Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১১ মাঘ ১৪২৭, ১১ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

সৈয়দপুর বিমানবন্দর আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন সদস্যকে মারপিট

সৈয়দপুর (নীলফামারী) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

 নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের এক সদস্যকে মারপিট ও রক্তাক্ত জখম করার ঘটনায় তিন যুবককে আটক করা হয়েছে। গতকাল রোববার সৈয়দপুর বিমানবন্দরে প্রবেশের প্রধান ফটকে গালমন্দ ও মারপিটের ঘটনা ঘটে। আহত পুলিশ সদস্য সেলিমকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আটকরা হচ্ছে শহরের হাতিখানার মো. শরীফের ছেলে মো. ওমর আলী (২৫), হায়দার আলী (২২) এবং একই এলাকার মো. আলী হোসাইনের ছেলে মো. ইজাজ আহমেদ ওরফে রফিক।
থানায় মামলার অভিযোগে বলা হয়, ঘটনার দিন গতকাল রোববার সকাল সোয়া ১০টায় সৈয়দপুর বিমানবন্দরে প্রবেশের প্রধান ফটকে ৮, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের কনস্টেবল সেলিম, শহীদুল ও মনসুর নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছিলেন। আর এ সময় শহরের হাতিখানা এলাকার ওমর আলী, তার ভাই হায়দার আলী ও ইজাজ আহম্মেদ ওরফে রফিক নামের তিন যুবক একই মোটরসাইকেলের (নম্বর: নীলফামারী-ল-১১-২৯৪৫) বসে দ্রæতগতিতে ও হেলমেটবিহীন অবস্থায় বিমানবন্দরে প্রবেশের প্রধান ফটক দিয়ে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করছিল। সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ কনস্টেবল সেলিম তাদের মোটরসাইকেল থামানোর জন্য সিগন্যাল দেন। কিন্তু মোটরসাইকেল আরোহী ওই তিন যুবক পুলিশের সিগন্যাল অমান্য করে বিমানবন্দরে প্রবেশের চেষ্টা করে। পুলিশ কনস্টেবল সেলিম দৌঁড়ে বিমানবন্দর প্রবেশের প্রধান ফটক থেকে আনুমানিক ১৫ গজ ভেতরে গিয়ে মোটরসাইকেলের সামনে দাঁড়ান। এতে তারা (যুকবরা) মোটরসাইকেল থামাতে বাধ্য হয়। এরপর আরোহী তিন যুবক মোটরসাইকেল থেকে নেমে পুলিশ কনস্টেবল সেলিমকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। যুবকদের গালিগালাজের প্রতিবাদ জানালে ওমর আলী ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশ কনস্টেবল সেলিমের পরণে থাকা সরকারি পোষাকের কলার ধরে টানাহেঁচড়া করতে থাকে। ওমরসহ অপর দুই যুবকও আর্মড পুলিশ সদস্য সেলিমের ওপর চড়াও হয়ে এলোপাথাড়ি কিলঘুষি মারতে থাকে। এতে পুলিশ কনস্টেবল সেলিমের নাকের হাঁড় ভেঙ্গে যায় এবং তিনি গুরুতর রক্তাক্ত জখমপ্রাপ্ত হন। তাঁর পরিধেয় সরকারি পোষাকের সোল্ডার ও নেমপ্লেট ক্যাসার ছিঁড়ে পোষাকটিও ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরবর্তীতে সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য শহীদুল, মনসুর ও আনসার সদস্য এলোপতি বর্মণ এগিয়ে গিয়ে পুলিশ কনস্টেবল সেলিমকে তিন যুবকের হাত থেকে রক্ষা করেন। সেখানে কর্মরত অন্যান্য পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সহযোগিতায় ঘটনাস্থল থেকে ওই তিন যুবককে আটক করা হয়। আটকদের সৈয়দপুর থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়। এ ঘটনায় ৮, আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. লায়েকুজ্জামান বাদি হয়ে উল্লিখিত তিন জনের নামে সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা করেন।
মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে সৈয়দপুর থানার ওসি মো. আবুল হাসনাত খান জানান, গ্রেপ্তারদের আদালতে সোপর্দ করে সাত দিনের রিমান্ডের জন্য আবেদন করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিমানবন্দর

১৩ অক্টোবর, ২০২০
২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন