Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ভয়াবহ হচ্ছে করোনাভাইরাস

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০৫ এএম

চীনসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে নতুন (২০১৯-হঈড়ঠ) করোনাভাইরাস। এই ভাইরাসে চীনে মৃতের সংখ্যা ১৩২ জনে দাড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ছড়িয়েছে ৬ হাজার ৬৫ জনে। বাংলাদেশে ইতোমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলেও চীন থকে সব বাংলাদেশি দেশে ফিরতে চান না বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ইতোমধ্যে চীন ছাড়া আরো ১৬টি দেশে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে। তবে বাংলাদেশে এখনো কোনো রোগী না পাওয়ায় আতঙ্কিত না হতে পরামর্শ দিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়।
করোনাভাইরাসে মৃত্যু বেড়ে ১৩২ আক্রান্ত ৬০৬৫ : করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৩২ জনে দাঁড়িয়েছে। চীনের মূল ভ‚খন্ডে আক্রান্তের সংখ্যা এক দিনেই বেড়েছে ৩০ শতাংশের বেশি। চীনের ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, গতকাল নতুন করে আরো প্রায় দেড় হাজার মানুষের দেহে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে। কেবল চীনেই আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ৯৭৪ জনে দাঁড়িয়েছে। যা সার্স ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যার চেয়েও বেশি। ২৯টি প্রদেশসহ চীনের মূল ভখন্ডের বাইরে আরো ১৭ জায়গায় অন্তত ৭০ জনের দেহে করোনাভাইরাস সংক্রমণের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। সব মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৬৫ জনে। তবে চীনের বাইরে এ ভাইরাসে কারো মৃত্যুর তথ্য এখনো পাওয়া যায়নি।
নতুন এ করোনাভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে চাপ বাড়ছে বেইজিংয়ের ওপর। হোয়াইট হাউজের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানিয়েছে, চীনের সঙ্গে উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ রাখার কথাও ভাবতে শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ভাইরাস ছড়ানোর ভয়ে বিশ্বের বিভিন্ন বিমান পরিবহন সংস্থা এরই মধ্যে চীনের পথে ফ্লাইট কমিয়ে দিয়েছে। বড় আন্তর্জাতিক কোম্পানিগুলোও তাদের কর্মীদের চীনে যাতায়াতের বিষয়ে কড়াকড়ি আরোপ করেছে। ভাইরাস ছড়ানো ঠেকাতে হুবেই প্রদেশের সঙ্গে অন্যান্য অঞ্চলের বাস চলাচল এক প্রকার বন্ধ করে দিয়েছে চীন সরকার। ফলে প্রায় ৬ কোটি মানুষের চলাচল সীমিত হয়ে পড়েছে। হুবেই থেকে যারা বেইজিং বা সাংহাইতে যাচ্ছেন, তাদের ১৪ দিনের পর্যবেক্ষণে রাখা হচ্ছে। আরো কয়েকটি বড় শহরে পাবলিক বাস, ট্যাক্সি ও রাইড শেয়ারিং সেবা বন্ধ রয়েছে। স্কুল ও দোকানপাটও আপাতত খুলছে না। সাংহাই ও হংকংয়ে ডিজনিল্যান্ডও আপাতত বন্ধ। তিব্বতে পর্যটকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
প্রকৃত আক্রান্তের সংখ্যা কত : চীনে ছড়িয়ে পড়া নতুন (২০১৯-হঈড়ঠ) করোনভাইরাস রোগীদের দিনরাত সেবা দিতে দিতে চীনে একজন নারী চিকিৎসককর্মী চিৎকার করে কাঁদতে কাঁদতে বলেন ‘আমি আর তা নিতে পারছি না’। গত ২৭ জানুয়ারি বৃটিশ জর্নাল ডেইলি মেলই-এর অনলাইন ভার্সন মেলওনলাইনে এ ধরনের একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে। মূলত দেশটিতে ছড়িয়েপড়া ভাইরাসের ভয়াবহতা বোঝাতেই এ ধরনের কয়েকটি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। সেখানে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে ‘নতুন করোনাভাইরাস’ ভয়াবহভাবে ছড়িয়ে পড়ায় চীনের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ দেশটির হুবেই প্রদেশে বসবাসরত কমপক্ষে ৫০ লাখ মানুষকে আলাদা করে রেখেছে। পাশপাশি সারা দেশে চন্দ্র নববর্ষের উৎসব বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে। ভাইরাসটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় বিজ্ঞানীরা আশঙ্কা করছেন যে, ইতোমধ্যে এক লাখের বেশি মানুষ সংক্রামিত হয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৩ লাখেরও বেশি হতে পারে। শুধু হুবেই প্রদেশের এই ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় ৫ লক্ষাধিক চিকিৎসা কর্মী নিযুক্ত করা হয়েছে। যারা তাদের নববর্ষের ছুটির আনন্দ ত্যাগ করে মারাত্মক এ রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হুবেই ফিরে এসেছে।
চীন থকে সব বাংলাদেশি ফিরতে চান না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে চীনে আটকা পড়া বাংলাদেশিদের ফেরত আনতে সরকার সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত রয়েছে। চীন সরকার রাজি হলেই তাদেরকে ফেরত আনা হবে। তবে সব বাংলাদেশি এখনই দেশে ফিরতে চান না বলে জানিয়েছেন। গতকাল রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় ঢাকা-সিলেট চার লেন রোড তৈরির পরিকল্পনা নিয়ে সিলেটের মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও রাজনীতিবিদদের সঙ্গে মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে চীনে অবস্থান করা বাংলাদেশিদের ফেরত আনতে আমরা বিমানের ফ্লাইটও প্রস্তুত করে রেখেছি। নিজেদের নাগরিকদের দেশে ফেরত আনার বিষয়টি চীনা কর্তৃপক্ষকে আমরা জানিয়েছি। তবে তারা বলেছে, অন্তত দুই সপ্তাহ তারা সবাইকে পর্যবেক্ষণে রাখবে। এরপরে বিদেশিরা নিজ দেশে ফিরতে পারবে। তিনি বলেন, দেশে ফিরতে চাওয়া বাংলাদেশিদের তালিকা করা হয়েছে। তাদের নিবন্ধন শুরু হয়েছে। তবে অনেকে ফিরতে আগ্রহী নন। তারা বলেছেন, এই অবস্থায় দেশে ফেরা ঠিক হবে না। কারণ, এ ভাইরাসে আক্রান্তদের সব ধরনের চিকিৎসা সেবা চীন দিচ্ছে। বাংলাদেশে আসলে কী ধরনের সেবা পাবেন সেটা বলা মুশকিল। মন্ত্রী বলেন, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য দেশও নিজ নাগরিকদের ফেরত নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে। তবে চীনারা এখনই কোনো বিদেশিকে ফেরত পাঠাচ্ছে না। এ বিষয়ে তারা খুব কঠোর। পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, চীন থেকে বাংলাদেশি নাগরিকদের ফেরত আনা হলেও তাদেরকে পর্যবেক্ষণে রাখা হবে। কারণ আমরা চাই না ভাইরাসটা সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ুক।
ভাইরাস মোকাবেলায় বিভিন্ন দেশের প্রস্তুতি : বাংলাদেশ, ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, জাপানসহ বেশকিছু দেশ ইতোমধ্যে তাদের নাগরিকদের উহান ও হুবেই প্রদেশ থেকে সরিয়ে আনার প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে আপাতত সেখান থেকে বিদেশিদের সরাতে গেলে ভাইরাস আরো বেশি ছড়িয়ে পড়বে কি না- সেই শঙ্কা রয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার। চীন থেকে যারাই অন্য দেশে যাচ্ছেন, তাদের অন্তত ১৪ দিন পর্যবেক্ষণে রাখার পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। অনেক দেশ তাদের নাগরিকদের জরুরি প্রয়োজন ছাড়া চীনে না যেতে পরামর্শ দিয়েছে। ফিলিপিন্স, শ্রীলঙ্কা ও ইন্দ্রোনেশিয়া তাদের বিমানবন্দরে চীনা নাগরিকদের অন অ্যারাইভাল ভিসা প্রদান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অস্ট্রেলিয়া তাদের নাগরিকদের হুবেই থেকে দেশে ফিরিয়ে আপাতত ভারত মহাসাগরের একটি দুর্গম একটি দ্বীপে রেখে পর্যবেক্ষণ করার কথা ভাবছে। সিএনএন জানিয়েছে, নতুন করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণের উপায় খুঁজতে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের একটি দলকে চীনে পাঠাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। ওই বিশেষজ্ঞ দলে যুক্তরাস্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজেস কন্ট্রোলের (সিডিসি) প্রতিনিধিরাও থাকবেন।
১৯ দেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত : নতুন করোনাভাইরাসের উৎপত্তি চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে হলেও ক্রমেই তা ছড়িয়ে পড়ছে অন্যান্য দেশেও। ইতোমধ্যে অন্তত ১৯টি দেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। চীনের বাইরে অস্ট্রেলিয়া, কম্বে^াডিয়া, কানাডা, ফ্রান্স, জার্মানি, জাপান, মালয়েশিয়া, নেপাল, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, তাইওয়ান, যুক্তরাস্ট্র ও ভিয়েতনামেও এ ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শনাক্ত করা হয়েছে। সর্বশেষ আরব আমিরাতে চীন ফেরত একটি পরিবারের সদস্যদের দেহে কোরোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।
দেশের বিভিন্ন স্থানে সতর্কতা : দেশের বিভিন্নস্থানে স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয় নির্দেশিত সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। টেকনাফ স্থলবন্দরে ইমিগ্রেশন যাতায়ত বন্ধ থাকলেও মিয়ানমার হতে পণ্যবোজাই ট্রলারের যাতায়াত রোয়েছে। ফলে সেগুলোর মাঝি-মাল¬াদের চলাচল নিয়ন্ত্রনে রাখা হয়েছে। দর্শনা সীমান্ত বন্দরে স্থাপণ করা হয়েছে মেডিকেল ক্যাম্প। ক্যাম্পের প্রধান চিকিৎসক ডা. শাকিল আর সালান জানিয়েছেন প্রাথমিক ভাবে সেখানে ভারত থেকে আগতদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। মংলা সমুদ্রবন্দরেও বসানো হয়েছে স্ক্যানার। পোর্ট হেলথ কর্মকর্তা ডা. সুফিয়া খাতুন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া চাপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ ইমিগ্রেশন, হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে মেডিকেল টিম স্থাপন করা হয়েছে।
সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনাভাইরাস আইসোলেশন ইউনিট চালু করা হয়েছে। করোনাভাইরাস নিয়ে আগাম সতর্কতা হিসেবে হাসপাতালে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটিও গঠন করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • Firoz Almamun ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:২৯ এএম says : 0
    একটি সতর্কবার্তা এই সময় যে সকল ভাই বোনেরা চীনে আছেন তাদের দেশে না যাওয়াই ভালো। কারণ আপনি জানেন না আপনি এর জীবাণু বহন করছেন কি না। চীনে থাকলে সুবিধা আপনি সহজেই হাসপাতালে চেকআপের জন্য যেতে পারবেন এবং ট্রিটমেন্ট ও ফ্রি। আল্লাহ না করুক দেশে গিয়ে যদি আপনার এই ভাইরাস ধরা পরে? তখন আর কোন উপায় থাকবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • MD Monir ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 0
    করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে বেশি বেশি এই দুআ'টি পাঠ করুন। আল্লাহুম্মা ইন্নি আউযুবিকা মিনাল বারাছি ওয়াল জুনুবি ওয়াল জুযা-মি ওয়া মিন সাইয়্যিল আসক্বা-ম। অর্থ, হে আল্লাহ!!!আমি আপনার কাছে পানাহ চাই শ্বেত-রোগ থেকে,পাগলামি থেকে,কুষ্ঠ রোগ থেকে এবং কঠিন কঠিন রোগ থেকে। মুসান্নাফে আবু শাইবা হাদীস নং ২৮৫৫৫,
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rezaul Karim ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 0
    যে কোন ছুতোয সরকারী টাকা খরচ করে আমলারা বিদেশ সফরে যান ।এখন তাদের চীনে পাঠানো হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Roton ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩১ এএম says : 0
    জেনে রাখো চীন বাসি চীনের সরকার কদিন আগে তোমরা কি বলেছিলে নতুন করে কোরআন লিখবে তোমরা কি জানো না আল-কোরআন সৃষ্টিকর্তার পাঠানো কিতাব যার সংরক্ষণ করার দায় দায়িত্ব নিজে নিয়েছেন হয়তো তোমরা ইতিহাস হয়ে যাবে
    Total Reply(0) Reply
  • Jhuton Sarker ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩১ এএম says : 0
    চীনের মানসিকতা যদি বাংলাদেশের মতো হত তবে অবশ্যই তারা বলত "এই ভাইরাস ছড়ানোর পেছনে গভীর ষড়যন্ত্র থাকতে পারে।আমরা তদন্ত করে দেখছি এর পেছনে আমেরিকার কোন হাত আছে কিনা।"
    Total Reply(0) Reply
  • Md Golam Ambia Mahaldar ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩১ এএম says : 0
    আল্লাহ সকলকেই আরোগ্য দান করুন। আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • Arafat Yeasin ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩২ এএম says : 0
    করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে মন্ত্রী, সচিবসহ শতাধিক সরকারি কর্মকর্তাকে চায়না পাঠানো হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Alex Hisam ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১:৩৩ এএম says : 0
    আল্লাহ মশা পাখিদের দিয়ে অত্যাচারিদের ধংশ করেচেন তোরা উইঘুরদের নির্যাতন করিস ঐগুলোতো চোখে দেখা যায় তোদেরতো তার থেকে অতি ক্ষুদ্রকার খালি চোখে দেখা যায়না করোনা ভাইরাস দিয়ে গজব দিচ্ছে ভেবেছিলি তোরা অর্থনৈতিক ও সামরিকভাবে সুসজ্জিত কিন্তু মহান আল্লাহ সর্বশক্তিমান ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন