Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

জনবল সঙ্কটে ভুগছে ভারতের প্রতিরক্ষা গবেষণা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৫৩ পিএম

ভারতের ডিফেন্স রিসার্চ অ্যাণ্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশানে (ডিআরডিও) বিজ্ঞানীদের জন্য ৪৩৬টি নতুন পদ সৃষ্টির প্রস্তাবটি বহু মাস ধরে ঝুলিয়ে রেখেছে নরেন্দ্র মোদি সরকার। প্রতিষ্ঠানটির গবেষণার পরিধি বেড়ে যাওয়ায় অতিরিক্ত জনবল এখন তাদের জন্য অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়েছে। ডিআরডিও’র জন্য ৭ হাজার ৩৫৩ জন বিজ্ঞানীর পদের অনুমোদন থাকলেও এ মুহূর্তে জনবল রয়েছে ৭,১০৭ জন। তাদের যে ৫২টি ল্যাবরেটরি রয়েছে, সেখানে বেশি কিছু নতুন প্রকল্প জমা পড়েছে। যেগুলোর মধ্যে পরবর্তী প্রজন্মের মিসাইল থেকে নিয়ে মনুষ্যবিহীন কমব্যাট ড্রোন ডিজাইনের বিষয় রয়েছে। কিন্তু জনবল সঙ্কটের কারণে তাদের কাজ ব্যাহত হচ্ছে।

প্রতিশ্রুত আর‍অ্যাণ্ডডি প্রকল্পগুলোর জন্য বিজ্ঞানী জনবল যেহেতু অপর্যাপ্ত, সে কারণে ২০১০ সালের এপ্রিলে প্রতিষ্ঠানটির জনবল পরিকল্পনা বোর্ডের পক্ষ থেকে ৪,৯৬৬ জন বিজ্ঞানী নিয়োগের সুপারিশ করা হয়েছিল। কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয় সে প্রস্তাবকে কাটছাট করে ১,৩১৬ টি পদে নামিয়ে আনে। ডিপার্টমেন্ট অব এক্সপেনডিচার এই সংখ্যা আরও কমিয়ে আনে এবং প্রথম ধাপে মাত্র ৪৩৬টি পদের অনুমোদন দেয়। তবে, মোদির নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিসভা কমিটিতে ৪৩৬টি পদের চুড়ান্ত অনুমোদনের বিষয়টি এখনও ঝুলে আছে বলে সূত্র ডিএইচকে জানিয়েছে।

ডিআরডিও মুখপাত্রের কাছে এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তিনি কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা সম্প্রতি এমপিদের একটি প্যানেলের কাছে জানিয়েছেন যে, ২০০১ সাল থেকে ডিআরডিওর কাজের চাপ ছয়গুণের বেশি বাড়লেও একই জনবল দিয়ে সেগুলো করতে হচ্ছে তাদের। এই বছরগুলোতে বিজ্ঞিনী জনবল ৭,২৫৫ জনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখা হয়েছে। ফলে প্রতিষ্ঠানটিতে তাদের জনবলের সর্বোচ্চ ব্যবহার করতে হচ্ছে। আরও সঙ্কটের বিষয় হলো ২০১৪ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে ১৪২ জন বিজ্ঞানী ডিআরডিও ছেড়ে গেছে।

২০১৮ সালের এক রিপোর্টে প্রতিরক্ষা বিষয়ক পার্লামেন্টারি স্ট্যান্ডিং কমিটি জানায় যে, বিভিন্ন ডিআরডিও ল্যাবে বর্তমানে ৯৩টি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের কাজ চলছে। এর মধ্যে রয়েছে অগ্নি ফোর ও অগ্নি ফাইভ ব্যালিস্টিক মিসাইল, ট্যাঙ্ক-বিধ্বংসী নাগ মিসাইল, বিমান বাহিনীর জন্য বিয়ন্ড ভিজুয়াল রেঞ্জ আস্ত্রা মিসাইল, এয়ারবর্ন রাডার এডাব্লিউএসিএস, অর্জুন ব্যাটল ট্যাঙ্ক এবং তেজাস লাইট কমব্যাট এয়ারক্র্যাফট।

৩০টি বড় চলমান প্রকল্পের মধ্যে ছয়বার প্রকল্পের মূল্য বদলাতে হয়েছে এবং ১৬ বার প্রকল্পের সময় বাড়াতে হয়েছে। তাছাড়া, ১২টি প্রকল্প রয়েছে পাঁচ বছরের বেশি পুরনো। এদিকে, ১১তম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় ১৭টি বড় ধরণের প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে, যেগুলোর কোনটিই শেষ হয়নি। সূত্র: এসএএম।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন