Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৫ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৩ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

হযরত ঈসা আ.-এর জন্ম কথার শেষাংশ

এ কে এম ফজলুর রহমান মুন্শী | প্রকাশের সময় : ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১২:০৫ এএম, ২৫ জানুয়ারি, ২০২০

হযরত ঈসা আ.-এর জন্ম কথা সাধু লুক-এর সংকলিত গছপেল বা সুসমাচারে এভাবে বিবৃত হয়েছে। গ্যালিলির অন্তর্গত নাজারেথ হতে যোসেফ তার বাগদত্তা মেরীকে নিয়ে বেথেলহেম নামক ঈশ্বরের নগরীতে গমন করলেন রোমান সম্রাটের নির্দেশ মোতাবেক নাম রেজিষ্ট্রির জন্য। মেরী ছিলেন সন্তান সম্ভাবা। সেখানেই তার প্রথম পুত্রের জন্ম হয়। স্থানাভাবের কারণে নবজাতককে একটি পশু খাদ্যের ভান্ডারে কাপড়ে জড়িয়ে রেখে দেয়া হয়।

সাধু লুকের এই বর্ণনায় লক্ষ্য করা যায় যে, এর আগে ফিরিশতা সরাসরি মেরীর কাছে আগমন করেছিলেন এবং বলেছিলেন, ‘সদা প্রভু আপনার প্রতি খুবই প্রসন্ন হয়েছেন। আপনি সন্তান সম্ভবা হবেন এবং একটি পুত্র সন্তান লাভ করবেন। তার নাম হবে যিসাস বা যিশু এবং তার উপাধি হবে সর্বশ্রেষ্ঠ মহিমান্বিতের পুত্র। সদা প্রভু তাকে তার উর্ধতন পুরুষ হযরত দাউদ আ.-এর রাজ্য দান করবেন। তিনি চিরকালের জন্য ইস্রাঈলীদের রাজা হবেন। তার রাজত্বের সমাপ্তি ঘটবে না।’

মেরী বললেন, তা কেমন করে হবে? আমি তো কুমারী, অবিবাহিতা। উত্তরে ফিরিশতা বললেন, পবিত্র আত্মা আপনার ওপর বর্তাবে এবং মহামহিমানদের কুদরত আপনার ওপর ছায়া বিস্তার করবে। এ কারণেই নবজাতককে ঈশ্বরের পুত্র বলা হবে। এ প্রসঙ্গে ফিরিশতা তাকে এ কথাও বললেন যে, তার আত্মীয়া এলিজাবেথ (হযরত জাকারিয়া আ.-এর স্ত্রী) বন্ধ্যা হওয়া সত্তে¡ও অতি বৃদ্ধ বয়সে গর্ভধারণ করেছেন। কারণ সদা প্রভুর অঙ্গীকার কখনো নিস্ফল হয় না। এ কথা বলেই ফিরিশতা অন্তর্ধান করলেন।

তারপর নিকটতম চারণভূমিতে ওই ফিরিশতা আবির্ভূত হয়ে মেষপালকগণকে বললেন, আজ হযরত দাউদ আ.-এর রাজধানীতে তোমাদের পরিত্রাণকর্তার জন্ম হয়েছে। তার লক্ষণ হলো এই যে, তাকে তোমরা নবজাতকের বস্ত্রাবৃত অবস্থায় একটি পশু খাদ্য ভান্ডারে প্রত্যক্ষ করবে। এ কথা শুনে মেষ পালকগণ সোৎসাহে ত্রাণ কর্তাকে দেখার জন্য ছুটে চলল এবং তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে প্রত্যাবর্তন করল। শুভ জন্মের অষ্টম দিনে যিশুর ত্বকচ্ছেদ (খতনা) কাজ সুসম্পন্ন হলো।

এরপর প্রয়োজনীয় অনুষ্ঠানাদি সম্পন্ন করা হলো। অনন্তর হযরত মূসা আ.-এর বিধান মোতাবেক সদা প্রভুর কাছে উৎসর্গ করার জন্য তাকে জেরুজালেমের উপাসনালয়ে আনয়ন করা হলো। কারণ বিধান মোতাবেক প্রত্যেক প্রথম পুত্র সন্তান সদা প্রভুর মালিকানায় পরিগণিত হবে। জেরুজালেমে অবস্থানকালে সাইসিওল নামক জনৈক সাধু ব্যক্তি এবং এন্না নামক এক মহিলা যোগিনী তাকে ভাবী ত্রাণকর্তা রূপে চিনতে পারে এবং তার প্রতি আশীর্বাদ জ্ঞাপন করে এবং প্রতিশ্রুত ত্রাণকর্তা প্রেরণ করার জন্য সদা প্রভুর প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে। বিধান অনুসারে যাবতীয় আনুষ্ঠানিক ক্রিয়া-কর্ম সম্পাদনের পর শিশুটিকে নিয়ে তারা নাযারেখে প্রত্যাবর্তন করেন। দিনের পর দিন শিশু বর্ধিত হতে থাকল এবং পরিপূর্ণ প্রজ্ঞার অধিকারী হলো। (এর জন্য দেখুন : লুক ১: ২৬-৩৭; ২: ১;৪০)।

মোট কথা, সাধু মার্ক সাধু জন, সাধু মথি এবং সাধু লুকের সংকলিত বাইবেল তথা সুসমাচারের কোনোটিতে যিশুর জন্ম তারিখের উল্লেখ নেই। খ্রীষ্টান গীর্জার অধিকারীগণ ২৫ শে ডিসেম্বর তার জন্ম তারিখ বলে প্রচার করেন এবং ওই তারিখে জন্মোৎসব পালন করেন। বিশপ বার্নেস তদীয় ক্রিষ্টিয়ানিটির উত্থান গ্রন্থে উল্লেখ করেছেন যে, এই তারিখটি অসম্ভাব্য। সম্ভাব্যতার কোনো কিছুই এতে খুজে পাওয়া যায় না।

শুধু তা-ই নয়, যিশুর শৈশব এবং কৈশোর কিভাবে অতিবাহিত হয়েছে তার বিবরণ সাধু লুক সংকলিত সুসমাচারে কিছ্ইু পাওয়া যায় না। এ না পাওয়ার হেতু কি তার স্বরূপ উদঘাটন খ্রীষ্টান পন্ডিতরাই করবেন। এ নিয়ে অন্যদের কথা বলা আমরা আদৌ সমীচীন মনে করি না।



 

Show all comments
  • Akash Mahmud ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ এএম says : 0
    ঈসা আঃ এর জীবনী আর কোরআন এ সূ স্পষ্ট ভাবে দেয়া হয়েছে। আপনি পড়ে নিতে পারেন
    Total Reply(0) Reply
  • Akash Mahmud ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ এএম says : 0
    ঈসা আঃ এর জীবনী আর কোরআন এ সূ স্পষ্ট ভাবে দেয়া হয়েছে। আপনি পড়ে নিতে পারেন
    Total Reply(0) Reply
  • Akash Mahmud ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ এএম says : 0
    ঈসা আঃ এর জীবনী আর কোরআন এ সূ স্পষ্ট ভাবে দেয়া হয়েছে। আপনি পড়ে নিতে পারেন
    Total Reply(0) Reply
  • Akash Mahmud ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৬ এএম says : 0
    ঈসা আঃ এর জীবনী আল কোরআন এ সূ স্পষ্ট ভাবে দেয়া হয়েছে। আপনি পড়ে নিতে পারেন
    Total Reply(0) Reply
  • Akash Mahmud ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৬ এএম says : 0
    ঈসা আঃ এর জীবনী আল কোরআন এ সূ স্পষ্ট ভাবে দেয়া হয়েছে। আপনি পড়ে নিতে পারেন
    Total Reply(0) Reply
  • Akash Mahmud ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৬ এএম says : 0
    ঈসা আঃ এর জীবনী আল কোরআন এ সূ স্পষ্ট ভাবে দেয়া হয়েছে। আপনি পড়ে নিতে পারেন
    Total Reply(0) Reply
  • নাসিম ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 0
    শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর প্রায় সাড়ে পাঁচশ' বছর আগে পৃথিবীর বুকে আগমন করেছিলেন হযরত ঈসা (আ.)। হযরত ঈসা (আ.) একদিকে ছিলেন মানবপ্রেম ও ন্যায়-বিচার প্রতিষ্ঠার পথে অগ্রগামী অন্যদিকে ছিলেন জুলুম, বৈষম্য ও অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অনুকরণীয় আদর্শ।
    Total Reply(0) Reply
  • মেহেদী ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩১ এএম says : 0
    মহান আল্লাহ তাঁকে তাওরাত, ইঞ্জিল ও বিজ্ঞান শিক্ষা দিয়ে বনী ইসরাইলীদের কাছে রাসুল হিসেবে পাঠিয়েছিলেন।
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ কাজী নুর আলম ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩১ এএম says : 0
    হযরত ঈসা (আ.) এমন এক ব্যক্তি ছিলেন যিনি জন্মের পর অর্থাৎ দোলনা থেকেই কথা বলতে পারতেন এবং তিনি যা বলতেন, সত্য বলতেন।
    Total Reply(0) Reply
  • জাহিদ খান ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩২ এএম says : 0
    পবিত্র কোরআনের সূরা মারইয়ামের ৩০ থেকে ৩৩ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, "হযরত ঈসা বললেন, নিঃসন্দেহে আমি আল্লাহর একজন বান্দা, তিনি আমাকে কিতাব দিয়েছেন এবং নবী বানিয়েছেন। আমি যেখানেই থাকি না কেন, তিনি আমাকে বরকতময় করেছেন। তিনি আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন, আজীবন নামায ও যাকাত আদায় এবং মায়ের অনুগত থাকতে। আমাকে তিনি উদ্ধত ও হতভাগ্য করেননি। শান্তি আমার প্রতি- যেদিন আমি জন্মগ্রহণ করেছি, যেদিন মৃত্যুবরণ করব এবং যেদিন পুনরুজ্জীবিত হয়ে উত্থিত হব।"
    Total Reply(0) Reply
  • তোফাজ্জল হোসেন ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩২ এএম says : 0
    মানুষের কাছে আল্লাহর বাণী পৌঁছে দেয়ার ক্ষেত্রে তাঁকে যেমন ত্যাগ-তিতিক্ষা সহ্য করতে হয়েছে তেমনি তাঁর কুমারী মাতা হযরত মারিয়াম (সা.আ.)কেও অনেক দুঃখ-কষ্ট ও অপমান সহ্য করতে হয়েছে।
    Total Reply(0) Reply
  • mohibur ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০৪ পিএম says : 0
    পবিত্র কোরআনের সূরা মারইয়ামের ৩০ থেকে ৩৩ নম্বর আয়াতে বলা হয়েছে, "হযরত ঈসা বললেন, নিঃসন্দেহে আমি আল্লাহর একজন বান্দা, তিনি আমাকে কিতাব দিয়েছেন এবং নবী বানিয়েছেন। আমি যেখানেই থাকি না কেন, তিনি আমাকে বরকতময় করেছেন। তিনি আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন, আজীবন নামায ও যাকাত আদায় এবং মায়ের অনুগত থাকতে। আমাকে তিনি উদ্ধত ও হতভাগ্য করেননি। শান্তি আমার প্রতি- যেদিন আমি জন্মগ্রহণ করেছি, যেদিন মৃত্যুবরণ করব এবং যেদিন পুনরুজ্জীবিত হয়ে উত্থিত হব
    Total Reply(0) Reply
  • mohibur ২৫ জানুয়ারি, ২০২০, ১:০২ পিএম says : 0
    ঈসা আঃ এর জীবনী আল কোরআন এ সূ স্পষ্ট ভাবে দেয়া হয়েছে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন