Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

ফেদেরার-জোকোভিচ সেমিফাইনাল

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৯ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম


একটি-দুটি নয়, সাত-সাতটি ম্যাচ পয়েন্ট পেলেন টেনিস স্যান্ডগ্রেন! তারপরও জয় অধরাই থেকে গেল যুক্তরাষ্ট্রের এই খেলোয়াড়ের। প্রতিবারই দোর্দÐ প্রতাপে ঘুরে দাঁড়ালেন রজার ফেদেরার। সুইজারল্যান্ডের তারকা চমকে দিলেন প্রতিপক্ষকে, বিস্মিত করলেন রড লেভার অ্যারেনায় উপস্থিত দর্শকদেরও। রুদ্ধশ্বাস জয় তুলে নিয়ে তিনি পা রাখলেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের সেমিফাইনালে।

ফেদেরারের এই খুশির চাইতে খুশির সংবাদ অপেক্ষা করছে টেনিসরোমান্টিকদের জন্য। কেননা ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে রেকর্ড ২০টি গ্র্যান্ড সø্যাম জয়ী ফেদেরার মোকাবিলা করবেন দ্বিতীয় বাছাই সার্বিয়ার নোভাক জোকোভিচের। শেষ আটে মিলোস রাওনিখের বিপক্ষে সরাসরি সেটে জয় পেয়েছেন প্রতিযোগিতায় সাতবারের বিজয়ী জোকোভিচ। আগামীকালই হবে বহুল আকাক্সিক্ষত সেই লড়াইটি।

গতকাল দুপুরে মেলবোর্ন পার্কে পাঁচ সেটে গড়ানো কোয়ার্টার ফাইনালে ৩-২ ব্যবধানে জিতেছেন ৩৮ বছর বয়সী ফেদেরার। তিন ঘণ্টা ২৮ মিনিটের লড়াইয়ে তিনি স্যান্ডগ্রেনকে হারিয়েছেন ৬-৩, ২-৬, ২-৬, ৭-৬ (১০-৮), ৬-৩ গেমে।

অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ছয়বারের শিরোপাজয়ী ফেদেরারকে ম্যাচ চলাকালে ঊরুর পেশির ব্যথার কারণে শুশ্র‚ষাও নিতে হয়েছে। তবুও হাল ছেড়ে দেননি তিনি। স্নায়ুচাপ জয় করে অভিজ্ঞতা আর স্কিলের সমন্বয়ে তাক লাগানো পারফরম্যান্স উপহার দিয়েছেন তিনি, ধরে রেখেছেন এই প্রতিযোগিতার কোয়ার্টার ফাইনালে কখনও না হারার রেকর্ড। এই নিয়ে ১৫বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের শেষ আটে উঠে প্রতিবারই জয় নিয়ে কোর্ট ছাড়লেন বর্ষীয়ান তারকা। নাটকীয় ম্যাচে শেষ হাসি হাসার পর ফেদেরার বলেছেন, ‘আমি বলতে চাইছি যে মাঝে মাঝে আপনাকে ভাগ্যবান হতে হয়। মাঝে মাঝে সবকিছু আপনার নিয়ন্ত্রণে থাকে না। ম্যাচ যতই সামনের দিকে এগিয়েছে, ততই আমি ভালো অনুভব করেছি এবং চাপ আস্তে আস্তে সরে গেছে। এই জয়টা হয়তো আমার প্রাপ্য ছিল না কিন্তু আমি এখানেই দাঁড়িয়ে আছি (বিজয়ীর বেশে) এবং আমি সত্যিই খুব খুশি।’
মেলবোর্ন পার্কেরই আরেক কোর্টে সন্ধ্যায় কানাডার মিলোস রাওনিখকে ৬-৪, ৬-৩, ৭-৬ (৭-১) গেমে হারান দারুণ ফর্মে থাকা জোকোভিচ। চলতি টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত মাত্র একটি সেট হেরেছেন শীর্ষ বাছাই ও ১৬টি গ্র্যান্ড সø্যাম জয়ী তারকা। এই জয়েই নিশ্চিত হয়েছে আরেকটি ফেদেরার-জোকোভিচ লাড়াইয়ের প্রেক্ষাপট। এমন একটি ম্যাচের অপেক্ষা শুধু টেনিসপ্রেমীদেরই না, জোকার নিজেও থাকেন অধীর আগ্রহে। শেষ চার নিশ্চিতের পর জানালেন, ‘তার (ফেদেরার) মতো প্রতিপক্ষ পাওয়া একই সঙ্গে সৌভাগ্যের আবার দুঃস্বপ্নেরও বটে। নামের পাশে ২০টি শিরোপা (গ্র্যান্ড ¯ø্যাম)! তিনি আবারও প্রমাণ করেছেন, কেন তিনি সর্বকালের সেরা।’ এই ম্যাচে না থেকেও ছিলেন দু’দিন আগেই মর্মান্তিক হেলকিপ্টার দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানো কিংবদন্তি বাস্কেটবল তারকা কোবি ব্রায়ান্ট। এনবিএ মহাতারকা স্মরণে সবুজরঙা এক জার্সির বুকে কে বি ৮/২৪ খঁচিত একটি জ্যাকেট গায়ে এদিন কোর্টে এসেছিলেন সার্বিয়ান টেনিসার। বন্ধু, মেন্টরকে হারানোর বেদনা ফুটে উঠেছিল সদা কৌতুকপ্রিয় জোকোভিচের কণ্ঠেও। অশ্রƒসজল চোখে জোকার বলেন, ‘সে (কোবি) ছিল আমার মেন্টর, বন্ধু। যখনই আমার কোনো উপদেশের প্রয়োজন পড়তো সবসময় আমি তাকে পাশে পেয়েছি।’

সবমিলিয়ে ফেদেরারে বিপক্ষে লড়াইয়ে ২৬-২৩ ব্যবধানে এগিয়ে জোকোভিচ। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে দুজনের সবশেষ তিন ম্যাচের তিনটিতেই জিতেছেন তিনি। মজার ব্যাপার হলো, প্রতিবারই তারা মুখোমুখি হয়েছিলেন সেমিফাইনালে। ২০১৬ আসরের আগে ২০০৮ ও ২০১১ সালেও ফেদেরারের বিপক্ষে জিতেছিলেন জোকোভিচ। এই অস্ট্রেলিয়ান ওপেনেই দু’জনের শেষ দেখা হয়েছিল ২০১৬ সালে। তবে সেবার সেমি-ফাইনালে সার্বিয়ান তারকার কাছে হেরেছিলেন ২০ বারের গ্র্যান্ড সø্যাম চ্যাম্পিয়ন ফেদেরার। ৩৮ বছর বয়সে এবার কি পারবেন ফেদেরার তার হিসেব চুকিয়ে দিতে। সেই ধারার খোলাসা হবে আগামীকালই।
এদিকে, মেয়েদের এককে শেষ চারে পৌঁছেছেন এক নম্বর তারকা অ্যাশলি বার্টি। কোয়ার্টার-ফাইনালে তিনি ৭-৬ (৮-৬), ৬-২ গেমে হারান গতবারের ফাইনালিস্ট পেত্রা কেভিতোভাকে। ৩৬ বছরের মধ্যে প্রথম অস্ট্রেলিয়ান নারী খেলোয়াড় হিসেবে ঘরের মাঠে সেমি-ফাইনালে লড়বেন বার্টি। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ফরাসি ওপেন চ্যাম্পিয়ন বার্টির প্রতিপক্ষ সোফিয়া কেনিন। শেষ আটে আরব দেশগুলোর মধ্যে প্রথম নারী হিসেবে গ্র্যান্ড সø্যামের কোয়ার্টার-ফাইনালে ওঠা ওন্স জাবেরকে হারান কেনিন। ৬-৪, ৬-৪ গেমে জিতে ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মতো গ্র্যান্ড সø্যামের সেমি-ফাইনালে ওঠেন চতুর্দশ বাছাই যুক্তরাষ্ট্রের কেনিন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সেমিফাইনাল

২৪ এপ্রিল, ২০১৬

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ