Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

ডিএমপির ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বর্ণিল আয়োজনে উদযাপন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

নানা আয়োজনে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। গতকাল সকালে ডিএমপির বিভিন্ন ইউনিটে র‌্যালি, কেক কাটা, আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে বিকেলে ডিএমপি হেডকোয়ার্টার্স থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি রাজধানীর বিভিন্ন সড়ক পদক্ষিণ করে রাজারবাগ পুলিশে লাইন্সে গিয়ে শেষ হয়।

তবে র‌্যালি শুরু হওয়ার আগে ঢাকা মহানগর পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সে বক্তব্য রাখেন- আইজিপি মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী ও ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে আইজিপি মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বলেন, ঢাকা শহরকে নিরাপদ রাখতে ডিএমপি সদস্যরা সাত দিনই ২৪ ঘণ্টা কাজ করে যাচ্ছেন। আমরা চেষ্টা করছি ঢাকার প্রত্যেকটি থানাকে বিশ্বাস ও আস্থার কেন্দ্রস্থল হিসেবে গড়ে তুলতে। আমরা চাই মানুষ সেবার জন্য থানায় আসবে। আর ফেরার সময় তারা হাসিমুখে ফিরে যাবে।

ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা ৪৪ বছর ধরে চেষ্টা করেছি, জনতার পুলিশ হতে। বিশ্বাস ও ভালোবাসার উপরে একজন পুলিশ সদস্যের কিছু পাওয়ার থাকে না। আমরা চেষ্টা করেছি রাজধানীবাসীর বিশ্বাস ও ভালোবাসা অর্জন করতে। আর সেই লক্ষ্যেই আমাদের প্রত্যেকটি পুলিশ সদস্য কাজ করে যাচ্ছেন। পুলিশের উপর আস্থা রাখায় নগরবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আস্থা অর্জনই ডিএমপির একমাত্র লক্ষ্য।

র‌্যালি শেষে গতকাল রাতে রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে নাগরিক সংবর্ধনা ও মনোজ্ঞ সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান মিয়া কামাল। এ সময় তিনি বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে আজও জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় ডিএমপি পুলিশ সাফল্যজনকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এই ইউনিটের অতীতে লোকবল কম থাকলেও বর্তমানে এর পরিধি বাড়ানো হয়েছে। থানা করা হয়েছে ৫০টি। একইসঙ্গে থানায় যেন সব ধরনের মানুষ গিয়ে উপকার পায়, সে বিষয়ে পুলিশকে বিশেষ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, কোনো পুলিশ সদস্যের দায়িত্বে অবহেলা বা অসাদাচরণের অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নিচ্ছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এ কারণে আমি ডিএমপি পুলিশের উত্তরোত্তর সমুদ্ধি কামনা করছি।

এছাড়াও রাজারবাগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দেশের খ্যাতনামা অভিনেতা, অভিনেত্রী, সংগীত ও নুত্যশিল্পীরা এবং বাংলাদেশ পুলিশ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদের শিল্পীরা উপস্থিত ছিলেন। পরে তারা গান, নৃত্য পরিবেশেন করেন।

এদিকে, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ট্রাফিক উত্তর বিভাগের সকল সদস্যদের মাঝে কেক ও মিষ্টি বিতরণ করা হয়। গতকাল সকালে ট্রাফিক উত্তর অফিসের সম্মেলন কক্ষে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় ট্রাফিক উত্তর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. সাইফুল হক বলেন, ‘শান্তি শপথে বলীয়ান’ এই মূলমন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে ডিএমপি জননিরাপত্তা বিধান ও আইন শৃংখলা রক্ষার দ্বায়িত্ব পালন করে আসছে। ট্রাফিক উত্তর বিভাগের সকল পুলিশ সদস্যদের ডিএমপির মূলমন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে নিরলসভাবে কাজ করে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা সুষ্ঠু ও স্বাভাবিক রাখার প্রতি সকল অফিসার এবং ফোর্সদের নির্দেশ প্রদান করেন তিনি।

এছাড়াও নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে ডিএমপির সকল থানা, ফাঁড়িসহ বিভিন্ন ইউনিট একযোগে প্রতিষ্ঠা দিবস উদযাপন করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডিএমপি


আরও
আরও পড়ুন