Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, ১২ শাবান ১৪৪১ হিজরী

আইডিয়ালের ছাত্রীদের ওড়না খুলে ক্লাসে ঢুকাতে বাধ্য করলেন শিক্ষিকা : নেটিজেনদের নিন্দার ঝড়

শাহেদ নুর | প্রকাশের সময় : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৩:২০ পিএম

রাজধানীর আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের বনশ্রী শাখায় ৮ম শ্রেণিতে যেসব ছাত্রী ওড়না পরে গিয়েছিলেন, ক্লাস শুরুর আগে তাদের ওড়না খুলতে বাধ্য করেন ইংরেজি বিভাগের শিক্ষিকা রুবিনা সুলতানা। মঙ্গলবার বোরকা পরে যাওয়া তিন ছাত্রীকে বোরকা পরে না আসার জন্য কড়া সতর্ক বার্তাও দেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে দৈনিক ইনকিলাবে সংবাদ প্রকাশের পর অভিভাবকদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভ সৃষ্টি হয়। কিন্তু শিক্ষিকা রুবিনা সুলতানার অবস্থানের পরিবর্তন হয় নি। তিনি গতকাল বুধবারও ৮ম শ্রেণির ছাত্রীদের ওড়না খুলে ক্লাসে প্রবেশ করতে বাধ্য করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি নিয়ে তিব্র প্রতিবাদ, ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছে নেটিজেনরা। পাশাপাশি এই শিক্ষিকার বহিঃস্কার ও শাস্তির দাবি জানিয়েছে তারা।

এই ইস্যুতে ফাহিম আল ইসলাম ফেইসবুকে লিখেন, ‘এইসব সাম্প্রদায়িক শিক্ষিকাদের থেকে কোমল মতি শিক্ষার্থীরা কি শিখবে? যারা নিজেরাই মানুষকে, মানুষের ধর্মকে শ্রদ্ধা করতে জানে না?’

‘ইজ্জত বজায় রেখে চলা সব ধর্মের জন্যই ভালো। এতে মানুষের জীবন সুখের হয়। এতে বাধা দেওয়া অপরাধ। এইসব শিক্ষকদের জন্য কি কোন বিচার নাই?’ - খাইরুল ইসলাম লিটনের প্রশ্ন।

ইসলাম বিরোধী এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়ে আল মাসুদ সম্রাট লিখেন, ‘অনেকেই হয়তো বলবে, তাহলে ছাত্রছাত্রী এই স্কুলে ভর্তি না হলেই হয়, দেশে কি স্কুলের অভাব? তাদের উদ্দেশ্যে বলছি, এভাবে একটি স্কুল থেকে হিজাব, ওড়না বিতাড়িত করা হলে, কিছুদিন পর অন্য আরেকটি স্কুলেও তাই করা হবে। এভাবেই সমাজ থেকে ইসলামকে দূর করে জাতিকে অশ্লীলতা, নগ্নতা ও অপসংস্কৃতির দিকে নিয়ে যাওয়া হবে। তাই এখনই সোচ্চার হোন, এইসব ইসলাম বিদ্বেষী পদক্ষেপগুলোর বিরুদ্ধে।’

আবদুল গাফ্ফার লিখেন, ‘আসলে অভিভাবক হলো বোকা, ঢাকা শহরে কি আর স্কুল নেই? সমস্ত ছেলে মেয়েদের অন্য স্কুলে পাঠন। দেখবেন সব রুবিনা পালাবে।’

‘এটা কোন আদালতে আইন পাশ করলো যে, মেয়েদের শরীরের ঊড়না খুলে ক্লাসে ঢুকাতে হবে ? এটা পুরোটাই বেআইনি মেয়েদের পেটে জন্ম হয়ে মেয়েদের অপমান করা, এটা কখনও মেনে নেওয়ার মতো নয়। ’ - রাহা রিয়ার মন্তব্য।

এমডি দেলওয়ার হোসেনের দাবি, ‘এই মহিলাকে চাকরি থেকে বহিষ্কার করা হোক। ওর নিজের মেয়ে যদি হতো, তাহলে কি সে এইসব করতে পারতো? এদের থেকে জাতি কি শিক্ষা নিবে? এখন জাতীয়ভাবে ওদেরকে শিক্ষা দিতে হবে।’

‘ভালো জ্ঞানী ঈমানদার অভিভাবক অভিভাবকেরা নিশ্চয়ই আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজকে বয়কট করবেন। এই ধরনের প্রতিষ্ঠান বাচ্চারা পড়াশোনা করলে তার শিক্ষিত তো হবে ঠিক আছে, কিন্তু মানুষ হবে না। ‘ - মনে করেন রবিউল ইসলাম।

ক্ষোভ প্রকাশ করে ইসমাঈল মজুমদার লিখেন, ‘সাধারণ জনগণের স্কুলের সামনে গিয়ে প্রতিবাদ করা উচিৎ এবং শিক্ষিকা নামের ডাইনির বহিঃস্কার দাবি করা উচিৎ।’

শিক্ষিকার শাস্তির দাবি জানিয়ে আমিরুল ইসলাম লিখেন, ‘আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে ওড়না হিজাব ও বোরকা নিষিদ্ধের তীব্র নিন্দা জানাই। এহেন ধর্ম বিদ্বেষী অপকর্মের হোতাদেরকে আইনের আওতাভুক্ত করে কঠোর শাস্তি দাবী করছি।’



 

Show all comments
  • Mohamed Nurul Islam ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:২৬ পিএম says : 2
    এই ধরণের রুবিনাদের জন্য দেশে ধর্ষণ এর সংখ্যা বেড়ে গেছে. এদের যেনো দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি হয়. আশা করি প্রধান মন্ত্রী বিষয়টি ভালো ভাবে দেখবেন.
    Total Reply(0) Reply
  • Rajib Raj ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:২৫ পিএম says : 1
    একটি জাতির মেরুদণ্ডই বলা হয় শিক্ষাকে। একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কেমন হবে তা নির্ভর করে ওই প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক - শিক্ষিকাদের উপর। এখানে বুঝাই যাচ্ছে আজ শিক্ষা নামক সুশিক্ষিত জাতিগঠনের কারখানায়ও চলে ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত। জাতি এখান থেকে কি শিখবে? প্রধান শিক্ষিকা একজন মহিলা।অন্তত তার জায়গা থেকে একবার হলেও অনুধাবন করা উচিৎ ছিলো আরেকজন মেয়ের আক্ষেপটা। এগুলোই হয় যদি হয় শিক্ষার মুলনীতি তাহলে মনে রাখবেন ম্যাডাম আপনার মত মিয়া খলিফা এবং সানি লিওনও একেকজন মাস্টার। অতএব জোরপূর্বক কোনকিছু আদায় কখনোই মঙ্গল বয়ে আনে না।
    Total Reply(0) Reply
  • mahabubur rahman ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:২০ পিএম says : 2
    Because we are muslim,it is illigal rules for our nations.
    Total Reply(0) Reply
  • Sanowar ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:২০ পিএম says : 2
    মহিলাদের শরীরকে ডেকে রাখা আল্লাহরহুকুমে ঐ জগন্য বেহায়াপনা মহিলা মুসলিম নামের কলংক এজন্য ঐ নস্টা মহিলাকে চাকরি থেকে অব্যহতি দেওয়া এবং সে কি মুসলিম না নাস্তিক চেক করা দরকার
    Total Reply(0) Reply
  • mahabubur rahman ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:২১ পিএম says : 1
    because we are muslim, it is nasty rules for our nations.
    Total Reply(0) Reply
  • mahabubur rahman ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:২২ পিএম says : 2
    it is not perfect rules.
    Total Reply(0) Reply
  • Zulfiqur ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:০১ পিএম says : 0
    ওই টিচারকে অবিলম্বে বরখাস্ত করা দরকার,নতুবা ঐক্যবদ্ধভাবে তাকে অবরুদ্ধ করতে হবে। যারা বলেন এই স্কুলে না পড়লেই হয় তারা মূর্খতার পরিচয় দিয়ে রুবিনা নামক একজন নীতিভ্রষ্ট শিক্ষিকাকে উস্কে দিচ্ছেন। এমন অনৈতিক কর্মকান্ড এখনই রুখে না দিলে অন্যসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে একই অন্যায় চালু হতে পারে।
    Total Reply(0) Reply
  • নুমান মোহাম্মদ ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫১ পিএম says : 0
    ওর মেয়েকে কাপর ছাড়া রাস্তায় বাহির করে দিক দেখুক কেমন লাগে ?
    Total Reply(0) Reply
  • নুমান মোহাম্মদ ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫১ পিএম says : 0
    ওর মেয়েকে কাপর ছাড়া রাস্তায় বাহির করে দিক দেখুক কেমন লাগে ?
    Total Reply(0) Reply
  • md numan ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫২ পিএম says : 0
    ওর মেয়েকে কাপর ছাড়া রাস্তায় বাহির করে দিক দেখুক কেমন লাগে ?
    Total Reply(0) Reply
  • md numan ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫৩ পিএম says : 0
    ওর মেয়েকে কাপর ছাড়া রাস্তায় বাহির করে দিক দেখুক কেমন লাগে ?
    Total Reply(0) Reply
  • md numan ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫৩ পিএম says : 0
    ওর মেয়েকে কাপর ছাড়া রাস্তায় বাহির করে দিক দেখুক কেমন লাগে ?
    Total Reply(0) Reply
  • md numan ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫৩ পিএম says : 0
    ওর মেয়েকে কাপর ছাড়া রাস্তায় বাহির করে দিক দেখুক কেমন লাগে ?
    Total Reply(0) Reply
  • md numan ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৮:৫৩ পিএম says : 0
    ওর মেয়েকে কাপর ছাড়া রাস্তায় বাহির করে দিক দেখুক কেমন লাগে ?
    Total Reply(0) Reply
  • MD. NAZMUL Hasan ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:০৯ পিএম says : 2
    Really unfortunate, government should take initiative.
    Total Reply(0) Reply
  • Anwar ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:২৩ পিএম says : 2
    এই ধরণের রুবিনাদের জন্য দেশে ধর্ষণ এর সংখ্যা বেড়ে গেছে , এদের যেনো দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি হয় মহিলাদের শরীরকে ডেকে রাখা আল্লাহরহুকুম ঐ জগন্য বেহায়াপনা মহিলা মুসলিম নামের কলংক এজন্য ঐ মহিলাকে চাকরি থেকে অব্যহতি দেওয়া এবং সে কি মুসলিম না নাস্তিক চেক করা দরকার
    Total Reply(0) Reply
  • Zulfiqur ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:০১ পিএম says : 0
    ওই টিচারকে অবিলম্বে বরখাস্ত করা দরকার,নতুবা ঐক্যবদ্ধভাবে তাকে অবরুদ্ধ করতে হবে। যারা বলেন এই স্কুলে না পড়লেই হয় তারা মূর্খতার পরিচয় দিয়ে রুবিনা নামক একজন নীতিভ্রষ্ট শিক্ষিকাকে উস্কে দিচ্ছেন। এমন অনৈতিক কর্মকান্ড এখনই রুখে না দিলে অন্যসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে একই অন্যায় চালু হতে পারে।
    Total Reply(0) Reply
  • মোহাম্মদ হারুন ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:০৩ পিএম says : 0
    এদেশ থেকে ধর্মীয় অনুভুতি বিতাড়নের জন্য ওরা পরিকল্পিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে, এদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার এখনই সময়।
    Total Reply(0) Reply
  • হাসান মোহাম্মদ ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:২৬ পিএম says : 0
    বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম,, আল্লাহ তাআলা ঐ রুবিনাকে হেদায়েত দান করুন আমীন।
    Total Reply(0) Reply
  • হাসান মোহাম্মদ ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:২৬ পিএম says : 0
    বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম,, আল্লাহ তাআলা ঐ রুবিনাকে হেদায়েত দান করুন আমীন।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ সেলিম হোসেন ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ২:৩৩ পিএম says : 0
    এই শিক্ষিকার জন্য উচিত শিক্ষা দিতে হবে প্রধানমন্ত্রীর নিজে হাতে এবং সবার সামনে পরবর্তিতে কেউ এই কাজ না করে। এমন শিক্ষিকার কোন প্রতিষ্ঠানে জায়গা না দেওয়া হয় তাহলে সাড়াবিশ্ব দখতে পাই।
    Total Reply(0) Reply
  • Al kausher Alam ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ পিএম says : 0
    এই ম্যাডাম কে আজীবন বহিস্কার করা হক। আর এই মহিলা নাস্তিক হয়েগেছে । নাস্তিক মহিলা কাছে শিখা দেওয়া ঠিক না।
    Total Reply(0) Reply
  • Al kausher Alam ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ পিএম says : 0
    এই ম্যাডাম কে আজীবন বহিস্কার করা হক। আর এই মহিলা নাস্তিক হয়েগেছে । নাস্তিক মহিলা কাছে শিখা দেওয়া ঠিক না।
    Total Reply(0) Reply
  • Al kausher Alam ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ পিএম says : 0
    এই ম্যাডাম কে আজীবন বহিস্কার করা হক। আর এই মহিলা নাস্তিক হয়েগেছে । নাস্তিক মহিলা কাছে শিখা দেওয়া ঠিক না।
    Total Reply(0) Reply
  • Al kausher Alam ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ পিএম says : 0
    এই ম্যাডাম কে আজীবন বহিস্কার করা হক। আর এই মহিলা নাস্তিক হয়েগেছে । নাস্তিক মহিলা কাছে শিখা দেওয়া ঠিক না।
    Total Reply(0) Reply
  • Al kausher Alam ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:৪৫ পিএম says : 0
    এই ম্যাডাম কে আজীবন বহিস্কার করা হক। আর এই মহিলা নাস্তিক হয়েগেছে । নাস্তিক মহিলা কাছে শিখা দেওয়া ঠিক না।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Abu Bakar Siddik ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২১ পিএম says : 0
    রুবিনাকে ল্যাংটা করে রাস্তায় ছেড়ে দেয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • Md Abu Bakar Siddik ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১:২১ পিএম says : 0
    রুবিনাকে ল্যাংটা করে রাস্তায় ছেড়ে দেয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • মাহদী হাছান। ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:২৯ এএম says : 0
    আল্লাহপাকের হুকুমতের তথা শরীয়তের বিরুদ্ধে এই মহিলা কাজ করেছে, ও মুসলমান আল্লাহর আইনকে শ্রদ্ধা করে ঐ মহিলাকে জীবনের তরে উচিৎ শিক্ষা দিয়ে দেওয়া প্রয়োজন যাতে ভবিষ্যতে আর কোন বেয়াদব এই কাজ করার চেষ্ঠা না করে এবং সাহস না পায় । মুসলমান সজাগ হও, উপলব্দী করো ।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Tanvir ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৯:০৭ এএম says : 0
    very unfortunate step every body has right to follow thier own religious rules as well as culture . why School authority are allowing teacher to do this ! We request our honorable government to take initiate on this issue
    Total Reply(0) Reply
  • Sabbir Ahmed ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:২২ পিএম says : 0
    রুবিনা সুলতানার যেহেতু সংবাদ প্রকাশের পর ও টনক নড়েনি তাই অভিভাবকদের আন্দোলন করা উচিত। প্রয়োজনে তাসলিমা নাসরিনের মতো আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে বাধ্য করা হবে এ কুলাংগার নারী নামের কলঙ্ক কে এ শাহজালাল শাহ পরাণের পূণ্য ভূমি থেকে বিতাড়িত করা।
    Total Reply(0) Reply
  • রুহুল হক ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১০:৩২ এএম says : 0
    খোঁজ নেওয়া দরকার কোন শক্তির বলে সে এরকম আচরণ করল।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সোশাল মিডিয়া


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ