Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ইভিএম নয়, স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে ভোট গ্রহণের দাবি বিএনপির

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:৫৯ পিএম

সিটি নির্বাচনে ইভিএম নয়, স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে ভোটগ্রহণের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, ইভিএম নতুন একটা কৌশল। আমরা পরিস্কার করে বলেছি, এই ইভিএম ছুঁড়ে ফেলে দিতে হবে। এই ইভিএম দিয়ে নির্বাচন হবে না। স্বচ্ছ ব্যালট বাক্সে নির্বাচন করতে হবে এবং সেই দাবি আমাদের আদায় করে নিতে হবে। আমরা যদি ঐক্যবদ্ধ হই, আমরা যদি সমস্ত মানুষকে সংগঠিত করতে পারি তাহলে এই নির্বাচনে (সিটি করপোরেশন) অবশ্যই আমরা তাদেরকে পরাজিত করে বিজয় ছিনিয়ে আনতে পারবো।

রোববার (১৯ জানুয়ারি) ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে বিএনপির উদ্যোগে দলের প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৮৪তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

দলের নেতাকর্মীদের সংগঠিত হওয়ার আহবান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আসুন আমরা আগামী দিনগুলোতে নিজকে আরো সংঘবদ্ধ করি, প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আদর্শে উদ্দীপ্ত হয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার অনুপ্রেরণায় আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যাই। পরাজিত করি এই দানবকে। এই দানবকে পরাজিত হবে দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা, দেশনেত্রীর বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি এবং জনগণের মুক্তির জন্য আমরা সেই আন্দোলনের দিকে এগিয়ে যাই।

আওয়ামী লীগের গণতন্ত্র বিরোধী কর্মকা- তুলে ধরে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সবসময়ই গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছে। ১৯৭২-১৯৭৫ সালে তারা গণতন্ত্র বিরোধী কাজ করেছে, একদলীয় শাসন ব্যবস্থা বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছিলো। আজকে আবার ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে প্রত্যেকটি গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে ভেঙে দিয়ে, রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠানগুলোকে ভেঙে দিয়ে তারা একদলীয় শাসনব্যবস্থা ভিন্ন আঙ্গিকে প্রতিষ্ঠা করেছে। আজকে প্রশাসনকে দলীয়করণ করেছে, সংবাদপত্রের গলাটিপে ধরেছে এবং বিচার বিভাগকে তারা করায়াত্ব করে নিয়েছে। এখান থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের যে আদর্শ, সেই আদর্শ বাস্তবায়নে করতে হলে বাংলাদেশের জাতীয়তাবাদের যে দর্শন, সেই দর্শনকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে, গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করতে হলে আমাদের আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই যে নব্য স্বৈরাচার, নব্য একনায়কতন্ত্রের যে আওয়ামী লীগ তাকে পরাজিত করে আমাদের গণতান্ত্রিক শাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

শহীদ জিয়ার কর্মময় জীবন তুলে ধরে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান একাই যথেষ্ট। তার যে দর্শন, তার যে আদর্শ তাকে যদি আমরা অনুসরণ করি তাহলে আমাদের আর অন্য কোনো দিকে তাঁকাতে হবে না। স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব-গণতন্ত্র-উন্নয়ন সবগুলো জিনিসকে নিয়ে তিনি যে আমাদের সামনে যে দর্শন দিয়ে গেছেন, সেই দর্শককে প্রতিষ্ঠা আমাদেরকে করতে হবে। আজকে বিএনপির দায়িত্ব অনেক, আমাদের যুবকদের দায়িত্ব অনেক, আমাদের তরুনদের দায়িত্ব অনেক বেশি পড়ে গেছে।এই ভয়াবহ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যাকে আমরা গণতন্ত্রের মাথা বলছি, তাকে যদি মুক্ত করতে হয়, গণতন্ত্রকে যদি মুক্ত করতে হয়, আমাদের তরুন নেতা তারেক রহমানকে যদি দেশে ফিরিয়ে আনতে হয় তাহলে দূর্বার গণআন্দোলন সৃষ্টি করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই।

মহাসচিবের সভাপতিত্বে এবং শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী ও আমিরুল ইসলাম খান আলিমের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন স্থায়ী কমিটির সদস্য জমিরউদ্দিন সরকার, আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান এজেডএম জাহিদ হোসেন, কেন্দ্রীয় নেতা শিরিন সুলতানা, প্রফেসর মাহবুবউল্লাহ, যুবদলের সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মহিলা দলের জেরিন খান, স্বেচ্ছাসেবক দলের মোস্তাফিজুর রহমান, ছাত্রদলের ইকবাল হোসেন শ্যামল, উলামা দলের শাহ নেছারুল হক, মৎস্যজীবী দলের আবদুর রহীম প্রমূখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ