Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১০ সফর ১৪৪২ হিজরী

৪৫ বছরেও নিয়োগ পাননি কোনো নারী শিক্ষক

রাবির ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগ

রাবি সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভুতত্ত¡ ও খনিবিদ্যা বিভাগে প্রতিষ্ঠার ৪৫ বছর পেরিয়ে গেলেও নিয়োগ পাননি কোনো নারী শিক্ষক। এমনকি নারী শিক্ষার্থীরা আবেদন করলেও তাদের নিয়োগ দেয়া হয়নি কেউ কেউ এমন অভিযোগ করেছেন বিভাগ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। বিষয়টি লিঙ্গ বৈষম্য কিনা তা নিয়েই প্রশ্ন রাখছেন বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট নারী শিক্ষকেরা।
সূত্রে জানা যায়, বিভাগটির প্রতিষ্ঠা ১৯৭৫ সালে। বর্তমান শিক্ষকের সংখ্যা ২২ জন। যার মধ্যে অধ্যাপক রয়েছেন ১৬ জন, বাকি ৬ জন প্রভাষক।
বিভাগ সূত্রে জানা যায়, ২০০১ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত প্রায় ১৪ বছর নিয়োগ বন্ধ ছিলো। তারপর সর্বশেষ ২০১৫ সালে একবার নিয়োগ হয়েছে। সেখানে ৬ জন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়।
বিশ^বিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সোমা দেব বলেন, বিজ্ঞানের এই সব বিভাগগুলোতে মেয়ে শিক্ষার্থীরা কম ভর্তি হন এটা একটা কারণ দেখাতে পারেন। তবে ৪৫ বছর ধরে একটা বিভাগ চলছে সেখানে নারী শিক্ষক নিয়োগ পাননি এটা আশ্চর্যজনক বিষয়। কারণ মেয়েরাও এখন অনেক ভালো করছেন। তারপরও নারীরা নিয়োগ না পাওয়া দুঃখজনক এবং আমার প্রশ্নও বটে কেনো সেখানে নারী শিক্ষক নিয়োগ পাচ্ছে না?
বিভাগটিতে প্রতিবর্ষে ৬০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হন। এর মধ্যে ১৫ থেকে ২০ জন নারী শিক্ষার্থী থাকেন বলে জানা গেছে এবং ফলাফলে মেয়েরা এগিয়ে আছে গত কয়েক বছর ধরে।
নিয়োগের সময়ে নারী শিক্ষার্থী আবেদন করেননি? এমন প্রশ্নের জবাবে ভূতত্ত¡ ও খনিবিদ্যা বিভাগের সভাপতি ড. সুলতান উল ইসলাম জানান বলেন, নিয়োগের সময়গুলোতে তারা আবেদন করেছেন। তবে কেনো নিয়োগ পাননি সে বিষয়টি বিভাগের তৎকালীন দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকরা বলতে পারবেন।
নারী শিক্ষার্থীরা লিঙ্গ বৈষম্যের শিকার কিনা জানতে চাইলে বিভাগের সভাপতি সুলতান উল ইসলাম বলেন, আমরাও চাই নারী শিক্ষক নিয়োগ পান। এখানে লিঙ্গ বৈষম্যের কিছু নেই। আমার সভাপতি থাকাকালীন নিয়োগ হলে যোগ্যতার বিচার করা হবে। সে ছেলে কি মেয়ে সেটি দেখা হবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শিক্ষক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ