Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ফরিদপুরে ‘পর্দা কেলেংকরি’ ঘটনায় দুই ভাইকে কারাগারে প্রেরণ

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:২০ পিএম

ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহুল আলোচিত ‘পর্দা কেলেংকরি’ ঘটনায় পরস্পর যোগসাজশে অপ্রয়োজনীয় ও অবৈধভাবে প্রাক্কলন ব্যাতিত উচ্চমূল্যে হাসপাতালের যন্ত্রপাতি (ইকুভমেন্ট) ক্রয়ের মাধ্যমে সরকারের ১০ কোটি টাকা আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগে দায়ের করা দুদকের মামলায় দুই ভাইকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।
হাইকোর্ট থেকে ছয় সপ্তাহের অন্তবর্তীকালীর জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর মঙ্গলবার সকালে দুই ভাই সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোঃ সেলিম মিয়ার আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানান। আদালত জামিনের আবেদন নাকচ করে দিয়ে তাদের জেলা কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।
ওই দুই ভাই হলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান অনিক ট্রের্ডাসের স্বত্তাধিকারী আব্দুল্লাহ আল মামুন ও তার ভাই ঢাকা বক্ষব্যাধী হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মুন্সী সাজ্জাদ হোসেন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দুদুকের আইনজীবি বিজ্ঞ পিপি এ্যাড. মজিবর রহমান বলেন, ওই দুইজন হাইকোর্ট এ অন্তবর্তীকালীন জামিনের মেয়াদ শেষ হলে তাদের নিম্ম আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছিলেন। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী তারা আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করেন। আদালত জামিন আবেদন বাতিল করে তাদের জেল হাজতে প্রেরন করার নির্দেশ প্রদান করেন। নির্দেশের পর ওই দুই ভাইকে আদালত প্রাঙ্গন থেকে ফরিদপুর জেলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।
প্রসঙ্গত গত ২৭ নভেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক মামুনুর রশীদ বাদী হয়ে ‘পরস্পর যোগসাজশে অপ্রয়োজনীয় ও অবৈধভাবে প্রাক্কলন ব্যাতিত উচ্চমূল্যে হাসপাতালের যন্ত্রপাতি (ইকুভমেন্ট) ক্রয়ের মাধ্যমে সরকারের ১০ কোটি টাকা আত্মসাতের চেষ্টার অভিযোগে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের তিন চিকিৎসক, দুইজন ঠিকাদার, একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তাসহ মোট ছয় জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন ফরিদপুরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ আদালতে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কারাগারে

৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ