Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

জাতীয়তাবাদের নামে উগ্র ভারত তৈরির চেষ্টা হচ্ছে

দিল্লিতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০০ এএম

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং বলেছেন, জাতীয়তাবাদ ও ভারত মাতা কি জয় স্লোগানের অপব্যবহার করে দেশে একটা বিচ্ছিন্নতার আবহ তৈরি করা হচ্ছে। এটা হতে থাকলে দেশের লাখ লাখ মানুষ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবেন।

জাতীয়তাবাদ ও ‘ভারত মাতা কি জয়‘ স্লোগানের অপব্যবহার করার জন্য তিনি গেরুয়া শিবিরকে টার্গেট করে ওই কথা বলেন। গত শনিবার দিল্লিতে জওহরলাল নেহেরুর উপর একটি বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে মনমোহন সিং বক্তব্য রাখেন।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন নাম উল্লেখ না করেই বক্তব্যে বিজেপিকে একহাত নেন। তিনি বলেন, অননুকরণীয় পদ্ধতি এবং সব ভাষাভাষী মানুষের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে আধুনিক ভারতের ভিত গড়েছিলেন নেহেরু। তিনি না থাকলে আজকের রূপ পেত না ভারত।

মনমোহন বলেন, নেহেরু ভারতে একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়, শিক্ষা এবং সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছিলেন। আজ জাতীয়তাবাদ এবং ‘ভারত মাতা কি জয়’ স্লোগান দিয়ে উগ্র এবং আবেগতাড়িত এমন এক ভারত তৈরির চেষ্টা চলছে, যাতে বহু মানুষ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবেন। নেহেরুকে ভুলভাবে তুলে ধরার চক্রান্ত হচ্ছে। তবে ইতিহাসের মিথ্যা ব্যাখ্যা দেওয়ার কৌশল মানুষ একদিন প্রত্যাখ্যান করবেন। তখন সব সত্য প্রকাশ পাবে।

ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রীর উপর লেখা যে বইটি প্রকাশের অনুষ্ঠানে মনমোহন বক্তব্য রাখেন, তার ইংরেজি নাম ‘হু ইজ ভারত মাতা (ডযড় রং ইযধৎধঃ গধঃধ)।’ বক্তব্যের সেই নামের সদ্ব্যবহার করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান পরিস্থিতিতে এই বইটি আরও প্রাসঙ্গিক। কারণ এখন জাতীয়তাবাদ ও ভারত মাতার নাম করে দেশকে ভাগ করার চেষ্টা হচ্ছে।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ভারত মাতা কে? কার জয় চান আপনারা? এই দেশের পাহাড়, নদী, জঙ্গল ও মাঠ সব কিছুই আমাদের সকলের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলেন ভারতবাসী। যারা আসমুদ্রহিমাচলে ছড়িয়ে রয়েছেন। তাদের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টির চেষ্টা কখনোই ইতিহাস ক্ষমা করবে না। সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে।



 

Show all comments
  • কাজী মুনতাসির ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:০০ এএম says : 0
    আপনাদের অবস্থা আমাদের বিএনপির চেয়েও এখন অনেক খারাপ। চিল্লায়ে কোনো লাভ হবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • তোফাজ্জল হোসেন ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:০১ এএম says : 0
    ভারত এখন উগ্র হিন্দুত্ববাদী জাতীয়তাবাদীদের দখলে। পুরো দেশে অরাজকতা কায়েম করা হয়েছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Jahangir Hossain ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:৫৯ এএম says : 0
    জন্মগতভাবে মানুষ উগ্র নয়, উগ্রতা মদদপুষ্ট।
    Total Reply(0) Reply
  • Jahangir Hossain ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৪:৫৯ এএম says : 0
    উগ্র ভারত তৈরি চেষ্টা নয় অলরেডি তৈরি হয়ে গেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • পালক ওরে আকাশে ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ৫:০১ এএম says : 0
    মোদির মত একজন কসাইয়ের হাতে দেশ থাকলে উগ্রই তো হবে তাই না!! আপনারাই বা করতে পেরেছেন।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন