Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬, ০৫ শাবান ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

জিম্বাবুয়ে একেবারে খারাপ দল, তা কিন্তু না : তাইজুল

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:১৮ পিএম

২০১৪ সালের অক্টোবরে মিরপুর টেস্টে ৩৯ রানের বিনিময়ে ৮ উইকেট নিয়েছিলেন তাইজুল ইসলাম। ২৮ টেস্টে এখনো তিনি ঝুলিতে ভরেছেন ১০৮ উইকেট। এর ৩৫টি উইকেটই তাইজুল পেয়েছেন জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। সবশেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ২০১৮ সালে যে সিরিজ খেলেছিল বাংলাদেশ সেখানেও তিনি সেরা বোলার ছিলেন। সেবার ১৮ উইকেট নিয়েছিলেন তাইজুল।

স্বাভাবিকভাবে তাই বলা যায় জিম্বাবুয়ে তাইজুলের ‘প্রিয় প্রতিপক্ষ’। বাঁহাতি স্পিনারের ভেলকি নিশ্চয় আবার দেখা যাবে। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই তিনি সফল এমন কথা তাইজুল মানতে নারাজ। তার কথায়, ‘এই কথাটা আসলে ভালো লাগল না। আমি শুধু জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই উইকেট পেয়েছি, তেমন তো না! আরও অনেক দলের বিপক্ষেই উইকেট পেয়েছি। যাদের বিপক্ষেই খেলেন, ভালো জায়গায় বল না করলে কখনো সাফল্য পাবেন না। ওরা একেবারে খারাপ দল, তা কিন্তু না। ভালো জায়গায় বল না করলে যে কেউ দাপট দেখাবে।’

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জেতাটা স্বাভাবিক। কিন্তু হারলেই সর্বনাশ। গোটা সংবাদমাধ্যম তো বটেই বোর্ডেরও রোষানলে পড়তে হবে ক্রিকেটারদের। সেটা জানা আছে তাইজুলেরও। ২০১৮ সালে সর্বশেষ জিম্বাবুয়ের বাংলাদেশ সফরে এমন ঘটনা ঘটেছিল। সিলেট টেস্ট হেরে গিয়েছিল বাংলাদেশ। তাইজুল বলছেন,‘ দুর্ঘটনা বলব না। দুর্ঘটনা ভিন্ন বিষয়। আমরা খারাপ খেলেছিলাম তাই হেরেছি। সেই সিরিজের পরের টেস্টে ভালো খেলেছি বলে জিতেছি। ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। ভালো না খেললে হারাটাই স্বাভাবিক।’

জিম্বাবুয়ে সম্প্রতি ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে দারুন খেলেছে। সেই ধারাবাহিকতা তারা বাংলাদেশেও ধরে রাখতে চাইছে। তাদের উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান রিগিস চাকাভা তো সিলেট টেস্টের পুনরাবৃত্তি ঘটাতে চাইছেন,‘ অবশ্যই জেতা প্রয়োজন, সে প্রতিপক্ষ জিম্বাবুয়ে হোক কিংবা অন্য দল। এখন জয়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জিতলে আত্মবিশ্বিাস বাড়বে। সেটা হলে দলের জন্যই ভালো হবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন