Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬, ০৪ রজব ১৪৪১ হিজরী

অভিশংসন করার পথ পরিষ্কার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দুটি ‘আর্টিকেল’ আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেসের উচ্চকক্ষ সিনেটের কাছে বুধবার হস্তান্তর করেছে নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদ। এর ফলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিশংসন করার পথ পরিষ্কার হলো। এ খবর দিয়ে অনলাইন আল জাজিরা বলছে, গত ১৮ই ডিসেম্বর প্রতিনিধি পরিষদ ট্রাম্পকে অভিশংসিত করে। কিন্তু তার ফলে তাকে ক্ষমতা ছাড়তে হয়নি। তাকে ক্ষমতা থেকে সরাতে হলে সিনেটে অভিশংসিত করতে হবে। এ জন্য ওই দুটি আর্টিকেল সিনেটে পাঠানো হয়েছে। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে যে দুটি আর্টিকেল সিনেটে পাঠানো হয়েছে তার একটি হলো- ক্ষমতার অপব্যবহার। অন্যটি হলো কংগ্রেসে বিচার ব্যবস্থায় বাধা সৃষ্টি। উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ও এ বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেট দল থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির তদন্ত করতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কিকে চাপ প্রয়োগ করেছিলেন ট্রাম্প এমন অভিযোগ আছে। এর মাধ্যমে তিনি ইউক্রেনকে দেয়া যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক সহায়তা বন্ধ করে দেয়াকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছিলেন। ফলে এ জন্য তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ আনা হয়েছে। এ ছাড়া অভিশংসনের তদন্তে অংশগ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানানোয় তার বিরুদ্ধে কংগ্রেসে বাধা সৃষ্টির অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে সব অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন ট্রাম্প। এখন তার ভাগ্য কোনদিকে যাবে তা নির্ধারণ করবে সিনেট। তবে সিনেটে তিনি অভিশংসিত হবেন না এটা প্রায় নিশ্চিত করেই বলা যায়। কারণ, সিনেটের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে তার দল রিপাবলিকানদের হাতে। তারা তাকে অভিশংসিত করবে বলে মনে করেন না বিশ্লেষকরা। তবু আনুষ্ঠানিকতা চালাতেই হবে। সিনেট সংখ্যাগরিষ্ঠ নেতা মিশ ম্যাকলেন বলেছেন, আগামী মঙ্গলবার নাগাদ এই প্রক্রিয়া সিনেটে শুরু হতে পারে। সপ্তাহের ৬ দিন সোম থেকে শনিবার পর্যন্ত এ নিয়ে বিচারিক কার্যক্রম চলবে। আর তা শুরু হবে স্থানীয় সময় দুপুর একটায়। আল জাজিরা।

 



 

Show all comments
  • Abubakkar Siddik Siddik ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৩ এএম says : 0
    আমি ট্রাম্পের একজন কট্রর সমালোচক।কিন্তু জো বাইডেনের ছেলে হান্টার বাইডেন ইউক্রেনে যে দুর্নীতি করেছেন ট্রাম্প সেই,দুর্নীতির তদন্তের আহব্বান জানিয়েছেন,ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের কাছে। এখানে ট্রাম্প কোন অন্যেয় করেননি।বিশ্বের সব নেতারই উচিৎ দুর্নীতি বন্ধ করা।তাতে বিশ্বে দারিদ্রতা হ্রাস পাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Rahman Syed Atiur ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৩ এএম says : 1
    অচল মাল আমেরিকায়ও চলে.... টার্ম তো প্রায় শেষ... দেখি আগামীতে আমেরিকানরা কী করে.
    Total Reply(0) Reply
  • Mujibur Rahman ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৪ এএম says : 0
    ট্রাম্প যদি সত্যিই ইম্পিচমেন্টের মুখে পড়ে বুঝতে হবে বিশ্বের কোথাও একটা যুদ্ধ বাঁধবে!
    Total Reply(0) Reply
  • বাবুল কান্তি দে ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৫ এএম says : 1
    ট্রাম্প চাচার মত ভদ্র,নম্র,শান্তশিষ্ট,বিনয়ী,বিশ্বাসী,প্রনয়ী কুলাঙ্গার একটাও হয়না। আপনারা ওনাকে এভাবে অপমান কেন করছেন? প্রয়োজনে ....করেন তারপরও অপমান করবেন না প্লীজ।
    Total Reply(0) Reply
  • Imtiaz Khan ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৫ এএম says : 1
    ওতো একটা পাগল। ওরে যারা ভোট দিছে তাদের ইম্পিচমেন্ট হওয়া দরকার।
    Total Reply(0) Reply
  • Srabon Joardar ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৫ এএম says : 1
    তাহলে কি গলাধাক্কা দিয়ে হোয়াইট হাউজ থেকে বের করে দিবে?
    Total Reply(0) Reply
  • Joynal Hussain ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৫ এএম says : 1
    বাংলাদেশে যদি এমন গনতন্ত্রের চর্চা হত তাহলে আজ সত্যিকারের ডিজিটাল দেশ হতো, আফসোস
    Total Reply(0) Reply
  • Md Nurul Amin ১৭ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৬ এএম says : 1
    যদি ইমপ্রিসমেন্টটা সফলভাবে শেষ হয়,তবে পৃথিবী হতে বিদায় হবে বড় হায়েনার।
    Total Reply(0) Reply
  • সলিল কুমার দত্ত ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:২০ পিএম says : 0
    ট্রাম্প কি করলো বা করলো না সেটা সম্পূর্ন আমেরিকার বিষয়, এটা নিয়ে আমাদের মাথা ব্যাথার কেন কারন দেখিনা। হাতি মরলেও লাখ টাকা, না মরলেও লাখ টাকা।
    Total Reply(0) Reply
  • সলিল কুমার দতৃত ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:২০ পিএম says : 0
    ট্রাম্প কি করলো বা করলো না সেটা সম্পূর্ন আমেরিকার বিষয়, এটা নিয়ে আমাদের মাথা ব্যাথার কেন কারন দেখিনা। হাতি মরলেও লাখ টাকা, না মরলেও লাখ টাকা।
    Total Reply(0) Reply
  • সলিল কুমার দতৃত ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:২০ পিএম says : 0
    ট্রাম্প কি করলো বা করলো না সেটা সম্পূর্ন আমেরিকার বিষয়, এটা নিয়ে আমাদের মাথা ব্যাথার কেন কারন দেখিনা। হাতি মরলেও লাখ টাকা, না মরলেও লাখ টাকা।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অভিশংসন

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ