Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

দর্শনার্থীর পদচারণায় মুখর

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

ফেব্রুয়ারি মাস জুড়ে বাংলা একাডেমি আর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে চলে বাঙালীর প্রাণের বই মেলা। সেই মেলা এখন দেখতে দেখতে অন্তিম সময় চলে এসেছে। শেষ দিকে দর্শনার্থী-পাঠকের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে। তারা ঘুরছেন, দেখছেন এবং বই কিনছেন। গতকাল মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, এদিন বিকেলে মেলার গেট খোলার সঙ্গে সঙ্গেই বই ও বিনোদনপ্রেমীরা মেলা প্রাঙ্গণে ছুটে আসেন। এক ঘণ্টার মধ্যেই দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে ওঠে মেলা প্রাঙ্গণ। 

তবে, দর্শনার্থীর পদচারণা বেশি থাকলেও বিক্রির অবস্থা ভাল নয় বলে জানিয়েছেন প্রকাশকরা। তাদের দাবি, ফেব্রুয়ারি মেলা শুরু হওয়ার পর প্রতিদিনই মেলা প্রাঙ্গণে পর্যাপ্ত সংখ্যক দর্শনার্থী আসছেন। তবে তাদের বেশিরভাগই বই কেনার থেকে ঘোরাঘুরিতে মত্ত। অন্বেষা প্রকাশনীর বিক্রয়কর্মী আরিজুল ইসলাম বলেন, বিক্রির পরিমাণ আগের চেয়ে তুলনামূলক কম। যারা মেলায় আসছেন অধিকাংশই ঘুরাঘুরি করছেন। কেউ কেউ এসে বই হাতড়িয়ে দেখছেন। বই কিনছেন এমন সংখ্যা খুব কম। জোনাকী প্রকাশনীর সাগর রহমান বলেন, মেলায় প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ আসছেন। এদের মধ্যে থেকে বই কিনছেন গুটি কয়েক মানুষ। মেলায় আসাদের পাঁচ শতাংশ বই কিনছেন না। সবাই ঘোরাঘুরি, আর আড্ডা দিতেই ব্যস্ত।
যাত্রাবাড়ি থেকে বই মেলায় ঘুরতে আসা রাকিব হোসেন বলেন, আমি প্রতিবছর বইমেলায় এসে ঘোরাঘুরি করি। বইও কিনি। এবছর একটিও বই কেনা হয়নি। কেননা এবার মেলায় মনের মতো বই খুঁজে পাচ্ছিনা। মনে হচ্ছে, কিছু স্টলে নিম্নমানের বইয়ে ভরা। বই না কিনে কিছুটা খারাপ লাগছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম বর্ষের ছাত্র তনয়সহ তার কয়েকজন বন্ধুরা বইমেলায় ঘুরতে এসেছেন। তিনি বলেন, বিকেলে বন্ধুরা মিলে বইমেলায় ঘুরতে এসেছি। বন্ধুরা দল বেঁধে ঘোরাঘুরি করার একটা বড় পরিবেশ সৃষ্টি হয়। বই মেলায় দল বেঁধে ঘোরাঘুরি করতে খুব মজা লাগে। তাছাড়া এবার মেলার পরিবেশ অনেক ভালো। মেলার জায়গা যেমন বেশি, তেমনি যথেষ্ট খোলামেলা। আর লেকটা যেভাবে নেয়া হয়েছে, তা মেলার সৌন্দর্য বাড়িয়ে দিয়েছে।
প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটনের দুই বই: বাংলা সাহিত্যে বাচনিক নন্দনের নান্দনিক কবি প্রাকৃতজ শামিমরুমি টিটন। তার শিক্ষিত মননের শিল্পিত উচ্চারণ বিমোহিত করে পাঠক শ্রোতাদের অন্তরকে। এবারের বইমেলায় এ কবির দুটি কবিতার বই প্রকাশিত হয়েছে। তা হলো- মহান দেশপ্রেমিকের সোনালী স্বপ্নের ইতিহাস এবং রক্তেভেজা স্বাধীনতা ও জীবনের দেনা।
দি ইউনিভার্সেল একাডেমি থেকে প্রকাশিত এই বইটি দুটির ব্যাপারে কবি বলেন, অপরুপ নান্দনিকভাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন ও কর্ম সর্বক্ষেত্রে টেকসই ভাবে সবকিছু ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। এছাড়া এই বইটি দ্বারা পাঠক দর্শক শ্রোতাদের নিকট চুম্বকের ন্যায় কাজ করবে। আরেকটি বইয়ের মাধ্যমে দেশপ্রেম ও মহান স্বাধীনতা ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অনেক স্মৃতিপট গুলো তুলে ধরা হয়েছে। বইগুলো বর্তমান তরুণ প্রজন্মের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ জরুরী দরকার আছে এতে অনেক কিছু শেখার আছে বলেও মনে করেন তিনি। #



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বইমেলা

১৩ এপ্রিল, ২০২১
১১ এপ্রিল, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ