Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ মার্চ ২০২০, ১৭ চৈত্র ১৪২৬, ০৫ শাবান ১৪৪১ হিজরী

ছাত্রীদের ওড়না খুলে রাখলেন শিক্ষক

আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ড্রেস কোড নিয়ে বিতর্কের পর পরিবর্তন আনা হয়েছে। পরিবর্তিত মূল ড্রেস কোডে রয়েছে সালোয়ার, কামিজ, ক্রস বেল্ট ওড়না ও জুতা। ছেলেদের জন্য টুপি, মেয়েদের জন্য স্কার্ফ ও অতিরিক্ত হিসেবে বড় ওড়না এতোদিন বাধ্যতামূলক ছিল। নতুন শিক্ষাবর্ষ থেকে এগুলোকে ঐচ্ছিক করা হয়েছে মাধ্যমিক শাখার জন্য। তবে কলেজ শাখার ড্রেস কোড আগের মতোই রয়েছে। ঐচ্ছিক অর্থ হচ্ছে- ছাত্ররা চাইলে টুপি পরতে পারবে, ইচ্ছে না হলে পরবে না। একইভাবে ছাত্রীরা স্কার্ফ ও ওড়নাও ইচ্ছে অনুযায়ী পরতে পারবেন। কিন্তু ঐচ্ছিক ঘোষণার পরও বনশ্রী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ছাত্রীদের ওড়না ও বোরকা পরতে বাধা দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন স্কুলের শিক্ষার্থী অভিভাবকরা। তারা বলেন, যারাই বড় ওড়না পরে স্কুলে যাচ্ছেন তাদের ওড়না খুলে রাখা হচ্ছে এবং বোরকা পরে আসলে স্কুলে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলেও সতর্ক করা হয়েছে।
বনশ্রী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ৮ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী অভিযোগ করে বলেন, গতকাল মঙ্গলবার যারাই বড় ওড়না (ঐচ্ছিক পোষাক) পরে ক্লাসে গিয়েছিলেন তাদের সকলের ওড়না খুলে রেখে দেন ইংরেজি বিষয়ের শিক্ষক রুবিনা সুলতানা। ওই শিক্ষার্থী বলেন, একজন নারী শিক্ষক হয়েও তিনি ছাত্রীদের বলেন, ওড়না যারা পরে থাকবে তাদের ক্লাস করতে দেয়া হবে না। ক্লাস করতে চাইলে ওড়না খুলে রাখতে হবে। এরপর তিনি ছাত্রীদের ওড়না খুলে নিয়ে টেবিলে রেখে দেন। একইসাথে যে তিনজন ছাত্রী বোরকা পরে এসেছিলেন তাদেরকে রুবিনা সুলতানা পরবর্তীতে বোরকা পড়ে না আসার জন্য নির্দেশ দেন। বোরকা পরে আসলে স্কুলে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলেও সতর্ক করে দেন।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে ৮ম শ্রেণির আরেক ছাত্রী বলেন, ওড়না পরার ক্ষেত্রে শিক্ষকরা বলছেন, ‘ওড়না পরতে পারবে তবে তা গলা ও মাথার মধ্যে পেঁচিয়ে রাখতে হবে। কোনভাবেই বুক বা পিঠে রাখা যাবে না। যারা এমনভাবে ওড়না পরবে তাদেরকে ক্লাস থেকে বের করে দেয়ারও হুমকী দেখা হচ্ছে বলে ওই ছাত্রী অভিযোগ করেন।
আরেক শিক্ষার্থীর অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ঐতিহ্যবাহী এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একধরণের পোষাক পরে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করে আসছেন। কিন্তু হঠাৎ করেই সেই পোষাক পরিবর্তন আনার কি প্রয়োজন হলো? পরিবর্তনের পর ওড়নাকে ঐচ্ছিক করা হয়েছে। ঐচ্ছিক মানে কি? প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, যার ইচ্ছে হবে সে পরবে, ইচ্ছে হবে না পরবে না। কিন্তু এই ঐচ্ছিক পোষাকে বাধ্যবাধকতা কেন? ওড়নার কারণে ছাত্রীদের ওপর শিক্ষকরা মানসিক চাপ দিচ্ছেন।
এ বিষয়ে জানতে বনশ্রী শাখা আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের ইংরেজি শিক্ষক রুবিনা সুলতানা বলেন, ড্রেস কোডের মধ্যে ওড়না নেই। ঐচ্ছিকও করা হয়নি। চাইলে কেউ হিজাব করে মাথা ও গলা ঢাকতে পারবে। কিন্তু অবশ্যই কাধের নিচে স্কুলোর মনোগ্রাম দেখা যেতে হবে। ক্রস বল্টে দিয়ে অনেক ছাত্রীর বুক ঢাকতে সমস্যা হয় এজন্য বড় ওড়না ব্যবহার করতে পারবে কিনা জিজ্ঞেস করলে তিনি বলেন, আমাদের করার কিছু নেই। চেয়ারম্যান যেভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন আমরা সেভাবেই করেছি। ছাত্রীদের ওড়না খুলে নিতে বাধ্য হয়েছি। বোরকার বিষয়ে রুবিনা বলেন, ছাত্রীরা চাইলে স্কুলে বোরকা পরে আসতে পারবে তবে ক্লাস করতে হবে বোরকা খুলে।
আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের প্রিন্সিপাল শাহান আরা বেগম বলেন, ওড়না নিষিদ্ধ করা হয়নি, ঐচ্ছিক করা হয়েছে। যারা পরতে চায় তারা মাথায় হিজাবের মতো করে পরতে পারবে। তবে কোনভাবেই যেনো দুই দিকে ঝুঁলে না থাকে। বনশ্রী শাখায় ওড়না খুলে রাখার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে তিনি জানেন না। শিক্ষকদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে কিভাবে শিক্ষার্থীরা ক্লাস করতে পারবেন। তবে কেউ কেউ এই বিষয়টিকে এবং পরিস্থিতিকে ঘোলাটে করার জন্য অতিউৎসাহী হয়ে কাজ করছেন বলেও মন্তব্য করেন শাহান আরা বেগম।
প্রতিষ্ঠান পরিচালনা কমিটির সদস্য (শিক্ষক প্রতিনিধি) মাকসুদা আক্তার মালা বলেন, সারাদেশের স্কুল ড্রেসে ‘ক্রস বেল্ড ওড়না’ থাকে ৪ ইঞ্চি। আমাদেরও আগে ৪ ইঞ্চি ছিলো, পরিবর্তিত ড্রেস কোডে করা হয়েছে ৬ ইঞ্চি। ফ্রগ বদলে কামিজ করা হয়েছে। স্কুল ড্রেসে প্রচলিত কামিজের ঘের থাকে ২৪ ইঞ্চি, সেটি বাড়িয়ে ২৬ থেকে ২৮ ইঞ্চি করা হয়েছে। এছাড়া ছেলেদের টুপি, মেয়েদের স্কার্ফ, হিজাব ও অতিরিক্ত বড় ওড়নাটি ঐচ্ছিক করা হয়েছে।#



 

Show all comments
  • Saiful Islam ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০১ এএম says : 1
    তার পরে ও কেউ কেউ সংসদে দাড়িয়ে বলবে এগুলো মিথ্যে কথা,সব বানোয়াট।
    Total Reply(0) Reply
  • M.A. Aziz ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০২ এএম says : 2
    ঐ নরপশুকে উলঙ্গ করে ঢাকা শহরের অলিগলি দৌড়ানো হোক
    Total Reply(0) Reply
  • মো আনিসুর রহমান ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০২ এএম says : 1
    হায়রে দেশ গায়ের কাপর খুলে নিলে সংবিধান বিরোধী হয়না, আল্লাহ পাকের বিধান নামাজের আদেশ করলে সংবিধান বিরোধী হয়ে যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • Aminul Islam Navil ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০২ এএম says : 3
    যে মহিলার শিক্ষক বোরকা ওড়না পরতে বাধা দিচ্ছেন তাকে ...করে স্কুল চত্বরে হাটানো হোক
    Total Reply(0) Reply
  • Mou Islam ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০২ এএম says : 1
    কাদের হাতে ক্ষমতা চিন্তা করা যায়???
    Total Reply(0) Reply
  • Shiplu Islam ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০৩ এএম says : 1
    আহারে আমরা দিন দিন অত্যাধুনিক হয়ে যাচ্চি পর্দা কে হারাম করে ফেলছি এর জন্য কে দায়ী?
    Total Reply(0) Reply
  • Md Khairul Islam ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০৩ এএম says : 1
    এই কুলাঙ্গারদের বিচার আল্লাহই করবে
    Total Reply(0) Reply
  • ন্যায়ের পক্ষে জামায়াত শিবির ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:০৪ এএম says : 1
    তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এ
    Total Reply(0) Reply
  • বাবু ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৪১ এএম says : 1
    যেহেতু ছাত্রীদের ওরনা সমস্যা তাই আমি মনে করি আগে ম্যাডামদের ড্রেসের পরিবর্তন করা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Habib ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:৩২ এএম says : 1
    বুঝলাম না শিক্ষক নামের অমানুষ গুলো বারবার বলতেছে ওড়না পরলে মাথায় পেঁচিয়ে রাখতে হবে এখন কথা হলো মেয়েরা ওড়না পরে কি জন্য নিশ্চয়ই বুক ঢাকার জন্য মাথা ঢাকা পরে আসবে এখানে দেখলাম এক শিক্ষক নামের কলঙ্ক সে বলেছে যে কাঁধের নিচে স্কুলোর মনোগ্ৰাম দেখা যেতে হবে তার কাছে কি বুক ঢাকার চেয়ে স্কুলোর মনোগ্ৰাম বের করে রাখা বড় হয়ে গেল সে কার কথা অনুযায়ী কাজ করল তাকেও আইনের আওতায় আনা হোক
    Total Reply(1) Reply
    • Amir ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০৪ পিএম says : 4
      মনোগ্রাম শরীরের অন্য যেকোনো জায়গায়ও লাগানো যেতে পারে ;যেখান থেকে এটা দেখা যায়।
  • Mazumder ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:২৪ পিএম says : 1
    Where is our evil law minister? Is it not against our constitution? When someone try to implement islamic principles, immediately this leftist minister starts shouting by saying it’s against our constitution, but when some people try to destroy islamic principals, this people start clapping. BangaBandhu knew these criminals and did not tolerate these evils in his lifetime. Our Prime Minister should take these issue seriously, because these types issues destroy the image of government.
    Total Reply(0) Reply
  • Mazumder ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:২৪ পিএম says : 1
    Where is our evil law minister? Is it not against our constitution? When someone try to implement islamic principles, immediately this leftist minister starts shouting by saying it’s against our constitution, but when some people try to destroy islamic principals, this people start clapping. BangaBandhu knew these criminals and did not tolerate these evils in his lifetime. Our Prime Minister should take these issue seriously, because these types issues destroy the image of government.
    Total Reply(0) Reply
  • Habib Ahsan ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৬:০২ এএম says : 1
    আল্লাহ চীনকে ক্ষমা করেন নি, যখন চীন আল্লাহর বিধানের বিরুদ্ধে কথা বলেছিল। আল্লাহ এই মুনাফিকদেরকেও ক্ষমা করবেন না, যারা ইসলামের বিরুদ্ধে বিধি তৈরিতে জড়িত। আল্লাহ, দয়া করে আমাদের বোনদের এই মুনাফিকদের হাত থেকে বাঁচান। ......
    Total Reply(0) Reply
  • রায়হান কবির ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:৩৮ পিএম says : 1
    আল্লাহ তায়ালা সহ্য করেন কিন্তু কখনো ভুলে জাননা। দেশের অবৈধ সরকারের ছোয়ায় আজ সব কিছুই অবৈধ ভাবে সংঘটিত হচ্ছে। মুসলিম দেশে থেকে ঐ সকল পশু গুলা এই ধরনের কার্যকলাপ করার সাহস কোথা থেকে পায়। এগুলার জবাব ইনশাআল্লাহ খুব শিঘ্রই সরকার দিতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • razib ahmed ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:০৬ এএম says : 1
    ম্যাডাম এক বার ও কি ভেবে দেখেছেন যদি আপনার মেয়ে হত। আপনি কি একই কাজ করতেন। যা একবার ভেবে দেখেন তো, কাল যদি আপনাক বলে বিকিনি পরে আসতে হবে তাহলে আপনি কি তাই পরে আসবেন।
    Total Reply(0) Reply
  • সম্রাট ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:৫১ এএম says : 1
    অশনি সংকেত, ঔদ্ধত্য পূর্ণ কার্যকলাপ, তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি ।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ জহিরুল ইসলাম জহির ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৫৫ এএম says : 1
    বাংলাদেশের সকল সচেতন ব্যক্তিদের উদ্দেশ্য করে আমি বলতে চাই ভাই নিজেরা দয়াকরে কাদাঁ ছুরা-ছুড়ি বাদ দিয়ে জাতীয় সমস্যার দিকে খেয়াল দেন। ওই অশব্য বন-পশু শিক্ষিকারা কি শিক্ষা দিবে তারা নিজেরাইত শিক্ষিত হতে পারেনি!!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Md RuhulAmin ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:০৮ এএম says : 1
    এরা কেমন শিক্ষক? কি শিক্ষা দিতে এসেছে, নাকি যাত্রার মঞ্চ বানাতে এসেছে? ওড়না খুলে কি বুঝাতে চাচ্ছে? নারীর সম্মান বাচাতে আদর্শ শিক্ষা দিতে কতটুকু গুরুত্ব রাখছে শিক্ষক-শিক্ষিকারা ?
    Total Reply(0) Reply
  • Bibi kulsum ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:১৬ এএম says : 1
    আমার মেয়ে মুগদা আইডিয়াল স্কুলে পড়ে । তাদের কে ও ক্লাস টিচার এক ই কথা বলেছেন। ওড়না বা স্কাপ পরা যাবে না সে। স্কাইপ পরলে শুধু মাথা ডাকবে তবে বুক খোলা দেখাতে হবে।নতুবা টিসি দিয়ে দিবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mazumder ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:২৩ পিএম says : 1
    Where is our evil law minister? Is it not against our constitution? When someone try to implement islamic principles, immediately this leftist minister starts shouting by saying it’s against our constitution, but when some people try to destroy islamic principals, this people start clapping. BangaBandhu knew these criminals and did not tolerate these evils in his lifetime. Our Prime Minister should take these issue seriously, because these types issues destroy the image of government.
    Total Reply(0) Reply
  • মীযানমুহাম্মদ ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৫৯ পিএম says : 2
    এটা বাংলাদেশ। এ দেশ মুসলিমদের। তার পরও যদি আমার দেশেরমেয়েরা ওড়না পরে স্কুলকলেজে যেতে নাপারে। তবে? কাদের ইশারায় এ দেশ চলে? এটা কি তবে আমেরিকার পথে চলছে?
    Total Reply(0) Reply
  • H.K.M.AL-AMIN KHAN ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৪৭ এএম says : 1
    ওরা মানুষ নয়, মানুষ নামের পসু, তা না হলে ৯২% মুসলমানদের দেশে, এই আইন কি করে করতে পারে, আমার মনে হয় কারো ইন্দনে এই কাজ করতেছে, সরকারের প্রতি অনুরোধ করব এই বিষয় গুলা আইনের আওতায় আনার জন্য।
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Kanchol Molla ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:৩০ এএম says : 1
    I want to punishment that teacher
    Total Reply(0) Reply
  • a.k.m.kauser ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৩:৫৮ পিএম says : 1
    eisob varotio dalal nastik teacher der khub druto greftar korte hobe....are j meyeta amol korte chai ta k soriat niye thakte diccena...egula abar teacher kiser? era potita teacher notun amdani hoice...oder k biday korun noito touba korun
    Total Reply(0) Reply
  • Bashir Ahmed ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:৪৯ পিএম says : 1
    আল্লাহ ......রে সঠিক বুঝার তাওফিকদান করুন
    Total Reply(0) Reply
  • jack ali ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:২৫ পিএম says : 1
    We are muslim... our government is against islam as such this shaitan teacher had the courage to take away hijab from girls.
    Total Reply(0) Reply
  • অজ্ঞাত ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:৩০ এএম says : 3
    বিদ্যালয়ে যাবে শিক্ষা গ্রহন করতে লজ্জা নিবারণ করতে যেইটুকু কাপড় পরার দরকার এতোটুকু কাপড় পরলে চলে বড় ওড়না, হিজাব, বোরকা,টুপি পরার এতো ইচ্ছা পূষন করলে ১৪০০০ বছরের আগের শিক্ষা নেওয়ার জন্য অনুরুদ করা হচ্ছে এবং আধুনিক শিক্ষা থেকে দূরে থাকুন।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Billal Hossain ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:০১ এএম says : 1
    আল্লাহ তাদেরকে সঠিক বুঝার তাওফিক দান করুন
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Yeanin islam Raju ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৩২ পিএম says : 0
    তাদের এবং জাতির কছে প্রশ্ন ? পর্দা কে খেলাপ করে স্কুলের লগু দেখানোটা জরুরী হয়ে পরলো?এটা মনে রাখতে হবে এটা ৯২.৪% মুসলমানের বাংলাদে। র
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Yeanin islam Raju ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৩২ পিএম says : 0
    তাদের এবং জাতির কছে প্রশ্ন ? পর্দা কে খেলাপ করে স্কুলের লগু দেখানোটা জরুরী হয়ে পরলো?এটা মনে রাখতে হবে এটা ৯২.৪% মুসলমানের বাংলাদে। র
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Yeanin islam Raju ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৩৩ পিএম says : 0
    তাদের এবং জাতির কছে প্রশ্ন ? পর্দা কে খেলাপ করে স্কুলের লগু দেখানোটা জরুরী হয়ে পরলো?এটা মনে রাখতে হবে এটা ৯২.৪% মুসলমানের বাংলাদে। র
    Total Reply(0) Reply
  • Salah uddin ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৩৫ পিএম says : 0
    এই নরপশু মহিলাকে গ্রেফতার করা হকপ
    Total Reply(0) Reply
  • Salah uddin ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:৩৫ পিএম says : 0
    এই নরপশু মহিলাকে গ্রেফতার করা হকপ
    Total Reply(0) Reply
  • MD.MAHBUB.ALOM ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:৫৫ পিএম says : 0
    বাংলাদেশে যে ভিন্ন রকম কিছু ঘটতে যাচ্ছে সেটা সুস্পষ্ট, কিন্তু সেই ঘটা টা অবশ্যই ভালো কিছু বয়ে আনবে না বাংলাদেশের জন্য।
    Total Reply(0) Reply
  • আলী হায়দার ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২১ এএম says : 0
    আমাদের ছেলে মেয়েকে এইরকম ইছকুলে না পাঠানোই ভাল,দেশে অনেক ভাল ইছকুল কলেজ আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • আলী হায়দার ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২১ এএম says : 0
    আমাদের ছেলে মেয়েকে এইরকম ইছকুলে না পাঠানোই ভাল,দেশে অনেক ভাল ইছকুল কলেজ আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • আলী হায়দার ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২২ এএম says : 0
    আমাদের ছেলে মেয়েকে এইরকম ইছকুলে না পাঠানোই ভাল,দেশে অনেক ভাল ইছকুল কলেজ আছে।
    Total Reply(0) Reply
  • JahangirKabirBappi ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:৩২ এএম says : 0
    Not a fair decision
    Total Reply(0) Reply
  • Ahmed Zahan Rumy ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:৩৩ এএম says : 0
    ঐ স্কুলের শিক্ষিকারা শাড়ী পরতে পারবে না এবং থ্রি পিস পরলে উড়না ব্যবহার করতে পারবে না। এ নিয়মটাও চালু করা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Amir ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:৫৯ এএম says : 0
    ‘ওড়না পরতে পারবে তবে তা গলা ও মাথার মধ্যে পেঁচিয়ে রাখতে হবে। কোনভাবেই বুক বা পিঠে রাখা যাবে না। --------বুক ঢাকার জন্যই তো ওড়না,বুক দেখার জন্যই যদি শিক্ষক এই স্কুলে চাকরি নিয়ে থাকেন তবে তাকে স্কুল থেকে বিদায় করে দেওয়াই উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • ইলিয়াস বিন নাজেম ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৩:০৫ পিএম says : 0
    সঠিক মন্তব্য করা এখন নিরাপদ নয়; শুধু জানতে ইচ্ছে করে, ৯২% মুসলমানের দেশ চালাচ্ছে কারা?
    Total Reply(0) Reply
  • Shakhawat Hossain ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:৪৬ এএম says : 0
    ওড়না পরতে পারবে তবে তা গলা ও মাথার মধ্যে পেঁচিয়ে রাখতে হবে। কোনভাবেই বুক বা পিঠে রাখা যাবে না। --------বুক ঢাকার জন্যই তো ওড়না,বুক দেখার জন্যই যদি শিক্ষক এই স্কুলে চাকরি নিয়ে থাকেন তবে তাকে স্কুল থেকে বিদায় করে দেওয়াই উচিত। শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের উদ্দেশ্য একই... আপনার মেয়ের ইজ্জতের হেফাজত এর দায়িত্য আপনাকেই নিতে হবে। সবাই একসাথে আপনাদের ছেলেমেয়েকে অন্য বিদ্যালয়ে ভর্তি করার ব্যবস্থা নিন।।
    Total Reply(0) Reply
  • MOHEUDDIN ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৪ পিএম says : 0
    এরা কেমন শিক্ষক? কি শিক্ষা দিতে এসেছে, নাকি যাত্রার মঞ্চ বানাতে এসেছে? ওড়না খুলে কি বুঝাতে চাচ্ছে? নারীর সম্মান বাচাতে আদর্শ শিক্ষা দিতে কতটুকু গুরুত্ব রাখছে শিক্ষক-শিক্ষিকারা ?
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Yousuf ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৭:১১ পিএম says : 0
    চিনের করোনা্ভাইরাস থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিত। আল্লাহ পাক সাময়িক সময়ের জন্য ছাড়দেন ছেড়ে দেন না। শিক্ষক/ শিক্ষিকা নামের ঐ কুলাগ্ঙারদের বিরোদ্ধে সৌচ্চার হতে হবে না হলে আল্লাহর আযাব থেকে রেহাই নাই। গুটি কয়েক নাস্তিকের জন্য সমস্ত বান্দাদের উপর আল্লাহর রাগ কাম্য হতে পারে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Ataur Rahman ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:২১ এএম says : 0
    I hate the syste. Why girls not cover body with her orna?
    Total Reply(0) Reply
  • Fahima Sarker ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:৩৪ পিএম says : 0
    মুসলিমপ্রধান এই দেশটা আজ চলছে কোন ইহুদী-নাসারার নীতিমালায়। ভাবতে অবাক লাগে মুসলিম নামের লোগো ব্যবহার করে আমরা কোন শয়তানি পথের অনুসরণ করছি!
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ হাফিজ উল্লাহ ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:৪৩ পিএম says : 0
    যারা ওড়নার বিরুদ্ধে কথা বলে তাদের আইনের আওতায় আনা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ হাফিজ উল্লাহ ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:৪৪ পিএম says : 0
    এরা কেমন শিক্ষক? কি শিক্ষা দিতে এসেছে, নাকি যাত্রার মঞ্চ বানাতে এসেছে? ওড়না খুলে কি বুঝাতে চাচ্ছে? নারীর সম্মান বাচাতে আদর্শ শিক্ষা দিতে কতটুকু গুরুত্ব রাখছে শিক্ষক-শিক্ষিকারা
    Total Reply(0) Reply
  • waliul ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৪৩ পিএম says : 0
    এখন থেকেই যদি মেয়েদেরকে বোরকা হিজাব নিষিদ্ধ করা হয় দুদিন পরেই তারা পাপিয়া হয়ে যাবে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাত্রী


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ