Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ আশ্বিন ১৪২৭, ০১ সফর ১৪৪২ হিজরী

আজিমপুর মেটারনিটি ক্লিনিকে ভুল অপারেশন

গর্ভবতী নারীর জরায়ু কেটে ফেলার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

রাজধানীর লালবাগ থানাধীন আজিমপুর মেটারনিটি ক্লিনিকে আনিকা বেগম (২৪) নামের এক গর্ববতি নারীকে অপারেশনের সময় ভূলবশত জরায়ু কেটে ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সদের সাথে রোগীর স্বজনদের হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে।
আনিকার স্বামী রমজান আলী জনি জানান, গত রবিবার ৮ টার দিকে হাজারীবাগে বাড্ডানগর লেনস্থ ৪৯/২ নম্বর বাসা থেকে ব্যথাযুক্ত অবস্থায় আনিকাকে মেটারনিটিতে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে ভর্তি করতে বলেন। ভর্তি পর রাত সাড়ে ৯ টার দিকে তাকে সিজার করার জন্য অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়।

পরে রাত সাড়ে ১০টায় ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। তার কিছুক্ষণ পর ডাক্তার নাহিদা বেগম ও নার্স কোহিনুর আক্তার আনিকার অতিরিক্ত রক্তকরনের বিষয়টি জানান। তার জরায়ু কাটা না হলে রক্ষকরন বন্ধ হবে না বলেও জানান তারা।
এ সময় রমজান আলী জনি রোগীকে বাঁচানোর জন্য আকুতি জানান। এক পর্যায়ে রমজান আলীকে না বলে রোগীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। এ সময় চিকিৎসকদের সাথে রমজান আলী ও তার স্বজনরা কথা কাটাকাটি করেন এবং এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে।

পরে রাত সাড়ে ১২টার দিকে রোগীকে নিয়ে ঢামেকের গাইনী বিভাগের ২১২ নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। ঢামেকে ২ নং ইউনিটের ডাক্তার নুর সাহিদা বেগম জানান, রোগীর অপারেশনের সময় ভূলবশত জরায়ু কেটে ফেলা হয়েছে। পরে রক্তের চাপ বন্ধ করার জন্য রোগীর তল পেটে গজ ব্যান্ডেস ভেতরে রেখে সিলাই করে দেওয়া হয়। তবে আবার রোগীর অপারেশন করতে হবে। তারপর রোগীর কন্ডিশন বুঝা যাবে।
জনি আরো জানায়, রোগীর উপর নির্ভর করে ওই ডাক্তার ও নার্সদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হবে।

অভিযোগের ব্যাপারে হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে অভিযুক্ত নার্স কোহিনুর আক্তারের সাথে যোগাযোগ করা বলে তিনি ইনকিলাবকে বলেন, ‘আমি এ ব্যাপারে কিছু জানি না। অপারেশনের সময় আমি ছিলাম না।’



 

Show all comments
  • বিবেক ২১ জানুয়ারি, ২০২০, ৭:০১ এএম says : 0
    যুগ যুগ ধরে কোটি কোটি মা সিজার ছাড়াই সন্তান প্রসব করে আসছিলো...... কিন্তু এখন সিজার ছাড়া সন্তান প্রসব চোখেই পরে না । খুব জানতে ইচ্ছে হয় এমনটি কেন হলো !!!!!!!!!!!
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মেটারনিটি ক্লিনিক
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ