Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ এপ্রিল ২০২০, ২০ চৈত্র ১৪২৬, ০৮ শাবান ১৪৪১ হিজরী

রোববার খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় কারাবন্দী বিএনপি’র চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন শুনানি আগামী রোববার। গতকাল বুধবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের ডিভিশন বেঞ্চ আবেদনটি শুনানির জন্য গ্রহণ করেন।

এদিকে জামিন আবেদনকারী আইনজীবী সাগির হোসেন লিয়ন জানান, আগামী রোববার আবেদনটি শুনানির জন্য দৈনন্দিন কার্যতালিকায় থাকবে। গতকাল খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান। এর আগে গত মঙ্গলবার জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়া জামিন চেয়ে আবেদন করা হয়। আবেদনে খালেদা জিয়ার গুরুতর অসুস্থতার কারণ দেখানো হয়। বিদেশে তার উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে তার উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে না। তাই জামিন পেলে তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য লন্ডন যাবেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী প্যানেল সূত্র জানায়, গত বছরের ৩১ জুলাই বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং বিচারপতি এস এম কুদ্দুস জামানের তৎকালীন ডিভিশন বেঞ্চে এ মামলায় একবার খালেদা জিয়ার জামিন চাওয়া হয়েছিল। আবেদনটি পরে খারিজ হয়ে যায়। খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে একই বছর ১৪ নভেম্বর খালেদা জিয়ার পক্ষে আপিল করা হয়। সেই আপিলও খারিজ হয়ে যায়। কারাগারেই থেকে যান খালেদা জিয়া।

এছাড়া ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৭ বছরের দন্ডের বিরুদ্ধে খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে অর্থদন্ড স্থগিত এবং সম্পত্তি জব্দের ওপর স্থিতাবস্থা দিয়ে ২ মাসের মধ্যে ওই মামলার নথি তলব করেন। একই বছরের ২০ জুন বিচারিক আদালত থেকে মামলার নথি হাইকোর্টে পাঠানো হয়।

গত বছর ১৮ নভেম্বর হাইকোর্টে আপিল করা হয়। ২০১৮ সালের ২৯ অক্টোবর পুরান ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের প্রশাসনিক ভবনের ৭ নম্বর কক্ষে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক মো. আখতারুজ্জামান জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও অর্থদন্ড দেন।

ইতোমধ্যে কারাবন্দী খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য সরকারের কাছে সুপারিশ করতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ভিসি’র কাছে আবেদন করেন তার পরিবারের সদস্যরা। গত ১১ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার স্বজনদের পক্ষ থেকে এ আবেদন করেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে সরকারকে ‘নমনীয়’ হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ফোন করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ওবায়দুল কাদের নিজেই সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান। যদিও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছেন তারা খালেদা জিয়ার জামিন চাইলেও প্যারোল নিয়ে কোনো কথা বলেননি। এরমধ্যেই জামিন চেয়ে নতুন করে উচ্চ আদালতে জামিন আবেদন করা হয়েছে।



 

Show all comments
  • সোহেল আরমান ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:০২ এএম says : 0
    জামিন পাবেন আল্লাহর রহমতে
    Total Reply(0) Reply
  • Mukhlesur Rahman ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৫ এএম says : 1
    ম্যাডামের গুলশানের বাসায় প্রহরারত চার পুলিশকে যখন উঠিয়ে নেয়া হয়েছিল তখনি প্রতীয়মান হচ্ছিল এই অবৈধ জালিম সরকার দেশ নেত্রীকে জেল থেকে সহসা মুক্তি দিবে না। সেই জন্য ওখানে আর কোন বিশেষ নিরাপত্তার প্রয়োজন নেই। বিভিন্ন তথ্য প্রমাণ যাচাই বাছাই ও পর্যবেক্ষণ করে আরো প্রতীয়মান হচ্ছিল যে কোন কোন মামলায় লোক দেখানো জামিন দেয়া হলেও বিভিন্ন কুটকৌশল, তালবাহানা ও সময় ক্ষেপণের মাধ্যমে এই অবৈধ সরকার জামিন প্রক্রিয়া ব্যাহত করবে। আদৌ আইনি প্রক্রিয়ায় তাকে মুক্ত করা সম্ভব হবে কিনা সেটাই এখন দেখার বিষয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Atia Akram ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৬ এএম says : 1
    সরকারের কাছে আবেদন শর্ত ছাড়া খালেদা জিয়াকে জাবিন দেওয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • এক হৃদয় হীন ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৬ এএম says : 0
    জমিন পাবেন ইনশাআল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Sk Shurov Khan ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৭ এএম says : 0
    খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই আমরা সকলেই
    Total Reply(0) Reply
  • Md Ismail ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৭ এএম says : 1
    এই গুলো সবই বর্তমান অবৈধ আওয়ামী সরকারের হাতে বানানো লাড্ডু। দিল্লি কা লাড্ডু এক এক রূপিয়া জূবি খায়গা উবি ফসতায়গা।জুবি নেহি খাগয়গা ওবিও ফসতায় গাঁ।
    Total Reply(0) Reply
  • Shadin Torun ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৫৮ এএম says : 1
    খালেদা একবার লন্ডনে যেতে পারলে আওয়ামিলীগ যে পর্যন্ত ক্ষমতা থাকবে সেই পর্যন্ত বাংলাদেশে ফিরার কথা মনের ভুলেও চিন্তাও করবে না। ১০০% গ্যারান্টি দিলাম।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খালেদা জিয়া

২৬ মার্চ, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ