Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ০৫ আগস্ট ২০২০, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

মিয়ানমার পার্লামেন্টে এমপি-স্পিকার বিতন্ডা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০, ১২:০১ এএম

মিয়ানমারের ইউনিয়ন পার্লামেন্টের স্পিকার গত মঙ্গলবার সেনাবাহিনীর নিয়োগ করা এমপি মেজর জেনারেল তিন সোয়ে উইনকে অসদাচরণ না করার জন্য হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন। এই এমপি সেনাবাহিনীর সাংবিধান সংশোধন প্রস্তাব বাছাইকারী কমিটির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করতে গিয়ে পার্লামেন্টে হম্বিতম্বি করেন। মঙ্গলবার সংবিধান সংশোধনী বিলের উপর বিতর্ক শুরুর জন্য স্পিকার ঘোষণা দেয়ার পরপরই কমিটির কাজের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করে সেনা এমপিরা। চলতি মাসের গোড়ার দিকে পার্লামেন্টের যৌথ বিল কমিটি যাচাই বাছাই করে সেনাবাহিনী ও এর প্রক্সি ইউনিয়ন সলিডারিটি এন্ড ডেভলপমেন্ট পার্টির এমপিদের দায়ের করা পাঁচটি সংবিধান সংশোধনী বিল একত্রিত করে দুটি এবং ক্ষমতাসীন ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমক্রেসি ও জাতিগত দলগুলোর বিলগুলো মিলিয়ে দুটি বিলে পরিণত করে পার্লামেন্টে আলোচনার জন্য পাঠায়। প্রথমে আলোচনার জন্য দাঁড়িয়ে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল অং সান চিট অভিযোগ করেন যে এমপিদের কাছে সম্মিলিত বিলের যে কপি পাঠানো হয়েছে তাতে তার দেয়া একটি প্রস্তাব নেই। তিনি ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে এই বিল দাখিল করেন। তাতে বলা হয় যে রাজ্য ও আঞ্চলিক মুখ্যমন্ত্রীরাই মন্ত্রী সংখ্যা ঠিক করেন এবং তাদের নিয়োগ দেন। সেখানে ইউনিয়ন প্রেসিডেন্টের কোন ভ‚মিকা নেই। এ ব্যাপারে বিল কমিটির সেক্রেটারি ও এনএলডির এমপি ড. মিয়াত নিয়ানা সোয়ে উঠে দাঁড়িয়ে বক্তব্য দেয়া শুরু করা মাত্র মেজর জেনারেল তিন সুয়ে উইন উঠে দাঁড়ান। স্পিকারের অনুমতি না নিয়েই তিনি চিৎকার করে বলতে থাকেন প্রস্তাবটি বাদ দেয়া হয়েছে, সেটা এখানে নেই। পার্লামেন্টে কিছু বলতে হলে স্পিকারের অনুমতি নেয়া নিয়ম। কিন্তু একবার বিবৃতি দেয়ার পর বারবার কথা বলার অনুমতি দেয়া হয় না। স্পিকার মিয়াত বলেন, এটা ইউনিয়ন পার্লামেন্ট। এমপিসুলভ ভদ্রতার সঙ্গে কথা বলুন ও আচরণ করুন। আবেগ দমন করতে না পারলে এমপিদের মধ্যে সম্পর্ক নষ্ট হবে। এভাবে আচরণ করবেন না, এরকম আগ্রাসী মনোভাব দেখাবেন না। আমি সবাইকে বিষয়টি মনে করিয়ে দিচ্ছি। এরপর স্পিকার যখন সম্মিলিত সংশোধনী বিলের একটি কপি পড়া শুরু করেন তখন আবারো সেনা এমপিদের মধ্য থেকে বাধা দানের চেষ্ট করা হয়। স্পিকার তখন বলেন, থামুন, আমি কথা বলছি। তখন স্পিকার বলেন যে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল চিটের একটি প্রস্তাব ভুলক্রমে কপি থেকে বাদ পড়েছে এবং সংশোধন করে আজকেই দেয়া হচ্ছে। অতীতেও স্পিকার বেশ কয়েক বার সেনাবাহিনীর নিয়োগ করা এমপিদের সংযত আচরণ করার জন্য সতর্ক করে দেন। ২০১৯ সালের নভেম্বরে স্পিকার চার সেনা এমপি-কে ভর্ৎসনা করেন তারা পার্লামেন্টের জন্য অমর্যাদাকর বক্তব্য রাখায়। দ্য ইরাবতী, এসএএম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিয়ানমার


আরও
আরও পড়ুন