Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ০১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬, ০৬ শাবান ১৪৪১ হিজরী

ফতুল্লায় কুপিয়ে হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে : | প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় পাওনা ৫ হাজার টাকা চাওয়ার অপরাধে আব্দুর রহিম (৩৫) নামে এক ইলেকট্রিক মিস্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ফতুল্লার মাসদাইর গুদারাঘাট এলাকায়।
এ ঘটনায় শুক্রবার রাতেই মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ি থানার পাঁচগাঁও এলাকা থেকে ঘটনার মূলহোতা সাদ্দাম হোসেন আসিফকে (২৭) গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে আসিফকে সহযোগিতার অভিযোগে মাসদাইর গুদারাঘাট ও কাশিপুর এলাকার চরনরসিংপুর থেকে গ্রেফতার করা হয় আসিফের মা রাজিয়া (৫৫) ও খালা সুলতানা বেগমকে (৫০)। এদিকে গতকাল দুপুরে নিহত রহিমের মা রহিমা বেগম বাদী হয়ে আসিফকে প্রধান আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এছাড়াও নষ্ট ফারুকসহ দুইজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আর তিন চারজনকে আসামি করা হয়। নিহত আব্দুর রহিম শরীয়তপুরের জাজিরা থানার মাঝিকান্দির ইমান আলীর ছেলে। তারা স্বপরিবারে ফতুল্লার মাসদাইর গুদারাঘাট এলাকার ইলিয়াস সরদারের বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসাবে বসবাস করতো। রহিম ইলেক্ট্রিক মিস্ত্রির কাজ করতেন।
মামলার এজারহার সূত্রে জানা গেছে, রহিমের কিছুদিন আগে আসিফের বাড়িতে ইলেকট্রিকের কাজ বাবদ ৫ হাজার টাকা পাওনা ছিল। গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে রহিম গুদারাঘাট এলাকায় আসিফকে দেখে পাওনা টাকা চায়। টাকা চাওয়ার কারণে আসিফের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় রহিমের। একপর্যায়ে আসিফসহ আরো কয়েকজন মিলে রহিমকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে। এ সময় রহিম মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ৩শ’ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মো. আসলাম হোসেন জানান, পাওনা টাকা চাওয়ায় আসিফসহ কয়েকজন মিলে আব্দুর রহিমকে কুপিয়ে হত্যা করে। ঘটনায় নিহতের মা বাদী হয়ে মামলা করেছে। মামলার প্রধান আসামি আসিফসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওসি আরও বলেন, হত্যার পরপরই রক্তমাখা ছুরি ধুয়ে দিয়ে আসিফের মা রাজিয়া তাকে সাহায্য করে আর খালা তাকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করেছে। মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালানো হচ্ছে। দ্রæত সময়ের মধ্যে অন্যদেরও গ্রেফতার করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কুপিয়ে হত্যা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ