Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৩ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

কাশ্মীরিদের প্রতি সংহতি পুনর্ব্যক্ত

কাশ্মীরে গণভোট দিতে প্রস্তুত পাকিস্তান : ইমরান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

পাকিস্তানের বেসামরিক ও সামরিক নেতারা বৃহস্পতিবার আবারো ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের জনগণের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেছেন। তাদের আত্মনিয়ন্ত্রণ অধিকার আদায় না হওয়া পর্যন্ত কাশ্মীরিদের প্রতি সুদৃঢ় রাজনৈতিক, ক‚টনৈতিক ও নৈতিক সমর্থন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন পাকিস্তানি নেতারা। ইসলামাবাদে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সভাপতিত্বে এক উচ্চপর্যায়ের বৈঠকে এই ঘোষণা দেয়া হয়। বৈঠকে সেনাবাহিনী প্রধান কমর জাভেদ বাজওয়া, এসএপিএম ড. মুঈদ ইউসুফ, আইএসআই ডিজি লে. জেনারেল ফাইজ হামিদ, পররাষ্ট্র সচিব সোহাইল মেহমুদ ও অন্যান্য বেসামরিক ও সামরিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন। তারা ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেন এবং ৫ জানুয়ারি যথাযোগ্য মর্যাদায় কাশ্মীর সংহতি দিবস পালন করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেন। জাতিসংঘ নিরাপত্তা কাউন্সিলে কাশ্মীর নিয়ে আলোচনাকেস্বাগত জানিয়ে একে আন্তর্জাতিক স¤প্রদায়ের পরিস্থিতির ভয়াবহতা অনুধাবনের স্বীকৃতি হিসেবে উল্লেখ করা হয়। বৈঠকে অংশগ্রহণকারীরা অধিকৃত ভ‚খÐের ৮০ লাখ মানুষকে ১৬৫ দিনের বেশি অবরুদ্ধ করে রাখার জন্য ভারতের নিন্দা করা হয়। কাশ্মীরি জনগণের মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য সেখানে ভারতীয় দখলদার বাহিনীর ৯ লাখ সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। গত বছর ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে ভারতের বিজেপি নেতৃত্বাধিন সরকার। সাউথ এশিয়ান মনিটর এ খবর জানায়। অপর দিকে ডয়েচে ভেলের খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বাসিন্দারা কি পাকিস্তানের সঙ্গে থাকতে চান, নাকি স্বাধীনতা চান, সে ব্যাপারে তাদেরকেই সিদ্ধান্ত নিতে দেওয়া উচিত। বুধবার একই প্রশ্নে কাশ্মীরে গণভোট দিতেও পাকিস্তান প্রস্তুত বলে জার্মানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলেকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন ইমরান খান। উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের মধ্য দিয়ে কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসনের অধিকার ও বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয় বিজেপি নেতৃত্বাধীন দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। তারপর সেখানে বিভিন্ন ধরনের বিধিনিষেধ আরোপ করে কর্তৃপক্ষ। ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের প্রসঙ্গে ইমরান খান বলেন, ‘ভারতে এখন আরএসএস’র (রাষ্ট্রীয় স্বেচ্ছাসেবক সংঘ) হিন্দুত্ববাদী ভাবাদর্শের জয়জয়কার। আরএসএস জার্মানির নাৎসিদের দ্বারা অনুপ্রাণিত। আর নাৎসিদের জন্ম হয়েছিল সংখ্যালঘুদের প্রতি ঘৃণা থেকে। তেমনিভাবে আরএসএস মতাদর্শও মুসলমানসহ অন্যান্য সংখ্যালঘুদের প্রতি ঘৃণার ওপর দাঁড়িয়ে আছে।’ পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এটা ভারত ও তার প্রতিবেশী দেশগুলোর জন্য একটি ট্র্যাজেডি যে, ভারত এখন আরএসএস দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।’ পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে মানবাধিকার পরিস্থিতি ভালো না থাকার অভিযোগ তোলা হলে ইমরান খান বিশ্বের যে কোনও দেশের নাগরিককে প্রথমে সেখানে যাওয়ার আহŸান জানান। এরপর ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে গিয়ে দুই অঞ্চলের তুলনা করে নিজেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। ইমরান খান বলেন, হংকংয়ে বিক্ষোভের চেয়ে কাশ্মীর ট্র্যাজেডি অনেক বড় ঘটনা হলেও বিশ্ব সংবাদমাধ্যমে তা বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে না। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘দুঃখজনক হলেও সত্য যে, পশ্চিমাদের কাছে বাণিজ্যিক স্বার্থ বেশি গুরুত্বপ‚র্ণ। ভারত একটি বড় বাজার। তাই কাশ্মীরের প্রায় ৮০ লাখ মানুষ ও ভারতে সংখ্যালঘুদের প্রতি কী ঘটছে, তা নিয়ে পশ্চিমাদের বেশি প্রতিক্রিয়াশীল হতে দেখা যায় না।’ এসএএম, ডয়েচে ভেলে।

 



 

Show all comments
  • H S M Fayaz ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৯ এএম says : 0
    যদি ভারত একতরফা হিন্দুত্ববাদী সিদ্ধান্তে কাশ্মীর দখল করে নিতে পারে, কাল তারা বাংলাদেশ গ্রাস করে নিতে পারবে আঙ্গুলে তুড়ি মেরে। যারা দাবি করে ‘কাশ্মীর ভারতের আভ্যন্তরীণ বিষয়’ তারা ভারতীয় আগ্রাসনের আগাম বাহিনী বা দখলদার হয়েই একথা বলে। কেউ চোখ রাঙিয়ে কথা বললেও বাংলাদেশের জনগণকে হিন্দুত্ববাদী ভারতের আগ্রাসী ভূমিকার বিরুদ্ধে কথা বলা উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • Hasan Kabir ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৯ এএম says : 0
    বর্তমানে চীন একটি শক্তিশালী রাষ্ট্র৷ চীন যদি কাশ্মীরকে চল্লিশ ভাগ সাপোর্টও দেয় তবেই কাশ্মীর স্বাধীন হবে৷ কারন, ব্যবসা সম্প্রসারণ করতে আগ্রহী চীন৷ লাভ চীনের হবে বেশি৷ চীন সাপোর্ট দিলে ভারত ও পাকিস্তানের কিছুই করার থাকবেনা৷৷
    Total Reply(0) Reply
  • Denis Alam ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৯ এএম says : 0
    পুরা কাশ্মীর নিয়ে একটা স্বাধীন দেশ হোক, যেখানে না থাকবে ভারত, পাকিস্তান বা গনচীনের কোন দাদাগিরি।
    Total Reply(0) Reply
  • Ridika Rahman Orpita ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৪০ এএম says : 0
    আমার আশা, কাশ্মীরের স্বাধীনতা বেশি দূরে নয়।ইনশাআল্লাহ তা নিকটেই।তবে বিজয়ের স্বাদ রক্ত দিয়েই আস্বাদন করতে হয় এবং কাশ্মীরীরাও তা জানে।
    Total Reply(0) Reply
  • Murshid Alam Hira ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৪০ এএম says : 0
    কাশ্মীরের সমস্যা কোনদিন হবেনা কারন ভারত বা পাকিস্তান কেউই কাশ্মীরকে স্বাধীন হতে দিবে না। যেভাবে চলছে সেভাবেই চলবে... দিন দিন অবস্থার অবনতি হবে!
    Total Reply(0) Reply
  • Rafiqul Islam ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৪১ এএম says : 0
    পশ্চিমাদের কাছে বাণিজ্যিক স্বার্থ বেশি গুরুত্বপূর্ণ৷ আসলেই এটাই সত্য
    Total Reply(0) Reply
  • MD Rana Masud ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৪২ এএম says : 0
    খুবই দুঃখের বিষয়, কিন্তু আমার একটা প্রশ্ন ইমরান খানের কাছে ,, তার বন্ধু দেশ চিন,যে উইঘুর মুসলিমকে আটক করে রাখছে এবং অমানবিক নির্যাতন করছে সে বিষয় নিয়ে কখনো কথা বলতে দেখলাম না,,, এর কারন কি,????
    Total Reply(0) Reply
  • Enamul Hoque ১৮ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৪২ এএম says : 0
    Right.... Good leader
    Total Reply(0) Reply
  • নূরুল্লাহ ২০ জানুয়ারি, ২০২০, ৮:৫০ এএম says : 0
    কাশ্মির স্বাধীন হবে আমি দিব্যি দেখছি। বিরাট একটা রদবদল সবখানে হয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • মুঃ শাফিউল আলম ২১ জানুয়ারি, ২০২০, ৮:০৭ এএম says : 0
    রাসুল সাঃ বলেন সারা পৃথিবীর মুসলমানগন একটি দেহের মত৷
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাশ্মীরি

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ