Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৫ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

আজাদি বললেই দেশদ্রোহী, কড়া শাস্তির হুমকি যোগীর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ৪:০৩ পিএম

নাগরিকত্ব আইনের বিরোধী আন্দোলনে ভারত জুড়ে উঠেছে আজাদির স্লোগান। এবার সেই আজাদি স্লোগানকে দেশদ্রোহিতা বলে দাবি করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তার হুমকি, যারা আজাদির স্লোগান দিচ্ছে তাদের দেশদ্রোহী বলে গণ্য করা হবে এবং সেইমতো শাস্তি দেওয়া হবে।

বুধবার কানপুরে জনসভা করেন যোগী। তার উদ্দেশ্য ছিল, সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন সম্পর্কে মানুষকে বুঝিয়ে বলা। সেখানে তিনি বলেন, ‘যদি কেউ প্রতিবাদের নামে আজাদির স্লোগান তোলে তাকে দেশদ্রোহী বলে ধরে নেয়া হবে। সরকার তার বিরুদ্ধে সেইমতো ব্যবস্থা নেবে। আজাদির স্লোগান মেনে নেয়া হবে না। কেউ ভারতের মাটিতে বসে ভারতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করবে, এমনটা কিছুতেই মেনে নেয়া হবে না।’

সম্প্রতি লখনৌয়ের বিখ্যাত ক্লক টাওয়ারের নিচে ধর্মভিত্তিক এই আইন বাতিলের দাবিতে লাখ লাখ মানুষ অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন। ওই বিক্ষোভে আন্দোলনকারীরা ‘আজাদি’ ‘আজাদি’ বলে স্লোগান দেন।

যোগী উত্তরপ্রদেশে নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিয়েছেন। গত সপ্তাহেই লখনউয়ের ঘড়ির মোড়ে অবস্থানকারীদের বিরুদ্ধে দাঙ্গাহাঙ্গামা ও বে আইনি জমায়েতের অভিযোগ আনা হয়েছে। পুলিশ তিনটি ফৌজদারি মামলা দায়ের করেছে। অভিযুক্তদের মধ্যে আছেন বিশিষ্ট উর্দু কবি মুনাওয়ার রানা, তার দুই মেয়ে সুমাইয়া রানা ও ফৌজিয়া রানা। পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা আন্দোলনকারীদের কম্বল ও খাবার কেড়ে নিয়ে গিয়েছে। লখনউ পুলিশ অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, নির্দিষ্ট বিধি মেনেই কম্বল বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

গত মঙ্গলবার সেলফোনে তোলা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, এটাওয়ায় মহিলা বিক্ষোভকারীদের তাড়া করছে পুলিশ। কয়েকজনকে লাঠিপেটাও করা হচ্ছে। পুলিশ দোকানে ঢুকে পড়ছে। দোকান বন্ধ করতে বাধ্য করছে। যোগী বলেছেন, ‘লজ্জার বিষয় হল, কংগ্রেস, সমাজবাদী পার্টি এবং বামপন্থীরা রাজনীতির নামে কেবল মহিলাদের সামনে ঠেলে দিচ্ছে। এই মহিলারা জানেই না সিএএ-র মানে কী।’ সূত্র: দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ