Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ০৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬, ১৩ শাবান ১৪৪১ হিজরী

ফিরে গেলেন শান্ত

বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে টেস্ট

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:৪২ পিএম

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ে বিপক্ষে একমাত্র টেস্টের দ্বিতীয় দিন ব্যাট করছে বাংলাদেশ।

প্রথম স্পেলে খরুচে বোলিং করা চার্ল্টন টিশুমা দ্বিতীয় স্পেলে পেলেন নাজমুল হোসেন শান্তর উইকেট। একটু বাড়তি বাউন্স কাল হলো বাঁহাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানের জন্য। অফ স্টাম্পের বাইরের বল ঠিক মতো খেলতে পারেননি। ব্যাটের কানা ছুঁয়ে জমা পড়ে রেজিস চাকাভার গ্লাভসে। টিশুমা পেলেন প্রথম টেস্ট উইকেট। ১৩৯ বলে সাত চারে ৭১ রান করেন শান্ত। ভাঙে ৭৬ রানের জুটি।

৫০ ওভারে বাংলাদেশের স্কোর ১৭২/৩। ক্রিজে মুমিনুল হকের সঙ্গী মুশফিকুর রহিম।

তামিমের বিদায়ে ভাঙল জুটি

শুরুতে সাইফ হাসানকে হারিয়ে কিছুটা বিপাকে পড়েছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে দলকে ভালো অবস্থানে নিয়ে যাচ্ছিলেন তামিম ইকবাল ও নাজমুল হোসেন শান্ত। দু’জনেই পাচ্ছিলেন ফিফটির সুবাস। তবে তামিমের বিদায়ে ফের বিপদে বাংলাদেশ।

এই ওপেনারও ফিরেছেন উইকেটের পিছনে ক্যাচ দিয়ে। ৭৮ রানের জুটি ভাঙা এবার শিকারি তিরিপানো। ৪১ রানে ফেরা তামিমের ইনিংসটি ৭টি চারে সাজানো।

৩৭ ওভার শেষে ২ উইকেট হারানো বাংলাদেশের সংগ্রহ ১১২। ফিফটি তুলে দলকে এগিয়ে নিচ্ছেন শান্ত (৫০)। তাকে সঙ্গ দিতে ক্রিজে এসেছেন অধিনায়ক মুমিনুল হক (১১)।

শুরুতেই সাইফের বিদায়

জিম্বাবুয়েকে অল্পে আটকে দেওয়ার স্বস্তি বেশিক্ষণ স্থায়ী হলো না বাংলাদেশ দলের। শুরুতেই স্বাগতিকরা হারাল ওপেনার সাইফ হাসানকে।

ভিক্টর নিয়াউচির আগের ওভারে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে খুলেছিলেন রানের খাতা। পরে দারুণ এক স্ট্রেইট ড্রাইভে আসে আরেকটি বাউন্ডারি। শেষ পর্যন্ত এই আগাসী মনোভাবই কাল হয়, নিয়াউচির বলেই ফিরলেন কিপারকে ক্যাচ দিয়ে।

চতুর্থ ওভারে প্রথম উইকেট হারাল বাংলাদেশ। অফ স্টাম্পের বাইরের বলে সাইফের ব্যাটের কানা ছুঁয়ে জমা পড়ে রেজিস চাকাভার গ্লাভসে। ১২ বলে দুই চারে সাইফ করেন ৮ রান।

মধ্যাহ্ন বিরতি পর্যন্ত ৮ ওভারে ঐ এক উইকেট হারানো বাংলাদেশের সংগ্রহ ২৫। ১০ রানে ব্যাট করছেন আরেক ওপেনার তামিম ইকবাল। তাকে সঙ্গ দিতে ৫ রান নিয়ে ক্রিজে আছেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

২৬৫ রানে শেষ জিম্বাবুয়ে

পাঁচ উইকেট হলো না আবু জায়েদ চৌধুরী কিংবা নাঈম হাসানের। আক্রমণে ফিরে রেজিস চাকাভাকে ফিরিয়ে জিম্বাবুয়েকে ২৬৫ রানে গুটিয়ে দিলেন তাইজুল ইসলাম।

বাঁহাতি স্পিনারকে ছক্কায় ওড়াতে চেয়েছিলেন চাকাভা। টাইমিং করতে পারেননি জিম্বাবুয়ের কিপার-ব্যাটসম্যান। অনেক ওপরে উঠে যাওয়া ক্যাচ মুঠোয় জমান নাঈম। ইনিংসে এটি তার তৃতীয় ক্যাচ। তিন চারে ৭৪ বলে ৩০ রান করেন চাকাভা।

দ্বিতীয় দিন সকালে এক ঘন্টা ২০ মিনিট স্থায়ী হয় জিম্বাবুয়ের ইনিংস। দলটি যোগ করে ৩৭ রান।

আট ওভারের স্পেলে ২ উইকেট নিয়েছেন আবু জায়েদ। ইনিংসে ৭১ রানে চারটি। টেস্টে এটিই তার ইনিংসে সেরা বোলিং। আগের সেরা ছিল ৪/১০৮। এদিন দুটি উইকেট নিয়েছেন তাইজুল। অফ স্পিনার নাঈম ৭০ রানে নিয়েছেন চারটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস : (আগের দিন ২২৮/৬) ১০৬.৩ ওভারে ২৬৫ (চাকাভা ৩০, টিরিপানো ৮, এনডিলোভু ০, টিশুমা ০, নিয়াউচি ৬*; ইবাদত ১৭-৮-২৬-০, আবু জায়েদ ২৪-৬-৭১-৪, নাঈম ৩৮-৮-৭০-৪, তাইজুল ২৭.৩-১-৯০-২)।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন