Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৮ বৈশাখ ১৪২৮, ০৮ রমজান ১৪৪২ হিজরী

সৈয়দপুরে যুবকের পুরুষাঙ্গ কর্তন

সৈয়দপুর (নীলফামারী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০৪ এএম

নীলফামারীর সৈয়দপুরে এক নববিবাহিত যুবকের পুরুষাঙ্গের অগ্রভাগ কর্তন করা হয়েছে। তার নাম নুর আলম সবুজ (২৫)। তাকে গত বুধবার দিবাগত গভীর রাতে উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের ধলাগাছ পশ্চিমপাড়ার তার বাড়ির পাশে পঁচানালার পাড় এলাকা থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে ওই যুবক রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
জানা যায়, সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের ধলাগাছ পশ্চিমপাড়ার এলাকার মোহাম্মদ আলী ছেলে নুর আলম সবুজ। সে সরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে কেয়ারটেকার হিসেবে কর্মরত রয়েছে। সে পরিবারের সদস্যদের অজান্তে গত ২১ জানুয়ারি একই ইউনিয়নের কামারাপুকুর আইসঢাল হাজীপাড়ার মো. রেজাউল করিমের কলেজ পড়–য়া মেয়ে রেজভী এলায়েজ জান্নাতিকে বিয়ে করে। ঘটনার দিন গত বুধবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১১টার দিকে শ্বশুর বাড়ি থেকে খাওয়া দাওয়া শেষে বের হয়ে আসে সবুজ। এসময় সঙ্গে তার দুই বন্ধু ছিল। এরপর সাড়ে ১২ টার দিকে স্থানীয়দের মাধমে খবর পেয়ে তাদের বাড়ি সংলগ্ন পঁচানালার পাড় থেকে তাকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করেন সৈয়দপুর থানা পুলিশ। প্রথমে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা হাসপাতালে নেয়া হয়। তখন চিকিৎসক তাকে পর্যবেক্ষণ করে পুলিশ ও পরিবারের সদস্যদের জানান তার পুরুষাঙ্গের অগ্রভাগ কর্তন করা হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা অবনতি হওয়ায় চিকিৎসক সবুজকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। তবে কারা, কি কারণে পুরুষাঙ্গ কর্তনের পর তাকে বাড়ির কাছে ফেলে রেখে যায় তা জানা যায়নি।
তবে ঘটনাটি নারীঘটিক কারণে ঘটেছে বলে অনেকেই ধারণা করছেন। আর ঘটনার কারণ উদ্ঘাটনে নববধূ রিজভী এলায়েজ জান্নাতি ও তার মা সৈয়দপুর উপজেলার ১ নম্বর কামারপুকুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্য মোছা. সেলিনা বেগমকে গতকাল বৃহস্পতিবার সৈয়দপুর থানায় এনে ঘটনার বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।
সৈয়দপুর থানার ওসি মো. আবুল হাসনাত খান জানান, এ ঘটনায় কোনো অভিযোগ পায়নি। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন