Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ঢাবি প্রক্টর অফিসে তালা ঝুলাবে ডাকসু সদস্য

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার : | প্রকাশের সময় : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

৫ দিনের মধ্যে ভর্তি জালিয়াতের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বহিষ্কার হওয়া শিক্ষার্থীদের নাম প্রকাশ না করলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) প্রক্টর অফিসে তালা ঝুলানো হবে বলে প্রক্টর প্রফেসর ড. একে এম গোলাম রাব্বানীকে আল্টিমেটাম দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সদস্য তানভীর হাসান সৈকত। গতকাল সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তিনি প্রক্টর অফিসে স্মারকলিপি দিয়ে প্রক্টরকে এ আল্টিমেটাম দেন।
গত ৩০ জানুয়ারী ভর্তি জালিয়াতির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ৬৩ শিক্ষার্থীকে স্থায়ী বহিষ্কার করে। বহিষ্কৃতদের নাম প্রকাশ করার ব্যপারে ভিসি ইতিবাচক হলেও অভিযোগ উঠেছে প্রক্টর নাম প্রকাশ করতে অনীহা প্রকাশ করছেন। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ডাকসু সদস্য তানভীর হাসান সৈকত।
সৈকত বলেন, ভিসি বহিষ্কৃতদের নাম প্রকাশ করতে বলা সত্তে¡ও প্রকাশ করেননি প্রক্টর। এতে শিক্ষার্থীরা প্রক্টরকে ধিক্কার জানিয়েছে। কোনভাবেই প্রক্টরের মতো দায়িত্বশীল জায়গায় দাঁড়িয়ে শিক্ষার্থীদের সাথে এমন প্রতারণা কাম্য নয়। তিনি বলেন, এর দায়ভার সম্পূর্ণ প্রক্টরের। এতে করে শিক্ষাথীদের মধ্যে সন্দেহের দানা বেঁধেছে এবং শিক্ষাথীরা সরিষার ভেতরে ভূত দেখতে পাচ্ছে। বহিস্কৃতদের নাম প্রকাশ না করা ইতিমধ্যেই জালিয়াতদের রক্ষার কৌশল হিসেবে শিক্ষার্থীরা বুঝে গেছে। তাই বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরকে পাঁচ দিনের সময় দেওয়া হয়েছে। অন্যথায় শিক্ষার্থীরা জানে কীভাবে ন্যায্য অধিকার আদায় করতে হয়। প্রয়োজনে প্রক্টর অফিসে তালা ঝুলবে।
ঢাবি প্রক্টর প্রফেসর ড. এ কে এম গোলাম রাব্বানী বলেন, নৈতিক কারণে আমরা এই মুহূর্তে নাম প্রকাশ করতে পারছি না। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে, নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া অনুসরণ করে নাম প্রকাশ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তালা


আরও
আরও পড়ুন