Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

জিজ্ঞাসার জবাব

প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০১৬, ১২:০০ এএম

 ১। মোহাম্মদ ফাতহুল বারী ফাইয়্যাজ, রাজামেহার, কুমিল্লা
জিজ্ঞাসা : ভয়ভীতি ও বিপদে ধৈর্য ধারণের দোয়া সম্পর্কে কিছু বলুন?
জবাব : ভয়ভীতির সময়ের দোয়া : হয় তৃতীয় হিজরির শাওয়াল মাসের পনের তারিখ উহুদ যুদ্ধ সংঘটিত। যুদ্ধ থেকে ফেরার পর মুশরিকগণ একে অপরকে ভর্ৎসনা দিতে থাকে যে, তোমরা মুহাম্মদকে হত্যা করতে পারনি। তোমরা তাদের শক্তি-সামর্থ্য ধ্বংস করেছ, তাদেরকে হত্যা ও আহত করেছ, কিন্তু তাদেরকে সমূলে উৎপাটিত করতে পারনি। অতএব পুনরায় মদিনায় আক্রমণ করতে হবে।
হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ওহির মাধ্যমে এ কথা জানতে পেরে পরদিন ষোলই শাওয়াল রবিবার সকালে হুকুম দেন, গতকাল যারা উহুদ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিল, তাদেরকে পুনরায় প্রস্তুত হয়ে শত্রু বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে। অথচ তখন সকলেই ছিলেন ক্লান্ত, আহত ও অবসন্ন। তৎসত্ত্বেও সকলেই বিপুল উদ্দীপনাসহ প্রস্তুত হয়ে শত্রু বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে হবে। অথচ তখন সকলেই ছিলেন ক্লান্ত, আহত ও অবসন্ন। তৎসত্ত্বেও সকলেই বিপুল উদ্দীপনাসহ প্রস্তুত হয়ে শত্রুবাহিনীকে পশ্চাদ্ধাবনের উদ্দেশ্যে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সঙ্গে রওনা হন। তারা মদিনা থেকে আট মাইল দক্ষিণে অবস্থিত ‘হামরাউল আসাদ’ নামক জায়গায় অবস্থান করেন। এ সংবাদ জানতে পেরে মুশরিকদের যুদ্ধের খায়েশ হাওয়ায় মিলিয়ে যায়। তখন তারা মুসলিমদেরকে ভীতি প্রদর্শনের এক কূটকৌশল অবলম্বন করে। তাদের কাফেলা মদিনায় আসছিল। এ কাফেলার লোকদেরকে ওরা বলল, তোমরা মুসলিমদেরকে সমূলে উৎখাত করার জন্য প্রস্তুত হয়েছ। অচিরেই তাদের ওপর হামলা চালাব। তারা এ সংবাদ পৌঁছানোমাত্র সকল মুসলমান অত্যন্ত দৃঢ়তার সঙ্গে একমাত্র আল্লাহপাকের প্রতি নির্ভরতা প্রকাশ করে বলেনÑ ‘আল্লাহই আমাদের জন্য যথেষ্ট এবং তিনিই উত্তম কর্মবিধায়ক।’-আলে ইমরান ১৭৩। হাদিস শরিফে এ দোয়াটির অনেক ফজিলত বর্ণিত হয়েছে। হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) বলেন, হযরত ইবরাহীম (আ.)-কে যখন আগুনে নিক্ষেপ করা হয়, তখন তাঁর সর্বশেষ কথা ছিল ‘হাসবুনাল্লাহ ওয়ানি’মাল ওয়াকীল।’-সহিহ বুখারি হযরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের চিন্তা বৃদ্ধি পেলে তিনি মাথায় ও দাড়িতে হাত বুলাতেন। অতঃপর লম্বা নিঃশ্বাস নিতেন “হাসবিয়াল্লাহু ওয়া নি’মাল ওয়াকিলু” এবং পাঠ করতেন। হযরত শাদ্দাদ ইবনে আউস (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেনÑ ‘হাসবিয়াল্লাহু ওয়া নি’মাল ওয়াকিলু’ দোয়াটি সকল ভীতিকর বিষয় থেকে নিরাপত্তা দেয়। বিপদ-আপদে ধৈর্যধারণের দোয়া : আল্লাহতায়ালা কোরআনে পাকে ইরশাদ করেছেন, আমি মুমিনদেরকে ভয়, ক্ষুধা এবং ধনসম্পদ, জীবন ও ফল-ফসলের ক্ষয়ক্ষতি দ্বারা পরীক্ষা করব। এরূপ কঠিন পরীক্ষার সময়ও যারা ধৈর্যধারণ করবে, তাদের জন্য শুভ-সংবাদ। তাদের প্রতি তাদের প্রতিপালকের পক্ষ থেকে অশেষ দয়া বর্ষিত হয় এবং এরাই সৎপথে পরিচালিত। ধৈর্যশীল তারাই যাদের ওপর বিপদ অপতিত হলে বলে, ‘ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন’Ñ ‘আমরা সকলে তো আল্লাহরই এবং নিশ্চিতভাবে তার দিকেই আমরা প্রত্যাবর্তনকারী।’- বাকারা ১৫৬
বিপদে আপদে এই দোয়া পাঠ করার অনেক ফজিলত রয়েছে। উম্মুল মুমিনীন হযরত উম্মে সালামা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, যে কোনো বান্দা বিপদগ্রস্ত হয়ে যদি পাঠ করে ‘ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন’ তবে আল্লাহতায়ালা তাকে উত্তমভাবে পুরস্কৃত করেন এবং সেই মুসিবতের পরিবর্তে উত্তম বদলা দান করেন। উম্মুল মুমিনীন বলেন, আমার স্বামী আবু সালাম মারা যাওয়ার পর আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কথামতো আমল করেছি। পরবর্তীতে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের সঙ্গে বিবাহের মাধ্যমে আল্লাহপাক আমাকে উত্তম বদলা দান করেন। হযরত আবু মুসা (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, আল্লাহতায়ালা বলেন, হে মালাকুল মউত, তুমি কি আমার বান্দার সন্তানের জান কবজ করেছে? তুমি কি তার নয়নের মণি ও কলিজার টুকরাকে কবজ করেছ? ফেরেশতা বললেন হ্যাঁ। আল্লাহপাক বলেন, আমার বান্দা কী বলেছে? মালাকুল মউত বলেন, সে আপনার প্রশংসা করেছে এবং “ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন” পাঠ করেছে। আল্লাহতায়ালা তখন বলেন, জান্নাতে তার জন্য একটি গৃহ নির্মাণ কর এবং সে গৃহের নাম রাখ বাইতুল  হামদ। জামে তিরমিজি; মুসনাদে আহমদ হোসাইন ইবনে আলী (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন যে, কোনো মুসলিম নর-নারী বিপদগ্রস্ত হওয়ার অনেক দিন পর বিপদের কথা স্মরণ করে যদি ‘ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন” পড়ে তবে আল্লাহপাক তাকে বিপদের দিন পাঠ করার সওয়াব দান করবেন। 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জিজ্ঞাসার জবাব

১৭ নভেম্বর, ২০১৬
১০ নভেম্বর, ২০১৬
৩ নভেম্বর, ২০১৬
২৭ অক্টোবর, ২০১৬
২০ অক্টোবর, ২০১৬
৬ অক্টোবর, ২০১৬
২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
২৫ আগস্ট, ২০১৬
১৮ আগস্ট, ২০১৬
১১ আগস্ট, ২০১৬
৪ আগস্ট, ২০১৬
২৮ জুলাই, ২০১৬

আরও
আরও পড়ুন