Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

সীমান্ত হত্যা বেড়েছে সেমিনারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

ভারত সীমান্তে হত্যা আগের চেয়ে বেড়েছে। আগে কম ছিল। গত কয়েকদিনে সীমান্ত হত্যা বেড়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে রাজধানীর একটি হোটেলে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন আয়োজিত ‘মানবাধিকার সুরক্ষা এবং নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধে করণীয়’ শীর্ষক এক সেমিনারে এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি আরো বলেন, সীমান্ত হত্যা নিয়ে আমাদের দু’দেশের মধ্যে আন্ডারস্ট্যন্ডিং রয়েছে। আমি কিছুদিন আগে ভারতে গিয়েছিলাম। সে দেশের হোম মিনিস্টারের সঙ্গে আমরা দীর্ঘ আলাপ করেছি। সীমান্ত হত্যা নিয়ে আমরা সব সময় বলে এসেছি, যাতে বন্ধ করা হয়।

গত কয়েকদিন ধরে এ সীমান্ত হত্যা বেড়ে গিয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এর সঙ্গত কারণটা কি আপনারা অনেকেই জানেন। তবে আমরা এটা নিয়ে কাজ করছি যাতে এটা কমিয়ে আনা যায়। তাই দুই দেশের যা যা করণীয় সেটা আমরা করবো। ইতোমধ্যে পতাকা বৈঠক থেকে শুরু করে সব রকমের আলোচনা হচ্ছে। আমাদের বিজিবি-বিএসএফের সঙ্গেও সবসময় কথা হচ্ছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে উপযুক্ত চিকিৎসা দেয়ার জন্য বাংলাদেশের সর্বোচ্চ চিকিৎসা কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। যদিও তার যে রোগ, সেগুলো স্থায়ী রোগ। যেমন ডায়াবেটিক, আথ্রাইটিজ- এ সমস্ত রোগে তিনি ভুগছেন। কাজেই তাকে যে উপযুক্ত চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না এটা সত্যি নয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন- জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক নাছিমা বেগম, সার্বক্ষণিক সদস্য ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামালসহ অন্যরা।

অন্যদিকে গতকাল অপর এক অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এদেশকে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের আস্তানা বানানোর চেষ্টা হয়েছিল। কিন্তু পুলিশ সদস্যদের সাহসী ভূমিকার কারণে তাদের সে পরিকল্পনা ভেস্তে গেছে। মানুষ এখন শান্তিতে বাস করছে। অনেক ধরনের জঙ্গী সংগঠন বিভিন্ন সময়ে হামলা ও সহিংসতা চালিয়েছে। কিন্তু হলি আর্টিজান হামলার পর পুলিশ জঙ্গিবাদের শেকড় উপড়ে ফেলেছে। জঙ্গি কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিনিয়ত মনিটরিং চালানো হচ্ছে।

তিনি বলেন, জঙ্গিদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের বিশেষ ইউনিট গড়ে তোলা হয়েছে। অত্যাধুনিক সরঞ্জামাদির সাহায্যে বাহিনীকে শক্তিশালী করা হয়েছে। পুলিশের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার লোকজনও জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছে।



 

Show all comments
  • Md.Shahporan Shah ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:২৪ এএম says : 0
    হমু মূর্খ যখন রাজা হয় তখন দেশের এই অবস্থা হয়
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হত্যা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ