Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ০১ রজব ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

ঠাকুরগাঁওয়ে শিক্ষকদের হয়রাণির প্রতিবাদে প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে ঘেরাও

ঠাকুরগাঁও জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০২০, ৬:৪৪ পিএম

ঠাকুরগাঁওয়ে নব্য-জাতীয়করণকৃত শিক্ষকদের কাছে এক সপ্তাহের মধ্যে পরপর দুটি নোটিশ দিয়ে ১৫ প্রকারের তথ্য ও কাগজ চেয়ে হয়রানি করায় উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে ঘেরাও করেছে বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতি ঠাকুরগাঁও জেলা শাখা।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার নব্য-জাতীয়করণকৃত ২০৭টি বিদ্যালয়ের ৮ শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষিকা শিক্ষা অফিসারকে ঘন্টাব্যাপী ঘেরাও করে রাখেন।
জানা যায়, ২০১৩ সালের ৯ জানুয়ারি সদর উপজেলার ২০৭টি রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করা হয়। ঐসময় প্রতিটি বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়োগ যোগদান সহ অন্যান্য তথ্যাদি দাখিল করা হলেও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা গত ১৫ জানুয়ারি এক নোটিশে নব্য জাতীয়করণকৃত বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়োগ যোগদান ও শিক্ষার সনদপত্র চায়। যথারিতি শিক্ষকরা তা দাখিল করেন।
এদিকে গত ২১ জানুয়ারি ২য় দফা নোটিশে সকল বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের কাছে “বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির প্রথম রেজুলেশন,নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির কপি,লিখিত-মৌখিক পরীক্ষার চূড়ান্ত রেজুলেশন,সর্বশেষ এমপি কপি, উপজেলা শিক্ষা কমিটির অনুমোদন কপি সহ ১১ প্রকারের তথ্য ও কাগজ চেয়ে ২৬ জানুয়ারির মধ্যে দাখিল করতে বলা হয়।
এতে শিক্ষকরা ক্ষুদ্ধ হয়ে পড়েন এবং বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে ঘেরাও করে বর্ণিত কাগজপত্র দাখিলের কারন জানতে চায়। জবাবে দুদকের অনুসন্ধানের সার্থে তা চাওয়ার কথা জানালে শিক্ষকরা তা দাখিলে অপারগতা প্রকাশ করেন।
এসময় বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক কল্যাণ সমিতির জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম,সদর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সুফিয়ান সিদ্দিক খান,সদস্য আব্দুল মান্নান সহ শিক্ষক-শিক্ষিকারা উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঘেরাও


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ