Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

রানীমাতা ও প্রিন্স চার্লসের উত্তরাধিকার

ব্রিটিশ রাজপরিবার কিভাবে উপার্জন করে- শেষ পর্ব

নিউজ রিপাবলিক | প্রকাশের সময় : ৩০ জানুয়ারি, ২০২০, ১২:০৫ এএম

প্রিন্সেস ডায়ানা সবসময় নিশ্চিত করতে চেয়েছিলেন যে, হ্যারি যেন তার ভাই উইলিয়ামের তুলনায় অবহেলিত বা কম সম্মান না পান। কারণ উইলিয়াম সিংহাসনের উত্তরাধিকার। তবে তার প্রমাতামহ রানীমাতা এলিজাবেথের কাছে বিষয়টি অন্যরকম ছিল।

তিনি উইলিয়ামকে বেশি গুরুত্ব দিতেন। সাংবাদিক ইংরিড সেওয়ার্ড ‘হ্যারি এন্ড মেগান: দ্য বেবি ইয়ার্স’ ডকুমেন্টারিটিতে জানান, রানী সবসময় তার পাশে বসার জন্য উইলিয়ামকে ডাকতেন। ছোট হ্যারি অবহেলিত হত।’ তবুও, ২০০২ সালে মৃত্যুর আগে তিনি তার উইলে হ্যারিকেও কিছু সম্পদ দিয়ে যান। ‘রানী মাতা’ এলিজাবেথ হ্যারি এবং উইলিয়ামের জন্য মোট ১ কোটি ৪০ লাখ অথবা, ২ কোটি ২৪ লাখ ডলার দিয়ে গিয়েছিলেন বলে জানা গেছে। তবে বিবিসি অনুসারে, তিনি হ্যারিকেই বেশিরভাগ টাকা দিয়ে গিয়েছিলেন, কারণ তিনি অনুভব করেছিলেন যে, উইলিয়াম যখন প্রথমে প্রিন্স অফ ওয়েলস (যখন তার বাবা সিংহাসনে বসবেন অথবা মারা যাবেন) এবং তার পরে রাজা হওয়ার ফলে আর্থিকভাবে লাভবান হবেন। উভয় অবস্থানের মধ্যে কয়েকশো’ কোটি ডলারের ট্রাস্ট অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। প্রিন্স চার্লসের মোট সম্পদের পরিমাণ ৪০ কোটি ডলার বলে ধারণা করা হয়। এর বেশিরভাগই তার ব্যক্তিগত সম্পত্তি এবং ডিউকের এলাকা কর্নওয়াল থেকে প্রাপ্ত বার্ষিক মুনাফা। ১৩৩৭ সালে কর্নওয়ালকে সিংহাসনের উত্তরাধিকারী প্রিন্স অব ওয়েলসের এস্টেটে পরিণত করা হয়, যেখান থেকে প্রাপ্ত আয় সরাসরি প্রিন্স ভোগ করতে পারেন। সেখানে খনি, কৃষিজমি এবং বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

প্রিন্স চার্লস হ্যারি এবং মেগানকে কর্নওয়ালের আয় থেকে বছরে কমপক্ষে ২০ লাখ ডলার দিয়ে সহায়তা করতেন, যা তারা তাদের ভ্রমণ, পোশাক এবং ব্যক্তিগত ব্যয়ের জন্য ব্যবহার করতেন। এই দম্পতি রাজপরিবার ত্যাগের ঘোষণা দেয়ার পরে সূত্রের বরাতে পিপিল পত্রিকা জানিয়েছিল যে, চার্লস তাদের আর্থিকভাবে স্বাধীন হওয়ার সময়েও সহযোগিতা দিয়ে যাবেন। যদিও তার পরিমাণ নির্দিষ্ট করে জানানো হয়নি।

অনেকেইে ভেবে অবাক হতে পারেন, প্রাচুর্য এবং সুযোগ-সুবিধার মধ্যে জন্মগ্রহণকারী হ্যারির মতো কেউ ঘোষণা করেন যে, তিনি রাজপরিবারের জন্য কাজ করা এবং সরকারী এবং বেসরকারী অর্থ প্রাপ্তি বন্ধ করে নিজের চেষ্টায় স্বাবলম্বী হতে চান। আসল বিষয়টি হল, হ্যারি সবসময় স্বতন্ত্র, ব্যক্তিগত ও আর্থিকভাবে স্বাধীন হতে চেয়েছিলেন, এ কারণেই তিনি সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়েছিলেন (অন্যান্য সৈন্যদের মতো তিনিও আফগানিস্তানে যুদ্ধ করেছেন)।

হ্যারি ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে ১০ বছর কাজ করেছেন। সেই দশকটি তিনি নতুন মার্কেট উদ্বোধন কিংবা অনুষ্ঠানে ফিতা কেটে প্রবেশ করার চেয়ে বেশি অর্থবহ উপায়ে তার দেশের সেবা করতে ব্যয় করেছেন। খবরে বলা হয়েছে, প্রিন্স হ্যারি আর্মি এয়ার কর্পসের হেলিকপ্টার পাইলট হিসাবে প্রায় ৫০ থেকে ৫৩ হাজার ডলার আয় করেছেন।
হ্যারি সহ রাজপরিবারের সদস্যরা কীভাবে তাদের অর্থ বিনিয়োগ করে সে সম্পর্কে কোন কিছু জানা যায় না। তবে তারা অবশ্যই অন্য অনেক উপায় থাকাতে সব টাকা বিনিয়োগ করে সুদ গ্রহণের মাধ্যমে তুলনামূলকভাবে কম আয়ের পথ বেছে নেন না। প্যারাডাইড পেপারস কেলেঙ্কারির মাধ্যমে ১ কোটি ৪০ লাখ ডকুমেন্ট ফাঁস হওয়ার সময় এ বিষয়ে কিছু তথ্য পাওয়া গিয়েছিল। এর ফলে বিশ্বের উচ্চবিত্তদের আর্থিক লেনদেন প্রকাশ হয়ে গিয়েছিল। সেখানে জানা গিয়েছিল যে, হ্যারির তার বাবা, প্রিন্স চার্লস কর-মুক্ত বৈদেশিক তহবিলের জন্য কয়েক মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছিলেন। তিনি তার বন্ধুর সংস্থায় ১ লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছিলেন, চার বছর পরে সেখানে তার অর্থ তিনগুণ বেড়ে ৩ লাখ ২৫ হাজার ডলার হয়ে যায়।

হ্যারি তার সম্পদের কতটা বিনিয়োগ করেছেন সেই তথ্য জানা যায়নি। তবে আর্থিকভাবে হিসাবি একজন বাবা ও একজন বিচক্ষণ দাদী যিনি বিনিয়োগের মাধ্যমে লাখ লাখ ডলার উপার্জন করেছেন, এমন দু’জনের সংস্পর্শে থাকায় এটি বলা যায় যে হ্যারি আর্থিক বিনিয়োগেন মাধ্যমে লাভবান হয়েছেন।

২০০৩ সালে হ্যারি যখন রাজ্যগুলোর মধ্যে আযোজিত আন্তর্জাতিক কর্মীদের জন্য ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ওয়ারিয়র গেমসে গিয়েছিলেন, তখন তিনি অনুরূপ উদ্যোগ শুরু করার জন্য অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। যার থেকে তিনি ইনভিক্টাস গেমসের প্রতিষ্ঠা করেন ও এর পৃষ্ঠপোষকতা দিতে শুরু করেন। সেখানে উদ্যোক্তাদের সাথে প্রতিভাবান এবং কঠোর পরিশ্রমী ব্যক্তিদের পরিচয় করিয়ে দেয়া হয়। এজন্য হ্যারি কোন বেতন পান না। তবে রাজপরিবার থেকে বেড়িয়ে আসার পরে দীর্ঘস্থায়ী আর্থিক আয়ের জন্য এটি তাকে সহযোগিতা করতে পারে। (সমাপ্ত)



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ব্রিটিশ


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ