Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দীনের ভাতা বন্ধ

তেতুলিয়া (পঞ্চগড়) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০৪ এএম

ভাঙা বেড়া ও টিনের সেট ঘরে বসবাস মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দীনের। বেড়ার ফাঁকা দিয়ে বাতাস ঢুকলে ঠাঁন্ডায় কেঁপে ওঠেন রাতে ঘুমানোর সময়। গায়ে দেয়ার মতো তেমন ভালো কম্বল নেই তার। ভাঙা তার বাড়ির ঘরগুলোও।
গত চার বছর ধরে ভাতা বন্ধ হয়ে আছে পঞ্চগড় জেলার সদর উপজেলার সাতমেড়া ইউনিয়নের হরেয়াপাড়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দীনের। ফলে ছেলে মেয়ে নিয়ে দুর্বিষহ জীবনযাপন করছেন তিনি। একদিকে সংসারে অভাব-অনটনে দিনাতিপাত করছেন অন্যদিকে উচ্চ রক্তচাপ, শারিরীক দূর্বলতাসহ নানা অসুখে ভূগছেন। টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না। বয়সের ভারে ঠিকমতো চলাফেরা করতে সমস্যা হচ্ছে তার। ভাতা বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছেন তিনি।
মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দীন জানান, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছি। আমি ৬ নম্বর সেক্টরে যুদ্ধ করেছি। আমি প্রথমে দেবনগর থেকে যুদ্ধ শুরু করে জেলার বিভিন্ন এলাকায় যুদ্ধ করেছি। আমার মুক্তিযোদ্ধা সার্টিফিকেটসহ সকল দলিল-প্রমাণাদি থাকার পরেও আজ আমি ৪ বছর ধরে ভাতা পাই না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সাল থেকে ভাতা দেয়া শুরু করেন। আমি গত ১৩-১৪ বছর ধরে ভাতা পেয়েছি। সর্বশেষ ১০/১২/২০১৫ সালে একসাথে ৩ মাসের ভাতা ৮ হাজার টাকা করে মোট ২৪ হাজার টাকা তুলি। এরপরে কি কারণে হঠাৎ আমার ভাতা বন্ধ হয়ে গেছে আমি জানি না। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমার আবেদন তিনি যেন আমার ভাতা আবার চালু করে দেন। এটাই আমার শেষ বয়সের চাওয়া।
পঞ্চগড় সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ইসমাইল হোসেন বলেন, আফতাব উদ্দীনের নাম উপজেলা যাচাই-বাছাই কমিটির ‘ক’ তালিকায় নাম আছে। তবে ভাতা বন্ধ হওয়ার বিষয়টি নতুন গেজেট প্রকাশের পর পরিস্কার হবে সে পুনরায় ভাতা পাবে কি না। এটি সরকারের ব্যাপার আমাদের করার কিছুই নেই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মুক্তিযোদ্ধা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ