Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ মাঘ ১৪২৭, ০৮ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

প্রশ্নফাঁসের গুজব তিন জেলায় আটক ৪

বিশেষ সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

রাজধানীর রামপুরা, গাজীপুর ও খুলনা থেকে পৃথক অভিযান চালিয়ে এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র প্রতারণা ও গুজব সৃষ্টির অভিযোগে চারজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গত রোববার রাতে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব-১-এর বিশেষ দল তাদের গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলো-গাজীপুর থেকে মো. আবু বক্কর সিদ্দিক (২৬), খুলনা থেকে শাকিল মাহমুদ (২০) ও সাইমন ইসলাম (২০) এবং রাজধানীর রামপুরা থেকে আল মাহমুদ (১৮)। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।
র‌্যাব-১-এর সহকারী পরিচালক (অপস অফিসার) সহকারী পুলিশ সুপার মোর্শেদুল হাসান জানান, গাজীপুর মহানগরীর গাছা থানার উত্তর খাইলপুকুর মাদরাসা রোডের মমতাময়ী বিদ্যানিকেতনের সামনে প্রশ্ন ফাঁসকারী চক্রের কয়েকজন সদস্য অবস্থান করছে-এমন তথ্যে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস চক্রের সক্রিয় সদস মো. আবু বক্কর সিদ্দিককে (২৮) আটক করা হয়। এ সময় প্রশ্নপত্র ফাঁসে ব্যবহৃত ২টি মোবাইলফোন উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত মোবাইল ফোন বিশ্লেষণ করে গ্রেফতারকৃত আসামির সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুকে প্রশ্নপত্র ফাঁসের ব্যাপারে বিভিন্ন সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া যায়।
তিনি আরো বলেন, গ্রেফতারকৃত আবু বক্কর সিদ্দিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, আবু বক্কর ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি অ্যান্ড সায়েন্সের (ইউআইটিএস) বিএসসি তৃতীয় বর্ষের ছাত্র এবং পাশাপাশি তিনি মমতাময়ী বিদ্যানিকেতন স্কুলে শিক্ষকতা করেন। তিনি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন শ্রেণির ছাত্রছাত্রীদের প্রাইভেট-টিউশন পড়ান। এর আড়ালে বিগত ২০১৯ সালে ফেসবুক আইডির মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস সংক্রান্ত কার্যক্রম শুরু করেন। পরে ফাঁসকৃত প্রশ্নগুলো সামাজিক মাধ্যমের বিভিন্ন ক্ষেত্র যেমন, মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ ও ইমো থেকে ডিলিট করে দিতেন। একেকজন দেড় থেকে দুই লাখ টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নেয়ার তথ্য রয়েছে।
তিনি বলেন, অভিযানে আটকদের কাছ থেকে প্রাপ্ত তথ্যে তাদের সঙ্গে জড়িত বাকিদেরও আটক অভিযান অব্যাহত রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রশ্নপত্র

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ