Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০৬ এপ্রিল ২০২০, ২৩ চৈত্র ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪১ হিজরী

হজরত বাইজিদ বোস্তামি (রহ:)-এর নিকট ‘জিকরুল্লাহ’ এর তাৎপর্য

খালেদ সাইফুল্লাহ সিদ্দিকী | প্রকাশের সময় : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

সুফিয়ায়ে কেরামের প্রাথমিক যুগে বিখ্যাত সাধক সুলতানুল আরেফীন হজরত বাইজিদ বোস্তামি (রহ.)-এর নাম বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। তিনি মারেফাত ও জিকিরকে অবিচ্ছেদ্য, একে অপরের জন্য অপরিহার্য ও পরিপূরক মনে করেন। তিনি বলেন, ‘যে ব্যক্তি খোদাকে জানে-চেনে, সে খোদার জিকির ব্যতীত কখনো তার জবান খোলে না।’ (তাজকেরাতুল আওলিয়া)

তিনি বলতেন, ‘ইলম বা জ্ঞানের মধ্যে জীবন, মারেফাতের মধ্যে শান্তি এবং জিকিরের মধ্যে জীবিকা নিহিত রয়েছে।’ হজরত বাইজিদ বোস্তামি (রহ.) আত্মশুদ্ধি লাভের জন্য জিকিরের ওপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেন। তিনি বলেন, একবার আমি আল্লাহ তাআলার দরবারে মোনাজাত করার সময় আরজ করি, ‘আপনার পর্যন্ত আমি কিভাবে পৌঁছাব?’ গায়বী আওয়াজ আসে, ‘হে বাইজিদ! প্রথমে নিজের নফসকে তিন তালাক দাও এবং ফের আমার জিকির করো।’ (তবকাতে কোবরা)

‘তাজকিয়ায়ে নফস’ অর্থাৎ আত্মশুদ্ধি লাভ করার জন্য হজরত বাইজিদ বোস্তামি (রহ.) জিকিরকে অতি উচ্চ মর্যাদায় স্থান দিয়েছেন। তিনি অভ‚ক্ত থেকে আল্লাহর জিকিরে আত্মনিয়োগ করার নীতি অবলম্বন করেছিলেন এবং অন্যদেরকেও তা অবলম্বন করার জন্য উপদেশ দিতেন। তাঁর মতে, অভুক্ত-অনাহারব্রত পালন করলে এবং আল্লাহর জিকিরে নিমগ্ন থাকলে নফসের শক্তি হ্রাস পায় এবং অন্তর পাক-পবিত্র হয়ে যায় এবং মানুষের মধ্যে উজ্জ্বলতা ও ফেরেশতার গুণাবলী প্রকাশ পায়। কেননা ফেরেশতাগণ অনাহারে থেকেই জিকির করতে থাকেন।
অভুক্ত বা উপবাস যাপনের একটি নিয়মিত ও প্রথাগত নিয়ম ইসলামে রোজা রাখার বিধান, যা দুনিয়ার সকল ‘এলহামী’ ধর্মেও সর্বদা বিভিন্ন আঙ্গিকে চালু ছিল এবং রয়েছে। জিকরুল্লাহ (আল্লাহর স্মরণ) এবং পবিত্রতা অন্তরের সম্পর্ক সুদৃঢ় করার জন্য রসূলুল্লাহ (সা.)-এর একটি হাদিস রয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, ‘প্রত্যেক বস্তুকে ছাফ ও পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য কোনো না কোনো জিনিসের প্রয়োজন হয়, অন্তরকে কালিমামুক্ত ও পাক-ছাফ করার জন্যও একটি জিনিসের প্রয়োজন, আর তা হচ্ছে জিকরে এলাহী অর্থাৎ আল্লাহর স্মরণ।

হজরত বাইজিদ বোস্তামি (রহ.) ‘আরেফ’-এর গুণাবলী প্রসঙ্গে বলেন, আরেফ বলা হয় সে ব্যক্তিকে যে আল্লাহর জিকিরে কোনো বিরতি দেয় না, তাঁর হক আদায়ে বিরক্তি বোধ করে না এবং আল্লাহ ব্যতীত কারো প্রতি ঝুঁকে পড়ে না। (তবকাতে সুফিয়া)



 

Show all comments
  • Saimoon Hasan ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:২৮ এএম says : 0
    মহান আল্লাহ পাক পবিত্র কুরআনে ইরশাদ করেনÑ ‘তোমরা আমাকেই স্মরণ করো, আমি তোমাদের স্মরণ করব’ (সূরা বাকারা : ১৫২)।
    Total Reply(0) Reply
  • জাহিদ খান ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:২৯ এএম says : 0
    দুনিয়া ও আখেরাতে শান্তি ও মুক্তির একমাত্র উপায় হচ্ছে আল্লাহর জিকির। বেশি বেশি করে মহান আল্লাহর জিকির করার নির্দেশ দিয়ে আল্লাহ পাক ইরশাদ করেনÑ ‘হে ঈমানদারগণ! তোমরা আল্লাহকে অধিক স্মরণ করবে এবং সকাল-সন্ধ্যা আল্লাহর পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা করবে’ (সূরা আহজাব : ৪১-৪২)।
    Total Reply(0) Reply
  • চাদের আলো ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:২৯ এএম says : 0
    সদাসর্বদা আল্লাহর জিকির করার নির্দেশ দিয়ে মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ করেনÑ ‘তোমার প্রতিপালককে মনে মনে সবিনয় ও সশঙ্কচিত্তে অনুচ্চস্বরে প্রত্যুষে ও সন্ধ্যায় স্মরণ করবে এবং তুমি উদাসীন হবে না’ (সূরা আরাফ : ২০৫)।
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ মোশাররফ ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৩০ এএম says : 0
    মানবতার শান্তির একমাত্র পাথেয় হচ্ছে আল্লাহর জিকির। আল্লাহর জিকিরের ফজিলত ও গুরুত্ব সম্পর্কে অগণিত হাদিস রয়েছে। এ সম্পর্কে কয়েকটি হাদিস উপস্থাপন করা হলোÑ ১. হজরত আবু হুরায়রা রা: বর্ণিত হাদিসে রাসূল সা: ইরশাদ করেনÑ আল্লাহ পাক বলেছেন, আমি আমার বান্দার কাছেই থাকি যখন সে আমার জিকির করে এবং আমার জিকিরের জন্য তার ওষ্ঠ নড়ে (বুখারি)।
    Total Reply(0) Reply
  • তোফাজ্জল হোসেন ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৩০ এএম says : 0
    হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রা: বর্ণিত হাদিসে রাসূলে পাক সা: ইরশাদ করেনÑ ‘প্রত্যেক জিনিসের একটি মাজন রয়েছে, আর অন্তরের মাজন হলো আল্লাহর জিকির’ (বায়হাকি, দাওয়াতুল কবির)।
    Total Reply(0) Reply
  • sm wahiduzzaman ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:৪৩ এএম says : 0
    Thanks for special publication
    Total Reply(0) Reply
  • সাইফ ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:৫৮ এএম says : 0
    জনাব লেখক সাহেবকে এবং ইনকিলাব সংশ্লিষ্ট সকলকে অনেক ধন্যবাদ। আল্লাহ্‌ নিশ্চই আপনাদেরকে এর উত্তম প্রতিদান দেবেন। আল্লাহ্‌ আমাদেরকে এর থেকে উপকৃত হওয়ার তৌফিক দান করুণ এবং আমাদেরকে আর রহমত দিয়ে পূর্ন করুণ। আমাদের দেশকে রক্ষা করুণ সকল প্রকার শত্রু থেকে।
    Total Reply(0) Reply
  • Monjur Rashed ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:০৭ এএম says : 0
    Very relevant & much anticipated publication. Please keep on continuing
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলাম

৩০ মার্চ, ২০২০
২৭ মার্চ, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন