Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ০৭ এপ্রিল ২০২০, ২৪ চৈত্র ১৪২৬, ১২ শাবান ১৪৪১ হিজরী

মার্কিন নারীদের মধ্যে অ্যালকোহলজনিত মৃত্যু বাড়ছে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১১:১৭ এএম

অ্যালকোহল বা মদ পানের প্রথাকে স্বাভাবিক ব্যাপার মনে করে পশ্চিমা পুরুষ ও নারীরা । কিন্তু বর্তমানে তাতেই বাড়ছে বিপদ। হুমকিতে পড়েছে পশ্চিমাদের স্বাস্থ্য। সম্প্রতি মার্কিন মহিলাদের মধ্যে অ্যালকোহলজনিত মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পেয়েছে। একটি রিপোর্টে বলছে, মার্কিন নারীদের মধ্যে বৃদ্ধি পেয়েছে অ্যালকোহলজনিত মৃত্যু। যামা ওপেন নেটওয়ার্ক নামের একটি সমীক্ষা প্রতিষ্ঠান মার্কিনিদের ডেথ সার্টিফিকেটের ওপর ভিত্তি করে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছে।
তাদের দাবি, ২০১২ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত এই ধরণের মৃত্যুর সংখ্যা মহিলাদের মধ্যে বৃদ্ধি পেয়েছে। দেখা গেছে, শ্বেতাঙ্গ ও ল্যাটিনো নারীরাই বেশি অ্যালকোহলজনিত কারণে মারা যাচ্ছেন। তাদের মধ্যে নেশারদ্রব্যে আসক্তিও বেশি।

সমীক্ষা সংস্থা জানিয়েছে, ২০০০ সাল থেকে পশ্চিমাদের মধ্যে অ্যালকোহল আসক্তি কারণে মৃত্যু নিয়ে সমীক্ষা চালিয়ে আসছেন। ২০০৫ সালে এসে অ্যালকোহলজনিত সমস্যায় ভুগে মৃত্যুর সংখ্যা মার্কিন নারীদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। ২০০০ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত মৃতের হার ছিল ০.৬ শতাংশ। এরপর ২০১২ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত সীমক্ষায় দেখা গেছে, সেই হার বেড়ে ৪.২ শতাংশে পৌঁছে গেছে। ২০১৩-২০১৬ সালের সমীক্ষা অনুযায়ী, অ্যালকোহলজনিত নেশায় ৭.১ শতাংশ নারীর মৃত্যু হয়েছে।প্রতি বছরই এই সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, বেশিরভাগ মার্কিন প্রাপ্তবয়স্ক তরুনী মদের নেশায় আসক্ত।

আমেরিকার ন্যাশনাল ক্যান্সার ইন্সিটিটিউটের বিশেষজ্ঞ নেল ফ্রিডম্যান জানিয়েছেন, ২০১৭ সাল থেকে ফের সমীক্ষা শুরু হয়েছে। অ্যালকোহলের আসক্তি মার্কিনিদের স্বাস্থ্যকে হুমকির মধ্যে ফেলেছে। পুরুষদের চেয়ে ঝুঁকিতে রয়েছেন নারীরাই। মদের নেশায় মহিলাদের মধ্যে লিভারজনিত বিভিন্ন সমস্যার জন্ম দিয়েছে। তাতে লিভার ক্যান্সারও বেড়ে চলেছে নারীদের মধ্যে। তা ছাড়া মদপ অবস্থায় গাড়ি চালিয়ে দুর্ঘটনাও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে।
পূবের কলম



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন