Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১০ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৮ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

আগে দেশ বাঁচান : মমতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০৩ এএম

ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি সরকারের বিতর্কিত ও বর্ণবাদী নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে কেরালা, পাঞ্জাব ও রাজস্থানের পর এবার পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভায়ও প্রস্তাব পাস হয়েছে। তৃণম‚ল কংগ্রেসের সমালোচনা না করে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে বাম ও কংগ্রেসকে আন্দোলনে নজর দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার। তাদের উদ্দেশে মমতা বলেন, মোদি আর দিদি এক নয়! আমার বিরোধিতা করার জন্য ৩৬৫ দিন পাওয়া যাবে। এখন বিজেপির নীতির বিরোধিতা করুন একযোগে। বিধানসভায় আনা প্রস্তাবে- সিএএ, এনআরসি ও এনপিআর প্রত্যাহারের দাবি তোলা হয়েছে কেন্দ্রের কাছে। প্রস্তাবের সঙ্গে নীতিগতভাবে সহমত পোষণ করে বাম ও কংগ্রেস তাতে সমর্থন দিয়েছে। তবে আক্ষরিক অর্থে এ প্রস্তাব সর্বদল হয়নি। বিধানসভার কার্যবিধির ১৬৯ ধারায় সরকারের পক্ষ থেকে পরিষদীয়মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সোমবার বিশেষ অধিবেশনে প্রস্তাব পেশ করেন, খসড়ায় বিরোধীদের সই করার সুযোগ ছিল না। আবার বিধানসভায় আলোচনার সময়ে প্রত্যাশিতভাবেই বিজেপির স্বাধীন সরকার প্রস্তাবের বিরোধিতা করেছেন। মমতা আসলে বুঝিয়ে দেন, সিএএ ও এনআরসির বিরুদ্ধে বিজেপি ছাড়া সব দলকে তিনি আন্দোলনে চাইছেন। তার কথায়, আমার বন্ধুদের বলছি– সংবিধানকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে অপব্যবহার করে বিদ্বেষম‚লক কাজ করার চেষ্টা হচ্ছে। বিজেপি দেশের সব কিছু ঠিক করে দেবে, সেটি হতে দেয়া যায় না।’ এবিপি।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ