি বলেন, শাহজাহান মাস্টার ভোলার মোড়ে বসে ছিলেন। এ সময় পাশের উপজেলা নাটোরের লালপুরের মনিহারপুর গ্রামের ১০/১৫ জন যুবক ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে শাহাজান মাস্টারের উপর হামলা করে। এ খবর পেয়ে তার শ্যালক নাজমুল হোসেন ও ছেলে তারিকুল ইসলাম সেখানে যায়। এ সময় তাদেও তিনজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে চলে যায়। স্থানীয় লোকজন তাদেও উদ্ধার করে বাঘা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক নাজমুলকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়াও শাহজাহান মাস্টারকে ভর্তি করা হয়েছে লালপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

ওসি জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানোর হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে লালপুর থানা পুলিশকে অবগত করা হয়েছে। খুনিদের ধরতে দুই থানার পুলিশ যৌথ অভিযান চালাবে বলে জানান তিনি।

চিকিৎসক জানান, হাসপাতালের আসার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে। তার শরীরে একাধিক ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরনের কারনে তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করছেন।

আহত তারিকুল ইসলাম জানান, তার বোনকে বিভিন্ন সময়ে উত্যক্ত করতো লালপুরের মনিপুর গ্রামের আরজেদ আলীর ছেলে সুমন। মঙ্গলবার দুপুরে বিষয়টি নিয়ে সুমনের বাবার কাছে অভিযোগ করে তার বাবা (শাহজাহান)। এর জের ধরে সন্ধ্যায় সুমন দলবল নিয়ে গিয়ে তার বাবার উপর হামলা চালানোর চেষ্টা করে। খবর পেয়ে দ্রুত সেখানে গেলে তারা আমার মামা নাজমুলকে কুপিয়ে হত্যা করে। এ সময় বাধা দিতে গেলে তারা আমাকে ও আমার বাবাকে কুপিয়ে জখম করে চলে যায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কুপিয়ে হত্যা


আরও
আরও পড়ুন