Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ মাঘ ১৪২৭, ১৪ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ফিলিস্তিনের কৃষিপণ্য রফতানির রাস্তাটিও বন্ধ করে দিল ইসরায়েল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:২৮ পিএম

কয়েক মাস ধরে চলমান বাণিজ্যযুদ্ধের মধ্যে গতকাল ফিলিস্তিনের কৃষিপণ্য রফতানি রাস্তাটাও আটকে দিয়েছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। এর ফলে উভয় পক্ষের মধ্যে নতুন করে সহিংসতার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। খবর নিউইয়র্ক টাইমস।
ইসরায়েলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, প্রতিরক্ষামন্ত্রী নাফতালি বেনেটের নির্দেশ অনুযায়ী তারা তাদের ভূমি ব্যবহার করে ফিলিস্তিনিদের কৃষিপণ্য রফতানি করতে দেবে না। মূলত ইসরায়েলের নিয়ন্ত্রিত সীমানা দিয়ে জর্ডান হয়ে কৃষিপণ্য রফতানি করে থাকে ফিলিস্তিন। এটিই বহির্বিশ্বে সরাসরি পণ্য রফতানির জন্য পশ্চিমতীরের একমাত্র পথ। যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনার জেরে চলমান উত্তেজনার মধ্যেই এ ঘোষণা দিল ইসরায়েল।
ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সীমান্ত চৌকিতে ইসরায়েলি সেনারা গতকাল তাদের সবজির চালান আটকে দিয়েছে। এসব সবজি বাইরে রফতানির জন্য নেয়া হচ্ছিল। গত বছর ইসরায়েলে সবজি রফতানি হয়েছিল ৮ কোটি ৮০ লাখ ডলারের। পশ্চিমতীরের মোট সবজি রফতানির মধ্যে এর পরিমাণ ৬৮ শতাংশ।
গত সেপ্টেম্বরে ইসরায়েল থেকে গরুর গোস্ত আমদানি না করার সিদ্ধান্ত নেয় ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ। মূলত এরপরই উভয় পক্ষের মধ্যে বাণিজ্যদ্ব›দ্ব শুরু হয়। ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের দাবি ছিল, ইসরায়েল তাদের কাছে যে ১ লাখ ২০ হাজার গবাদি পশু রফতানি করে, তার অধিকাংশই ছিল অন্য দেশ থেকে আমদানি করা। এর পরিপ্রেক্ষিতে ফিলিস্তিন ইসরায়েলের বদলে সরাসরি অন্য দেশ থেকে গবাদি পশু আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়। ইসরায়েলনির্ভরশীলতা কমানোর লক্ষ্যেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।
ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ইসরায়েলি বাহিনী বিভিন্ন চেকপয়েন্টে জাহাজবোঝাই শাক-সবজি আটকে দিয়েছে, যেগুলো বিদেশে রফতানির জন্য যাচ্ছিল।
ফিলিস্তিনি কৃষিমন্ত্রী রিয়াল আল-আত্তারি বলেন, ইসরায়েল রফতানিকারকসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়েছে রোববার থেকে জর্ডান সীমান্ত দিয়ে বিশ্ববাজারে ফিলিস্তিনি কৃষিপণ্য রফতানি নিষিদ্ধ হচ্ছে।
দেশটির উপ-অর্থমন্ত্রী তারিক আবু লাবান জানান, সম্প্রতি ফিলিস্তিন সরকার ইসরায়েল থেকে পশু আমদানি বন্ধ ঘোষণা করার কারণেই এই নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তারা।
ফিলিস্তিন পশু আমদানি বন্ধ করার পরপরই ইসরায়েলের বাজারে বড় ধস নামে। এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কর্তৃপক্ষকে বারবার চাপ দিচ্ছিল ইসরায়েলি খামারিরা। এর জেরে ফিলিস্তিনের বেশ কিছু পণ্যে নিষেধাজ্ঞা দেন ইসরায়েলি প্রতিরক্ষামন্ত্রী নাফতালি বেনেট। তাতে ক্ষোভের আগুন আরও বেড়ে যায় ফিলিস্তিনিদের। তারা একাধারে ইসরায়েলি সবজি, ফলমূল, পানীয় বর্জন ও নিষিদ্ধ করতে শুরু করে।
ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ বলছে, নিষেধাজ্ঞা তুলতে ইসরায়েলের ওপর চাপ বাড়াতেই তারা এ ব্যবস্থা নিয়েছে। বিপরীতে ইসরায়েলের দাবি, আগে তাদের ওপর পশু রফতানি নিষেধাজ্ঞা তুলতে হবে ফিলিস্তনকে।
গতমাসে হোয়াইট হাউসে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর উপস্থিতিতে নিজের কল্পিত মধ্যপ্রাচ্য শান্তি পরিকল্পনা উন্মোচন করেন ট্রাম্প। কথিত ওই শান্তি পরিকল্পনায় ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের জন্য একের পর কঠিন শর্ত পালনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে সামরিকশক্তি মুক্ত থাকতে হবে বলেও শর্ত দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি ইসরায়েলের দখলকৃত ফিলিস্তিনি অঞ্চলগুলোতে ইসরায়েলি সার্বভৌমত্ব গড়ে তোলারও ঘোষণা দিয়েছেন ট্রাম্প। সূত্র: আল জাজিরা



 

Show all comments
  • jack ali ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:১৬ পিএম says : 0
    O' Allah wipe out bastard country ISREAL from Palestinian land... Ameen
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসরায়েল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ