Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, ১২ শাবান ১৪৪১ হিজরী

ভারত থেকে প্রথম চালান বেনাপোলে হস্তান্তর

৪ হাজার কোটি টাকার পাইপ

বেনাপোল অফিস | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

এই প্রথম ভারতের শিলিগুড়ি থেকে বাংলাদেশের পার্বতীপুর পর্যন্ত দীর্ঘ ১৩০ কিলোমিটার পাইপ লাইনে আসবে জ্বালানী তেল।
বাংলাদেশ অংশে ১২৫ কিলোমিটার ও ভারতের অংশে ৫ কিলোমিটার বসবে পাইপলাইন। দু’দেশের মধ্যে সৌহার্দ্য সম্প্রীতির অংশ হিসাবে ভারত সরকারের দেয়া পাইপলাইনে তেল সরবরাহে ৪ হাজার কোটি টাকা সহায়তা অনুদানের প্রথম চালানের পাইপ বেনাপোল স্থলবন্দরে প্রবেশ করেছে। মঙ্গলবার সকালে দু’দেশের ব্যবসায়ীরা বেনাপোল টিটি টার্মিনালে আনুষ্ঠানিক হস্তান্তর কার্যক্রম শুরু করেছে।
২০১৮ সালের ৯ এপ্রিল বাংলাদেশ-ভারত সরকার এ প্রকল্পে যৌথ স্বাক্ষর করেন। ওই বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী পাইপলাইনে তেল সরবরাহ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। প্রথম চালানে ভারত থেকে আসলো ৫০ ট্রলি পাইপ। ২৫ প্রকার সরঞ্জামাদি দেবে ভারত। মার্চ নাগাদ শুরু হবে কার্যক্রম।
২০২২ সালের জুুনে শেষ হবে কাজ। ১৩০ কি.মি. মাটির তলা দিয়ে বসানো হবে পাইপলাইন। ইতিমধ্যে ৬ ফুট করে ভূমি একোয়ার ও ৪ ফুট রিকুইজিশনের কাজ শেষ পর্যায়ে। যার আমদানিকারক বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন ও রফতানিকারক ভারতের নমালীগ্রাহা রিফাইনারি লিমিটেড।
বাংলাদেশ-ভারত-চেম্বার অব কমার্স পরিচালক (সিএন্ডএফ এজেন্ট) মতিয়ার রহমান জানান, সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কে আরো একটি মাইলফলক সৃষ্টি হলো। কোন সুদ ছাড়া-ই ভারত সরকারের দেয়া সহায়তায় পাইপলাইনে আসবে তেল। অপচয় সময় ও অর্থ সাশ্রয়ী হবে, কমবে তেলের দাম। মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করা হয় তেল। খরচ ও সময় লাগে বেশি। যানজট পরিবহন ও ওয়াগন বিকলসহ বিভিন্ন কারণে তেল সরবরাহে বিঘ্ন ঘটে। তবে পাইপলাইনে তেল আমদানিতে ব্যবসায়ি ক্রেতা ও ভোক্তা সাধারণ উপকৃত হবে। দু’দেশের সরকারকে ধন্যবাদ জানান তিনি।
মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেড জেনারেল ম্যানেজার ইঞ্জিনিয়ার টিপু সুলতান জানান, বিশ্বব্যাপি তেল আমদানিতে পরিবহন বিপনন ও হস্তান্তরসহ একাধিক স্পটে যোগাযোগ ব্যয় বৃদ্ধির কারণে তেলের দাম বেড়ে যায়। তবে ভারত থেকে পাইপলাইনে তেল আমদানিতে সাশ্রয়ী হবে। দ্রুত গতিতে স্বল্প সময়ে অল্প খরচে আসবে তেল উপকৃত হবে দু’দেশ।
নমালীগ্রাহা রিফাইনারি লিমিটেড ও শিলিগুড়ি ভারত চীফ ম্যানেজার (প্রজেক্ট) নিরোদ কমার হালুয়া জানান, বাংলাদেশ ভারত সরকারের যৌথ উদ্যোগে চালু হচ্ছে পাইপলাইন। উত্তর এলাকার তেল সংকটে ব্যাপক কাজে আসবে এ লাইন, অটোমেটিক মেশিনে আসবে তেল। আধুনিকমানের সব সুযোগ সুবিধা থাকবে। শুরু হয়েছে কার্যক্রম।
আমদানিকারক-গালফ ওরিয়েন্ট সিউস লিমিটেড ঢাকা ম্যানেজিং ডাইরেক্টর শেখ মাহফুজ হামিদ জানান, ইন্ডিয়া বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপলাইনের এমইউ স্বাক্ষরের পর মঙ্গলবার বেনাপোল দিয়ে প্রবেশ করেছে পাইপের চালান। কাজ শুরু হবে মার্চে, শেষ হবে ২০২২ সাল নাগাদ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ