Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ ট্রেন যাত্রীদের নিরাপত্তায় বিশেষ সতর্কতা জারি

প্রকাশের সময় : ২ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

সৈয়দপুর (নীলফামারী) উপজেলা সংবাদদাতা

আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে ট্রেন যাত্রীদের নিরাপত্তায় পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। যাত্রীদের নিরাপদে ট্রেন ভ্রমণ নিশ্চিত, ট্রেনের টিকেট কালোবাজারি রোধ ও নাশকতা ঠেকাতে এ সতর্কতা জারি করা হয়। গত ২৬ জুন থেকে ওই সতর্কতা জারি করেন সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ। এ তৎপরতা অব্যাহতভাবে চলবে আগামী ২৭ জুলাই পর্যন্ত। সেই সঙ্গে রেল পুলিশের সব রকম ছুটিও বাতিল করা হয়েছে। রেলওয়ে পুলিশ সূত্র জানায়, ঈদে ট্রেনগুলোতে যাত্রীর চাপ বহুলাংশে বেড়ে যায়। এতে করে ট্রেনে চুরি, ছিনতাইয়ের মতো নানা রকম অপরাধমূলক কর্মকা- সংঘটিত হয়। অজ্ঞান পার্টির তৎপরতাও বেড়ে যায়। যাত্রী সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় টিকেট কালোবাজারি ঘটনাও ঘটে। মূলত এসব প্রতিরোধে প্রতি বছরের মতো এ বছরও আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে সৈয়দপুর রেলওয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সতর্কতার অংশ হিসেবে জিআরপি পুলিশের পক্ষ থেকে তথ্য কেন্দ্র স্থাপন করা হয় এ অঞ্চলের ২৬টি রেলওয়ে স্টেশনে। যাত্রী সাধারণের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে ওই সব তথ্য কেন্দ্র থেকে লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। ওই লিফলেটে যাত্রীদের ঈদ শুভেচ্ছা জানানোসহ অপরাধমূলক কর্মকা- প্রতিরোধে যাত্রীদের করণীয় বিষয়ে দিক-নিদের্শনা রয়েছে। এছাড়াও লিফলেটে পুলিশ কন্ট্রোল রুম ও বিভিন্ন রেলওয়ে থানা ও ফাঁড়িসহ সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাদের মুঠোফোন নম্বর দেয়া রয়েছে। যে কোন রকম সমস্যা পড়লে ভুক্তভোগী ট্রেন যাত্রীদের ওই সব মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। এছাড়াও ট্রেনে নাশকতা সৃষ্টিকারীদের বিষয়ে জিআপপি পুলিশকে জানানোর আহ্বান জানানো হয়েছে লিফলেটে। স্টেশনে স্থাপিত কন্ট্রোল রুম ছাড়াও ট্রেনে যাত্রীদের মধ্যেও রেলওয়ে পুলিশের ওই লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়েতে সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলার আওতায় ১২টি রেলওয়ে থানা রয়েছে। এ সব হচ্ছে, সৈয়দপুর সদর, পাবর্তীপুর, দিনাজপুর, লালমনিরহাট, সান্তাহার, ঈশ্বরদী, রাজশাহী, পোড়াদহ, রাজবাড়ী বোনারপাড়া, সিরাজগঞ্জ ও খুলনা থানা। এ ছাড়াও বিভিন্ন রেলওয়ে স্টেশনে ১৬টি রেলওয়ে ফাঁড়ি রয়েছে। আর এ সব রেলওয়ে থানা ও ফাঁড়িতে ৬৬২ জন পুলিশ সদস্য নিয়োজিত রয়েছেন। এছাড়াও ২শ’ ব্যাটালিয়ন আনসার, রেলপথ সংশ্লিষ্ট জেলা পুলিশ ও মেট্রোপলিটন পুলিশকে সহযোগী হিসেবে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। বড় বড় স্টেশনে সন্দেহভাজন যাত্রীদের মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে দেহ তল্লাশি করা হচ্ছে। সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে একটি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সেখান থেকে সার্বক্ষণিক তদারকি করা হচ্ছে সব রেলওয়ে থানা ও ফাঁড়ির সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে। সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এডিশনাল এসপি) দেওয়ান লালন আহ্মেদ ঈদ উপলক্ষে রেল পুলিশের বিশেষ সতর্কতা জারির সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ঈদে ঘরমুখী ট্রেন যাত্রীদের নিরাপত্তাই এখন সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ। এ জন্য রেলওয়ে পুলিশের সব রকম ছুটি বাতিল করা হয়েছে। সৈয়দপুর রেলওয়ে জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) সিদ্দিকী তাঞ্জিলুর রহমান বলেন, আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে ঘরমুখী ট্রেন যাত্রীরা যাতে কোন রকম হয়রানি কিংবা বিপদের সম্মুখীন না হন, সে জন্য আমাদের পক্ষ থেকে সব ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ