Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০১ জুন ২০২০, ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ০৮ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

যৌতুকেই শেষ ভালোবাসা

সীতাকুন্ড (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০২ এএম

প্রেম করেই বিয়ে করেছিলেন তুশা আর শিবলু। স্বপ্ন দেখছিলেন নিজেদের সাজানো একটি সংসারের। তবে যৌতুকের করালগ্রাসে সেই স্বপ্ন পূরণ হলো না তার। শ্বশুর বাড়ী যাওয়ার আগেই স্বামীর সাথে অভিমান করে আত্মহত্যা করে তুশা।
এ ঘটনায় গতকাল শুক্রবার নিহত তুশা’র পরিবার বাদি হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে সীতাকুন্ড মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
তুশার খালাতো ভাই মো. রায়হান বলেন, লালবেগ এলাকার বাসিন্দা ইমতিয়াজ শিবলুর সাথে কয়েক মাস আগে আমার খালাতো বোনের পরিচয় হয়। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। তারা এক পর্যায়ে কোর্ট ম্যারেজ করে। ঘটনাাটি জানাজানি হলে তুশার পরিবার প্রথমে মেনে না নিলেও পরে মেনে নিয়েছেন। তবে এ সর্ম্পক কোন ভাবেই মেনে নিতে চায়নি শিবলুর মা মাজেদা বেগম। পরবর্তীতে শিবলু তার মাকে রাজী করালেও তুশার পরিবারের উপর চাপিয়ে দেওয়া হয় এক যৌতুকের পাহাড়। মাজেদা বেগম যৌতুক হিসাবে একটি পাকা ঘর, দুই হাজার বরযাত্রী খাওয়ানোর ব্যবস্থা ও সবধরনের ফার্নিচারের। যদি শর্ত পূরণ করা না হয় তাহলে তুশাকে তালাক দেওয়া হবে বলে জানান।
তিনি আরো বলেন, দুই দিন আগে তুশা’র সাথে শিবলু’র মোবাইলে কথা হয়। শিবলু তুশাকে জানায় তার মায়ের শর্ত পূরণ না হলে তাকে তালাক দেয়া হবে। তুশা শিবলুকে জানায়, তাদের পক্ষে এত যৌতুক দেওয়াটা মোটেই সম্ভব নয়। গত বৃহস্পতিবার তাদের মধ্যে এই বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয় এবং তালাকের কথা শুনে তুশা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় অভিমান করে ঘরের সিলিং এর সাথে ওড়না পেঁচিয়ে শেষ পর্যন্ত আত্মহত্যা করে।
সীতাকুন্ড মডেল থানার ওসি মো. ফিরোজ হোসেন মোল্লা জানান, মেয়েটির লাশ উদ্ধার করে চমেক মর্গে পাঠানো হয়েছে। আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে গতকাল শুক্রবার নিহত তুশারের পরিবার বাদি হয়ে স্বামীসহ পরিবারের ৪ জনের বিরুদ্ধে সীতাকুন্ড মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আসামীদের গ্রেফতারের প্রস্তুতি চলছে।



 

Show all comments
  • Md Maroof Korhi ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:৫৯ এএম says : 0
    প্রেম করে এক অন্যায় করছে,আর আত্মহত্যা করে চিরস্থায়ী অন্যায় করে গেল।
    Total Reply(0) Reply
  • ব্যস্ত ডাক্তার ফারুক ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:০০ এএম says : 1
    মানুষ কৃপ্রবৃত্তিকে দমন না করতে পারলে এভাবেই চলে যেতে হবে। ইহকাল ও পরকাল দুকুলই হারাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল রাহী ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:০১ এএম says : 1
    কিসের ভালোবাসা, সবই স্বার্থপরতা। কোথাও শরীরের স্বার্থ পূরণ কোথাও আর্থিক স্বার্থ পূরণ এই তো।
    Total Reply(0) Reply
  • সত্য বলবো ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:০২ এএম says : 0
    শয়তান চূড়ান্ত ভাবে সফল হয়ে গেল। আজ মুসলিম সমাজের কি যে অবস্থা।
    Total Reply(0) Reply
  • কে এম শাকীর ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:০৩ এএম says : 1
    হায় আফসোস, চিরস্থায়ী পাপি হয়ে গেলা শুধু কুপ্রবৃত্তির অনুসরণ করে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভালোবাসা

১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
১০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ