Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২ ফাল্গুন ১৪২৬, ৩০ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

| প্রকাশের সময় : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

প্রশ্ন : নিষিদ্ধ লটারীর বা অপর কোনো হারাম উপায়ে টাকা পেয়ে কেউ যদি ব্যবসা-বানিজ্য, জমি-খেতি করে প্রচুর সম্পদের মালিক হয় তবে এসব সম্পত্তি তার জন্যে কি রূপে হালাল হতে পারে? যদি হালাল না হয় তাহলে এ অপরাধ থেকে তার মুক্তির উপায় কি?
সাঈদুর রহমান
ঈদগাহ রোড, রাঙ্গামাটি,
নরসিংদী।
উত্তর : হারাম উৎস বা পন্থা থেকে আগত অর্থ সম্পদের মাধ্যমে যত সম্পদই আসুক, সবই হারাম। গোটা জিন্দেগী কেটে গেলেও এ সম্পদ হালাল হতে পারে না। এ ধরনের আর্থিক অপরাধ থেকে মুক্তির উপায় হারাম সম্পত্তি বর্জন করে হালাল উপায়ে জীবিকার সংগ্রামে লিপ্ত হওয়া। আল্লাহর নিকট তওবা, ক্ষমা প্রার্থনার দ্বারা সকল গোনাহই মাফ হয়ে যায় তবে অন্য মানুষের হক সরাসরিভাবে আল্লাহ মাফ করেন না। অতএব, অপরের অধিকার যে কোনো মূল্যে পৌঁছে দেয়ার পর আল্লাহর নিকট কৃত অপরাধের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করলে আল্লাহ মাফ করবেন। হারাম সম্পত্তির অভিশাপ থেকে মুক্তির জন্যে কোনো বিজ্ঞ মুফতি বা ইসলামী আইনবিদের পরামর্শ গ্রহণ করলে পরিস্থিতি বিবেচনায় তারা উপযুক্ত পরামর্শ দিতে পারেন।
প্রশ্ন : আমাদের গ্রামের মসজিদের তহবিলে বেশ কিছু টাকা জমা হয়ে আছে। প্রয়োজনীয় ব্যয়ের পরও এ টাকা থেকেই যায়। এখন এ তহবিল থেকে কোন জনহিতকর কাজে ঋণ প্রদান করা যাবে কি না, জানাবেন।
মুহা. আবদুস সালাম সরদার
মান্দা, নওগাঁ।
উত্তর : মসজিদের টাকা অন্য কোন কাজেই লাগানো যাবে না। কর্জও দেয়া চলবে না। মসজিদের উন্নয়ন বা স্থায়ী আয়ের জন্যে এ টাকা ব্যয় করা যেতে পারে। মসজিদভিত্তিক কোরআন শিক্ষার প্রসার বা দ্বীনি শিক্ষাখাতে মসজিদের উদ্বৃত্ত টাকা ব্যয় করা যায়। তবে এটি মসজিদ পরিচালনা কমিটি কর্তৃক বিজ্ঞ মুফতী সাহেবগণের পরামর্শে করতে হবে। ব্যক্তিগতভাবে কেউ এটা করবেন না। -আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন